মার্কিন বাহিনীর আফগানিস্তান ত্যাগ কেন গুরুত্বপূর্ণ জানালেন পুতিন
jugantor
মার্কিন বাহিনীর আফগানিস্তান ত্যাগ কেন গুরুত্বপূর্ণ জানালেন পুতিন

  অনলাইন ডেস্ক  

১৮ জুন ২০২১, ২১:২৬:০৪  |  অনলাইন সংস্করণ

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বলেছেন, মার্কিন বাহিনী আফগানিস্তান থেকে চলে যাচ্ছে এটা মস্কোর জন্য গুরুত্বপূর্ণ। বৃহস্পতিবার মস্কোতে এক অনুষ্ঠানে দেওয়া ভাষণে এ মন্তব্য করেন।

রুশ প্রেসিডেন্ট বলেন, মার্কিন বাহিনী আফগানিস্তান ছাড়ছে। দেশটি রাশিয়ার বেশ কাছাকাছি। তাজিকিস্তানের সঙ্গে সরাসরি সীমান্ত রয়েছে আফগানিস্তানের। আর এই তাজিকিস্তানে আমাদের একটি সামরিক ঘাঁটি রয়েছে। দেশটি রাশিয়ার নেতৃত্বাধীন সামরিক জোট কালেক্টিভ সিকিউরিটি ট্রিটি অর্গানাইজেশনেরও (সিএসটিও) সদস্য।

পুতিন বলেন, আমরা কীভাবে এই অঞ্চলে সম্পর্ক তৈরি করব, কীভাবে এই অঞ্চলের নিরাপত্তা নিশ্চিত করব, সেটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

বুধবার জেনেভায় মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের সঙ্গে অনুষ্ঠিত বৈঠকেও আফগানিস্তান ইস্যু আলোচ্যসূচিতে ছিল বলেও জানান পুতিন।

এদিকে, যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জেক সুলিভান বলেছেন, ন্যাটো বাহিনীর আফগানিস্তান ত্যাগের পর কাবুল বিমানবন্দরের নিরাপত্তায় প্রধান ভূমিকা নেবে তুরস্ক। যদিও এ বিষয়টি এখনও চূড়ান্ত নয়। এছাড়া, আফগান সরকার কিংবা তালেবান উভয়ই মার্কিন সেনারা আফগানিস্তান ছেড়ে যাবার পর পুনরায় কোনো বিদেশি সেনা থাকুক সেটা তারা চায় না।

আগামী ১১ সেপ্টেম্বরের মধ্যে আফগানিস্তান থেকে মার্কিন বাহিনী পুরোপুরি প্রত্যাহার করা হবে।

সূত্র ফার্স নিউজ এজেন্সি

মার্কিন বাহিনীর আফগানিস্তান ত্যাগ কেন গুরুত্বপূর্ণ জানালেন পুতিন

 অনলাইন ডেস্ক 
১৮ জুন ২০২১, ০৯:২৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন
রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। ফাইল ছবি

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বলেছেন, মার্কিন বাহিনী আফগানিস্তান থেকে চলে যাচ্ছে এটা মস্কোর জন্য গুরুত্বপূর্ণ। বৃহস্পতিবার মস্কোতে এক অনুষ্ঠানে দেওয়া ভাষণে এ মন্তব্য করেন।

রুশ প্রেসিডেন্ট বলেন, মার্কিন বাহিনী আফগানিস্তান ছাড়ছে। দেশটি রাশিয়ার বেশ কাছাকাছি। তাজিকিস্তানের সঙ্গে সরাসরি সীমান্ত রয়েছে আফগানিস্তানের। আর এই তাজিকিস্তানে আমাদের একটি সামরিক ঘাঁটি রয়েছে। দেশটি রাশিয়ার নেতৃত্বাধীন সামরিক জোট কালেক্টিভ সিকিউরিটি ট্রিটি অর্গানাইজেশনেরও (সিএসটিও) সদস্য।

পুতিন বলেন, আমরা কীভাবে এই অঞ্চলে সম্পর্ক তৈরি করব, কীভাবে এই অঞ্চলের নিরাপত্তা নিশ্চিত করব, সেটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

বুধবার জেনেভায় মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের সঙ্গে অনুষ্ঠিত বৈঠকেও আফগানিস্তান ইস্যু আলোচ্যসূচিতে ছিল বলেও জানান পুতিন।

এদিকে, যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জেক সুলিভান বলেছেন, ন্যাটো বাহিনীর আফগানিস্তান ত্যাগের পর কাবুল বিমানবন্দরের নিরাপত্তায় প্রধান ভূমিকা নেবে তুরস্ক। যদিও এ বিষয়টি এখনও চূড়ান্ত নয়। এছাড়া, আফগান সরকার কিংবা তালেবান উভয়ই মার্কিন সেনারা আফগানিস্তান ছেড়ে যাবার পর পুনরায় কোনো বিদেশি সেনা থাকুক সেটা তারা চায় না।

আগামী ১১ সেপ্টেম্বরের মধ্যে আফগানিস্তান থেকে মার্কিন বাহিনী পুরোপুরি প্রত্যাহার করা হবে।

সূত্র ফার্স নিউজ এজেন্সি
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন