ইরানের নির্বাচনে যে প্রার্থী এগিয়ে
jugantor
ইরানের নির্বাচনে যে প্রার্থী এগিয়ে

  অনলাইন ডেস্ক  

১৭ জুন ২০২১, ২২:১০:০৭  |  অনলাইন সংস্করণ

ইরানের নির্বাচনী প্রচারণায় ইব্রাহিম রায়িসির ব্যানার। তার প্রতি সমর্থন জানিয়ে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেন সাবেক সুপ্রিম সিকিউরিটি কাউন্সিল সেক্রেটারি সাঈদ জালিলি। ছবি: এএফপি

ইরানের ১৩তম প্রেসিডেন্ট নির্বাচন শুক্রবার অনুষ্ঠিত অনুষ্ঠিত হচ্ছে। প্রেসিডেন্ট নির্বাচনসহ মোট চারটি নির্বাচনের ভোটগ্রহণ করা হচ্ছে। শনিবার দুপুরের আগেই নির্বাচনের ফল ঘোষণা করা হবে।

নির্বাচনে প্রেসিডেন্ট পদে লড়াইয়ের জন্য নিবন্ধন করেছিলেন মোট ৫২৯ জন। এর মধ্যে চূড়ান্ত প্রার্থী হিসাবে অনুমোদন পেয়েছিলেন সাতজন। সংস্কারপন্থি ও মধ্যপন্থি প্রার্থীদের বাদ দেওয়া হয়। একেবারে শেষ সময়ে এসে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেন তিন প্রার্থী।

স্থানীয় সময় বুধবার সন্ধ্যায় ইরানের জনগণের উদ্দেশ লেখা এক বিবৃতিতে ইব্রাহিম রায়িসির প্রতি সমর্থন জানিয়ে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেন সাবেক সুপ্রিম সিকিউরিটি কাউন্সিল সেক্রেটারি সাঈদ জালিলি। যার ফলেইব্রাহিম রায়িসি কিছুটা সুবিধাজনক অবস্থায় রয়েছে বলে আন্তর্জাতিক বিভিন্ন গণমাধ্যম আভাস দিয়েছে।

দুইবারের মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ায় প্রার্থী হননি বর্তমান প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি। ২০১৩ সাল থেকে দায়িত্ব পালন করছেন তিনি।

এর কয়েক ঘণ্টা আগে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন থেকে সরে আসার ঘোষণা দেন অপর দুই প্রার্থী ইরানের জাতীয় ক্রীড়া সংস্থার প্রধান ও সাবেক ইসপাহান গভর্নর মোহসেন মেহের আলীজাদে ও সাংসদ আলীরেজা যাকানি। মেহের আলীজাদে অপর সংস্কারপন্থি প্রার্থী আব্দুন নাসের হেম্মাতির প্রতি সমর্থন জানিয়ে নির্বাচনি লড়াই থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেন। এরপর রক্ষণশীল প্রার্থী আলীরেজা যাকানি অপর প্রতিদ্বন্দ্বী ইব্রাহিম রায়িসির সমর্থনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা থেকে সরে দাঁড়ান।

তিনজন সরে দাঁড়ানোয় প্রেসিডেন্ট পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন মাত্র চারজন প্রার্থী। এর মধ্যে জনমত জরিপে এগিয়ে রয়েছেন বিচার বিভাগের প্রধান আয়াতুল্লাহ ইব্রাহিম রায়িসি।

ইবরাহিম রায়িসি ২০১৪ সাল থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত ইরানের অ্যাটর্নি জেনারেল হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এর আগে ২০০৪ থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত তিনি ইরানের বিচার বিভাগের উপ প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালনকরেছেন।

ইরানের নির্বাচনে যে প্রার্থী এগিয়ে

 অনলাইন ডেস্ক 
১৭ জুন ২০২১, ১০:১০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ইরানের নির্বাচনী প্রচারণায় ইব্রাহিম রায়িসির ব্যানার। তার প্রতি সমর্থন জানিয়ে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেন সাবেক সুপ্রিম সিকিউরিটি কাউন্সিল সেক্রেটারি সাঈদ জালিলি। ছবি: এএফপি
ইরানের নির্বাচনী প্রচারণায় ইব্রাহিম রায়িসির ব্যানার। তার প্রতি সমর্থন জানিয়ে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেন সাবেক সুপ্রিম সিকিউরিটি কাউন্সিল সেক্রেটারি সাঈদ জালিলি। ছবি: এএফপি

ইরানের ১৩তম প্রেসিডেন্ট নির্বাচন শুক্রবার অনুষ্ঠিত অনুষ্ঠিত হচ্ছে। প্রেসিডেন্ট নির্বাচনসহ মোট চারটি নির্বাচনের ভোটগ্রহণ করা হচ্ছে। শনিবার দুপুরের আগেই নির্বাচনের ফল ঘোষণা করা হবে। 

নির্বাচনে প্রেসিডেন্ট পদে লড়াইয়ের জন্য নিবন্ধন করেছিলেন মোট ৫২৯ জন। এর মধ্যে চূড়ান্ত প্রার্থী হিসাবে অনুমোদন পেয়েছিলেন সাতজন। সংস্কারপন্থি ও মধ্যপন্থি প্রার্থীদের বাদ দেওয়া হয়। একেবারে শেষ সময়ে এসে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেন তিন প্রার্থী। 

স্থানীয় সময় বুধবার সন্ধ্যায় ইরানের জনগণের উদ্দেশ লেখা এক বিবৃতিতে ইব্রাহিম রায়িসির প্রতি সমর্থন জানিয়ে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেন সাবেক সুপ্রিম সিকিউরিটি কাউন্সিল সেক্রেটারি সাঈদ জালিলি। যার ফলে ইব্রাহিম রায়িসি কিছুটা সুবিধাজনক অবস্থায় রয়েছে বলে আন্তর্জাতিক বিভিন্ন গণমাধ্যম আভাস দিয়েছে। 

দুইবারের মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ায় প্রার্থী হননি বর্তমান প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি। ২০১৩ সাল থেকে দায়িত্ব পালন করছেন তিনি। 

এর কয়েক ঘণ্টা আগে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন থেকে সরে আসার ঘোষণা দেন অপর দুই প্রার্থী ইরানের জাতীয় ক্রীড়া সংস্থার প্রধান ও সাবেক ইসপাহান গভর্নর মোহসেন মেহের আলীজাদে ও সাংসদ আলীরেজা যাকানি। মেহের আলীজাদে অপর সংস্কারপন্থি প্রার্থী আব্দুন নাসের হেম্মাতির প্রতি সমর্থন জানিয়ে নির্বাচনি লড়াই থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেন। এরপর রক্ষণশীল প্রার্থী আলীরেজা যাকানি অপর প্রতিদ্বন্দ্বী ইব্রাহিম রায়িসির সমর্থনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা থেকে সরে দাঁড়ান। 

তিনজন সরে দাঁড়ানোয় প্রেসিডেন্ট পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন মাত্র চারজন প্রার্থী। এর মধ্যে জনমত জরিপে এগিয়ে রয়েছেন বিচার বিভাগের প্রধান আয়াতুল্লাহ ইব্রাহিম রায়িসি। 

ইবরাহিম রায়িসি ২০১৪ সাল থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত ইরানের অ্যাটর্নি জেনারেল হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এর আগে ২০০৪ থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত তিনি ইরানের বিচার বিভাগের উপ প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ইরানের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন