লকডাউন কাজে লাগিয়ে হাজারো পয়সায় সাজালেন রান্নাঘর
jugantor
লকডাউন কাজে লাগিয়ে হাজারো পয়সায় সাজালেন রান্নাঘর

  যুগান্তর ডেস্ক  

১৭ জুন ২০২১, ০৩:০৭:০৭  |  অনলাইন সংস্করণ

লকডাউনে সময় যেন থমকে গেছে। তবে সবার কিন্তু সময় কাটাতে বেগ পেতে হচ্ছে না।কেউ কেউ আছেন যারা নিজেদের কল্পনা শক্তি আর সৃজনশীলতাকে কাজে লাগিয়ে দিব্যি সময় কাটাচ্ছেন।

তেমনই একজন হলেন ইংল্যান্ডের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের বাসিন্দা বিলি জো ওয়েলসবি। যিনি লকডাউনের অলস সময় কাজে লাগিয়ে নিজের প্রাণহীন রান্নাঘরের দেওয়াল সাজিয়ে তুলেছেন ভীষণ চকচকে করে।

আর চকচকে করার কাজে তিনি ব্যবহার করেছেন প্রায় সাড়ে সাত হাজার পিস ১ পেনির কয়েন। এখন বিলির রান্নাঘরে এক চিলতে আলো পড়লেই তা ঝলমল করে উঠে।

রান্নাঘরের দেওয়াল সাজানোর আগের আর পরের অনেকগুলো ছবিও নিজের ফেসবুকে শেয়ার করেছেন ৪৯ বছর বয়সী ওই নারী। ছবিতে আগের প্রাণহীন রান্নাঘরের দেওয়াল আর বর্তমানের ঝাঁ চকচকে দেওয়ালের তুলনা করে বিলির সৃজনশীলতাকে প্রসংশায় ভাসাচ্ছেন নেটিজেনরা।

বিলি কবে নিজের রান্নাঘর এভাবে সাজালেন সে ব্যাপারে ওই পোস্টে কিছু জানাননি। গত সপ্তাহে ছবিগুলো তার ফেসবুকে পোস্ট করা হয়েছে বলে বুধবার এনডিটিভি এক প্রতিবেদনে জানিয়েছেন।

রান্নাঘরের দেওয়ালকে সাজিয়ে তুলতে বিলির মোট ১০ ঘণ্টা সময় লেগেছে। আর দেওয়ালের সৌন্দর্যে তার প্রত্যাশাকেও ছাড়িয়ে গেছে বলে জানিয়েছেন তিনি।পেশাদার কাউকে দিয়ে ঘর সাজানোর টাকা বেঁচে যাওয়াতেও কিন্তু দারুণ খুশি বিলি।

লকডাউন কাজে লাগিয়ে হাজারো পয়সায় সাজালেন রান্নাঘর

 যুগান্তর ডেস্ক 
১৭ জুন ২০২১, ০৩:০৭ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

লকডাউনে সময় যেন থমকে গেছে। তবে সবার কিন্তু সময় কাটাতে বেগ পেতে হচ্ছে না।কেউ কেউ আছেন যারা নিজেদের কল্পনা শক্তি আর সৃজনশীলতাকে কাজে লাগিয়ে দিব্যি সময় কাটাচ্ছেন।

তেমনই একজন হলেন ইংল্যান্ডের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের বাসিন্দা বিলি জো ওয়েলসবি। যিনি লকডাউনের অলস সময় কাজে লাগিয়ে নিজের প্রাণহীন রান্নাঘরের দেওয়াল সাজিয়ে তুলেছেন ভীষণ চকচকে করে।

আর চকচকে করার কাজে তিনি ব্যবহার করেছেন প্রায় সাড়ে সাত হাজার পিস ১ পেনির কয়েন। এখন বিলির রান্নাঘরে এক চিলতে আলো পড়লেই তা ঝলমল করে উঠে।

রান্নাঘরের দেওয়াল সাজানোর আগের আর পরের অনেকগুলো ছবিও নিজের ফেসবুকে শেয়ার করেছেন ৪৯ বছর বয়সী ওই নারী। ছবিতে আগের প্রাণহীন রান্নাঘরের দেওয়াল আর বর্তমানের ঝাঁ চকচকে দেওয়ালের তুলনা করে বিলির সৃজনশীলতাকে প্রসংশায় ভাসাচ্ছেন নেটিজেনরা।

বিলি কবে নিজের রান্নাঘর এভাবে সাজালেন সে ব্যাপারে ওই পোস্টে কিছু জানাননি। গত সপ্তাহে ছবিগুলো তার ফেসবুকে পোস্ট করা হয়েছে বলে বুধবার এনডিটিভি এক প্রতিবেদনে জানিয়েছেন।

রান্নাঘরের দেওয়ালকে সাজিয়ে তুলতে বিলির মোট ১০ ঘণ্টা সময় লেগেছে। আর দেওয়ালের সৌন্দর্যে তার প্রত্যাশাকেও ছাড়িয়ে গেছে বলে জানিয়েছেন তিনি।পেশাদার কাউকে দিয়ে ঘর সাজানোর টাকা বেঁচে যাওয়াতেও কিন্তু দারুণ খুশি বিলি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন