যে কারণে বিয়ে ভেঙে মামলা করলেন কনে
jugantor
যে কারণে বিয়ে ভেঙে মামলা করলেন কনে

  অনলাইন ডেস্ক  

২৫ জুন ২০২১, ০০:৪৫:২৯  |  অনলাইন সংস্করণ

কথায় আছে জন্ম-মৃত্যু-বিয়ে ভাগ্যের হাতে। বিয়ের আসরেও বিয়ে ভেঙে যাওয়ার ঘটনা বিরল নয়। কিন্তু ভারতের এক তরুণী বিয়ের আসরে নিমন্ত্রিত অতিথিদের সামনে যে কারণে বিয়ে দিয়েছেন জানলে অবাক হবেন। আর শুধু বিয়ে ভেঙে দিয়েই ক্ষান্ত হননি, পাত্র আর তার পরিবারের বিরুদ্ধে মামলাও করেছেন ওই তরুণী।

কনের দাবি, বর হিন্দি সংবাদপত্র পড়তে পারেননি। যদিও বর রীতিমত শিক্ষিত বলেই জানা গেছে।

জি নিউজ বৃহস্পতিবার এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, উত্তর প্রদেশের আয়োরাইয়া জেলায় আয়োজন করা হয়েছিল বিয়ের অনুষ্ঠানের। নিয়ন্ত্রিত অতিথিরা সবাই চলে এসেছিল। বিয়ের আসরে বর-কনে বসেও পড়েছিলেন। বিয়ের আনুষ্ঠানিকতার শুরুর অল্প সময় বাকি ছিল। এসময় কনে লক্ষ্য করে বরের চোখে চশমা। বিয়ের কথাবার্তা চলার সময় তারা বরের ক্ষীণ দৃষ্টিশক্তির ব্যাপারটি ঘুণাক্ষরেও টের পাননি। সে সময় বর স্টাইল করে ফ্যাশনের জন্য চশমা পরেছিলেন বলে ধারণা করেছিলেন তারা।

পরে বরের পরিবারের সদস্যকে চশমার ব্যাপারে জিজ্ঞাসা করলে তারা জানান, বর চশমা ছাড়া কিছুই দেখতে পান না। কনে তখন দৃষ্টিশক্তির ব্যাপারে নিশ্চিত হওয়ার জন্য বরকে একটা হিন্দি পত্রিকা পড়তে দেন। কিন্তু চশমা ছাড়া একদমই দেখতে পান না বর। ব্যস, রেগেমেগে বিয়ে ভেঙে দেন ওই তরুণী। এমনকি বরের চশমা পরার বিষয়টি গোপন করায় মামলাও করেছেন কনের পরিবার।

নীতিগত কারণে বর-কনের পরিচয় প্রকাশ করা হয়নি। এ ঘটনা কবের তাও জানা যায়নি।

যে কারণে বিয়ে ভেঙে মামলা করলেন কনে

 অনলাইন ডেস্ক 
২৫ জুন ২০২১, ১২:৪৫ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

কথায় আছে জন্ম-মৃত্যু-বিয়ে ভাগ্যের হাতে। বিয়ের আসরেও বিয়ে ভেঙে যাওয়ার ঘটনা বিরল নয়। কিন্তু ভারতের এক তরুণী বিয়ের আসরে নিমন্ত্রিত অতিথিদের সামনে যে কারণে বিয়ে দিয়েছেন জানলে অবাক হবেন। আর শুধু বিয়ে ভেঙে দিয়েই ক্ষান্ত হননি, পাত্র আর তার পরিবারের বিরুদ্ধে মামলাও করেছেন ওই তরুণী।

কনের দাবি, বর হিন্দি সংবাদপত্র পড়তে পারেননি। যদিও বর রীতিমত শিক্ষিত বলেই জানা গেছে।

জি নিউজ বৃহস্পতিবার এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, উত্তর প্রদেশের আয়োরাইয়া জেলায় আয়োজন করা হয়েছিল বিয়ের অনুষ্ঠানের। নিয়ন্ত্রিত অতিথিরা সবাই চলে এসেছিল। বিয়ের আসরে বর-কনে বসেও পড়েছিলেন। বিয়ের আনুষ্ঠানিকতার শুরুর অল্প সময় বাকি ছিল। এসময় কনে লক্ষ্য করে বরের চোখে চশমা। বিয়ের কথাবার্তা চলার সময় তারা বরের ক্ষীণ দৃষ্টিশক্তির ব্যাপারটি ঘুণাক্ষরেও টের পাননি। সে সময় বর স্টাইল করে ফ্যাশনের জন্য চশমা পরেছিলেন বলে ধারণা করেছিলেন তারা।

পরে বরের পরিবারের সদস্যকে চশমার ব্যাপারে জিজ্ঞাসা করলে তারা জানান, বর চশমা ছাড়া কিছুই দেখতে পান না। কনে তখন দৃষ্টিশক্তির ব্যাপারে নিশ্চিত হওয়ার জন্য বরকে একটা হিন্দি পত্রিকা পড়তে দেন। কিন্তু চশমা ছাড়া একদমই দেখতে পান না বর। ব্যস, রেগেমেগে বিয়ে ভেঙে দেন ওই তরুণী। এমনকি বরের চশমা পরার বিষয়টি গোপন করায় মামলাও করেছেন কনের পরিবার।

নীতিগত কারণে বর-কনের পরিচয় প্রকাশ করা হয়নি। এ ঘটনা কবের তাও জানা যায়নি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন