পশ্চিমবঙ্গে ভাঙন আতঙ্কে বিজেপি শিবির
jugantor
পশ্চিমবঙ্গে ভাঙন আতঙ্কে বিজেপি শিবির

  অনলাইন ডেস্ক  

১৫ জুন ২০২১, ১৯:৪৯:৩৯  |  অনলাইন সংস্করণ

মুকুল রায়। ফাইল ছবি

ভাঙন আতঙ্ক যথেষ্টভাবে গ্রাস করেছে বিজেপি শিবিরে৷ বিশেষ করে বিজেপির কেন্দ্রীয় সহসভাপতি মুকুল রায় তৃণমূলে যোগ দেয়ার পর এ আতংক প্রবলভাবে দেখা দিয়েছে গেরুয়া শিবিরে।

হিন্দুস্তানের খবরে খবরে এ নিয়ে বিশেষ প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, এবার বিজেপিতে কী ভাঙন ধরাচ্ছেন রায়সাহেব?‌ এই প্রশ্নই এখন ঘুরপাক খাচ্ছে রাজ্য–রাজনীতির অলিন্দে। কারণ তিনি আজ জানিয়েছেন, বিজেপির অনেকের সঙ্গেই তার কথা হয়৷ এখন তিনি তৃণমূল কংগ্রেসে ফিরে এসেছেন। তাহলে কি নিয়ে কথা হয়?‌ এই প্রশ্ন যখন উঠছে তখন বিজেপিতে ভাঙনের জল্পনা বাড়িয়ে এই মন্তব্যই করলেন মুকুল রায়৷ মঙ্গলবার পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বাড়ি থেকে বেরনোর পর সাংবাদিকদের এই মন্তব্য করেন মুকুল৷ যদিও মুকুল রায়ের এই বক্তব্যকে গুরুত্ব দিতে নারাজ বিজেপি৷

রোববার মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের মাতৃবিয়োগ হয়। আর আজ তার সঙ্গে দেখা করে সমবেদনা জানাতে যান মুকুল রায়৷ তৃণমূল কংগ্রেসের মহাসচিবের বাড়ি থেকে মুকুল রায় যখন বেরোচ্ছেন, তখনই তার কাছে জানতে চাওয়া হয়, তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দেওয়ার প্রস্তাব বিজেপির বিধায়ক, নেতাদের সঙ্গে তার কথা হয়েছে কি না?‌ উত্তরে মুকুল রায় বলেন, ‘‌বহু লোকের সঙ্গেই কথা হয়৷’‌ কিন্তু এখনও পর্যন্ত কাদের সঙ্গে কথা হয়েছে তা তিনি খোলসা করেননি।

আজ অবশ্য মুকুল পুত্র শুভ্রাংশু জানিয়েছেন, কমপক্ষে ৩০ জন বিধায়ক যোগাযোগ করেছেন। তারপর থেকেই রাজ্য–রাজনীতিতে এই প্রশ্ন ঘোরাফেরা করছিল। এবার তাতে ইন্ধন জোগালেন মুকুল রায় বলে মনে করছেন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা।

প্রসঙ্গত, গত শুক্রবার তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দেন মুকুল রায় এবং তার ছেলে শুভ্রাংশু রায়৷ সূত্রের খবর, বিজেপির উত্তরবঙ্গের দুই সাংসদ–সহ বেশ কয়েকজন বিধায়কের সঙ্গে দলবদলের প্রস্তাব নিয়ে মুকুলের কথা হয়েছে৷ তবে মুকুলের এই বক্তব্যকে গুরুত্ব দিতে নারাজ বিজেপির মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্য৷

তিনি বলেন, ‘‌উনি এতদিন দলে ছিলেন৷ বিজেপির অনেকের সঙ্গেই তার আলাপ আছে৷ কথা বলতেই পারেন। কিন্তু তার সঙ্গে দলবদলের কোনও সম্পর্ক নেই৷ বিজেপি সংঘবদ্ধভাবেই তৃণমূল কংগ্রেসের গঠনমূলক বিরোধিতা করবে৷’‌

পশ্চিমবঙ্গে ভাঙন আতঙ্কে বিজেপি শিবির

 অনলাইন ডেস্ক 
১৫ জুন ২০২১, ০৭:৪৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
মুকুল রায়। ফাইল ছবি
মুকুল রায়। ফাইল ছবি

ভাঙন আতঙ্ক যথেষ্টভাবে গ্রাস করেছে বিজেপি শিবিরে৷ বিশেষ করে বিজেপির কেন্দ্রীয় সহসভাপতি মুকুল রায় তৃণমূলে যোগ দেয়ার পর এ আতংক প্রবলভাবে দেখা দিয়েছে গেরুয়া শিবিরে।

হিন্দুস্তানের খবরে খবরে এ নিয়ে বিশেষ প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়েছে। 

প্রতিবেদনে বলা হয়, এবার বিজেপিতে কী ভাঙন ধরাচ্ছেন রায়সাহেব?‌ এই প্রশ্নই এখন ঘুরপাক খাচ্ছে রাজ্য–রাজনীতির অলিন্দে। কারণ তিনি আজ জানিয়েছেন, বিজেপির অনেকের সঙ্গেই তার কথা হয়৷ এখন তিনি তৃণমূল কংগ্রেসে ফিরে এসেছেন। তাহলে কি নিয়ে কথা হয়?‌ এই প্রশ্ন যখন উঠছে তখন বিজেপিতে ভাঙনের জল্পনা বাড়িয়ে এই মন্তব্যই করলেন মুকুল রায়৷ মঙ্গলবার পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বাড়ি থেকে বেরনোর পর সাংবাদিকদের এই মন্তব্য করেন মুকুল৷ যদিও মুকুল রায়ের এই বক্তব্যকে গুরুত্ব দিতে নারাজ বিজেপি৷

রোববার মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের মাতৃবিয়োগ হয়। আর আজ তার সঙ্গে দেখা করে সমবেদনা জানাতে যান মুকুল রায়৷ তৃণমূল কংগ্রেসের মহাসচিবের বাড়ি থেকে মুকুল রায় যখন বেরোচ্ছেন, তখনই তার কাছে জানতে চাওয়া হয়, তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দেওয়ার প্রস্তাব বিজেপির বিধায়ক, নেতাদের সঙ্গে তার কথা হয়েছে কি না?‌ উত্তরে মুকুল রায় বলেন, ‘‌বহু লোকের সঙ্গেই কথা হয়৷’‌ কিন্তু এখনও পর্যন্ত কাদের সঙ্গে কথা হয়েছে তা তিনি খোলসা করেননি।

আজ অবশ্য মুকুল পুত্র শুভ্রাংশু জানিয়েছেন, কমপক্ষে ৩০ জন বিধায়ক যোগাযোগ করেছেন। তারপর থেকেই রাজ্য–রাজনীতিতে এই প্রশ্ন ঘোরাফেরা করছিল। এবার তাতে ইন্ধন জোগালেন মুকুল রায় বলে মনে করছেন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা।

প্রসঙ্গত, গত শুক্রবার তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দেন মুকুল রায় এবং তার ছেলে শুভ্রাংশু রায়৷ সূত্রের খবর, বিজেপির উত্তরবঙ্গের দুই সাংসদ–সহ বেশ কয়েকজন বিধায়কের সঙ্গে দলবদলের প্রস্তাব নিয়ে মুকুলের কথা হয়েছে৷ তবে মুকুলের এই বক্তব্যকে গুরুত্ব দিতে নারাজ বিজেপির মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্য৷

তিনি বলেন, ‘‌উনি এতদিন দলে ছিলেন৷ বিজেপির অনেকের সঙ্গেই তার আলাপ আছে৷ কথা বলতেই পারেন। কিন্তু তার সঙ্গে দলবদলের কোনও সম্পর্ক নেই৷ বিজেপি সংঘবদ্ধভাবেই তৃণমূল কংগ্রেসের গঠনমূলক বিরোধিতা করবে৷’‌

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : পশ্চিমবঙ্গ নির্বাচন ২০২১