হঠাৎ বন্ধ করে দেওয়া হলো ইরানের একমাত্র পরমাণু বিদ্যুৎকেন্দ্র
jugantor
হঠাৎ বন্ধ করে দেওয়া হলো ইরানের একমাত্র পরমাণু বিদ্যুৎকেন্দ্র

  অনলাইন ডেস্ক  

২১ জুন ২০২১, ১০:২৯:২২  |  অনলাইন সংস্করণ

কোনো ধরনের পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই জরুরিভিত্তিতে ইরানেরএকমাত্র পরমাণু বিদ্যুৎকেন্দ্র বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

ইরানের টেলিভিশনের বরাত দিয়ে এ তথ্য জানায় আরব নিউজ।

খবরে বলা হয়, ইরানের বিদ্যুৎ বিভাগের কর্মকর্তা গোলাম আলী রাখশানিমেহের এক টকশোতে বলেন, বুশেহর পরমাণু বিদ্যুৎকেন্দ্র শনিবার থেকে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এটি ‘তিন থেকে চার দিন বন্ধ থাকবে।’ এর কারণে বিদ্যুৎ বিভ্রাট দেখা দিতে পারে বলে জানান গোলাম আলী।

কেন বন্ধ করা হলো এ বিদ্যুৎকেন্দ্রসে বিষয়ে তিনি বিস্তারিত কিছুই বলেননি। তবে জরুরিভিত্তিতে এ পরমাণু বিদ্যুৎকেন্দ্র বন্ধের ঘটনা এটিই প্রথম।

বুশেহর শহরে অবস্থিত এ পরমাণু বিদ্যুৎকেন্দ্র ২০১১ সালে রাশিয়ার সহযোগিতায় কার্যক্রম শুরু করে।

মার্চে ইরানের পরমাণুবিষয়ক কর্মকর্তা মাহমুদ জাফারি সতর্ক করে বলেছিলেন, ২০১৮ সালে ইরানের ব্যাংকিং খাতের ওপর যুক্তরাষ্ট্রের আরোপিত নিষেধাজ্ঞার কারণে রাশিয়া থেকে সরঞ্জাম আনা যাচ্ছে না। ফলে এ বিদ্যুৎকেন্দ্রের কাজ বন্ধ করে দিতে হতে পারে।

বুশেহর বিদ্যুৎকেন্দ্রে যে ইউরেনিয়াম ব্যবহার হয়, তা রাশিয়ায় উৎপাদিত, ইরানের নয়। আর তা জাতিসংঘের ইন্টারন্যাশনাল অ্যাটমিক এনার্জি এজেন্সি নজরদারি করে।

হঠাৎ বন্ধ করে দেওয়া হলো ইরানের একমাত্র পরমাণু বিদ্যুৎকেন্দ্র

 অনলাইন ডেস্ক 
২১ জুন ২০২১, ১০:২৯ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

কোনো ধরনের পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই জরুরিভিত্তিতে ইরানের একমাত্র পরমাণু বিদ্যুৎকেন্দ্র বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

ইরানের টেলিভিশনের বরাত দিয়ে এ তথ্য জানায় আরব নিউজ।

খবরে বলা হয়, ইরানের বিদ্যুৎ বিভাগের কর্মকর্তা গোলাম আলী রাখশানিমেহের এক টকশোতে বলেন, বুশেহর পরমাণু বিদ্যুৎকেন্দ্র শনিবার থেকে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এটি ‘তিন থেকে চার দিন বন্ধ থাকবে।’ এর কারণে বিদ্যুৎ বিভ্রাট দেখা দিতে পারে বলে জানান গোলাম আলী।

কেন বন্ধ করা হলো এ বিদ্যুৎকেন্দ্র সে বিষয়ে তিনি বিস্তারিত কিছুই বলেননি। তবে জরুরিভিত্তিতে এ পরমাণু বিদ্যুৎকেন্দ্র বন্ধের ঘটনা এটিই প্রথম।

বুশেহর শহরে অবস্থিত এ পরমাণু বিদ্যুৎকেন্দ্র ২০১১ সালে রাশিয়ার সহযোগিতায় কার্যক্রম শুরু করে।

মার্চে ইরানের পরমাণুবিষয়ক কর্মকর্তা মাহমুদ জাফারি সতর্ক করে বলেছিলেন, ২০১৮ সালে ইরানের ব্যাংকিং খাতের ওপর যুক্তরাষ্ট্রের আরোপিত নিষেধাজ্ঞার কারণে রাশিয়া থেকে সরঞ্জাম আনা যাচ্ছে না। ফলে এ বিদ্যুৎকেন্দ্রের কাজ বন্ধ করে দিতে হতে পারে।

বুশেহর বিদ্যুৎকেন্দ্রে যে ইউরেনিয়াম ব্যবহার হয়, তা রাশিয়ায় উৎপাদিত, ইরানের নয়। আর তা জাতিসংঘের ইন্টারন্যাশনাল অ্যাটমিক এনার্জি এজেন্সি নজরদারি করে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন