তালেবান কবে কাবুল দখল করবে জানালেন যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দারা
jugantor
তালেবান কবে কাবুল দখল করবে জানালেন যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দারা

  অনলাইন ডেস্ক  

২৫ জুন ২০২১, ১৭:১৩:৫২  |  অনলাইন সংস্করণ

তালেবান প্রতিদিনই কোনো না কোনো এলাকা দখল করছে।

আফগানিস্তান সরকারসহ বিভিন্ন মহলে দেশটি থেকে বিদেশি সেনা প্রত্যাহারের পর তালেবান ক্ষমতা দখল করবে এমন দুচিন্তা বাড়ছে। চিন্তা বাড়ার কারণ গত দুই মাসে তালেবান বাহিনী সামরিকভাবে ব্যাপক অগ্রসর হয়েছে।

জাতিসংঘের তথ্যানুসারে, আফগানিস্তানের চার শতাধিক জেলার মধ্যে তালেবান ইতোমধ্যে ৮০টির বেশি জেলা দখল করে নিয়েছে। প্রায় প্রতিদিনই সশস্ত্র গোষ্ঠীটির হাতে কোনো না কোনো এলাকা পতনের খবর আসছে।

এসব বিবেচনায় নিয়ে আন্তর্জাতিক মহল ও বিশেষজ্ঞরা তালেবান কবেনাগাদ রাজধানী কাবুল দখল করতে পারে সেই হিসাব কষছে।

বুধবার যুক্তরাষ্ট্রের প্রভাবশালী পত্রিকা ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল এক প্রতিবেদনে যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা বাহিনীর বরাতে জানিয়েছে, বিদেশি সেনা প্রত্যাহারের ৬ থেকে ১২ মাসের মধ্যে তালেবান আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুল দখল করতে পারে। আর রাজধানী দখল করা মানে পুরো আফগানিস্তান দখল করা।

আফগানিস্তানের বিগত বছরগুলোর অভিজ্ঞতার আলোকে বিশেষজ্ঞরা সতর্ক করে বলেছেন, আফগান সরকারের অযোগ্য নেতৃত্ব, দুর্নীতি এবং নিরাপত্তা বাহিনীর মধ্যে নৃগোষ্ঠীগত বিভাজন তালেবানকে সুযোগ করে দিচ্ছে। তালেবানের ক্ষমতা দখল নির্ভর করছে আশরাফ গনি সরকারের টিকে থাকার ওপর।

আফগানিস্তান থেকে বিদেশি সেনা প্রত্যাহারের মধ্যে তালেবানের প্রবল আক্রমণের মুখে আফগান সরকার, সেনাবাহিনী এবং দেশটির বাসিন্দারা যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি ধীরে ধীরে সৈন্য প্রত্যাহার প্রত্যাশা করছে। কিন্তু যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তারা এ বিষয়ে দ্বিধাদ্বন্দ্বে আছেন।

হোয়াইট হাউসের প্রেস সচিব জেন সাকি জানান, আফগানিস্তান থেকে পেন্টাগন সুশৃঙ্খলভাবে সেনা প্রত্যাহারের বিষয় ভাবছে। দেশটিতে তালেবানের সহিংসতা তাদের সেনাদের ওপর নয় বলেও মন্তব্য করেন তিনি। এর অর্থ আফগানিস্তান থেকে যুক্তরাষ্ট্রের সেনা প্রত্যাহার বন্ধ ঘোষণার কোনো সম্ভাবনা নেই।

সূত্র: টিআরটি ওয়ার্ল্ড/ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল

তালেবান কবে কাবুল দখল করবে জানালেন যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দারা

 অনলাইন ডেস্ক 
২৫ জুন ২০২১, ০৫:১৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
তালেবান প্রতিদিনই কোনো না কোনো এলাকা দখল করছে।
তালেবান প্রতিদিনই কোনো না কোনো এলাকা দখল করছে। ছবি: এপি

আফগানিস্তান সরকারসহ বিভিন্ন মহলে দেশটি থেকে বিদেশি সেনা প্রত্যাহারের পর তালেবান ক্ষমতা দখল করবে এমন দুচিন্তা বাড়ছে। চিন্তা বাড়ার কারণ গত দুই মাসে তালেবান বাহিনী সামরিকভাবে ব্যাপক অগ্রসর হয়েছে। 

জাতিসংঘের তথ্যানুসারে, আফগানিস্তানের চার শতাধিক জেলার মধ্যে তালেবান ইতোমধ্যে ৮০টির বেশি জেলা দখল করে নিয়েছে। প্রায় প্রতিদিনই সশস্ত্র গোষ্ঠীটির হাতে কোনো না কোনো এলাকা পতনের খবর আসছে।
 
এসব বিবেচনায় নিয়ে আন্তর্জাতিক মহল ও বিশেষজ্ঞরা তালেবান কবেনাগাদ রাজধানী কাবুল দখল করতে পারে সেই হিসাব কষছে। 

বুধবার যুক্তরাষ্ট্রের প্রভাবশালী পত্রিকা ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল এক প্রতিবেদনে যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা বাহিনীর বরাতে জানিয়েছে, বিদেশি সেনা প্রত্যাহারের ৬ থেকে ১২ মাসের মধ্যে তালেবান আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুল দখল করতে পারে। আর রাজধানী দখল করা মানে পুরো আফগানিস্তান দখল করা।
 
আফগানিস্তানের বিগত বছরগুলোর অভিজ্ঞতার আলোকে বিশেষজ্ঞরা সতর্ক করে বলেছেন, আফগান সরকারের অযোগ্য নেতৃত্ব, দুর্নীতি এবং নিরাপত্তা বাহিনীর মধ্যে নৃগোষ্ঠীগত বিভাজন তালেবানকে সুযোগ করে দিচ্ছে। তালেবানের ক্ষমতা দখল নির্ভর করছে আশরাফ গনি সরকারের টিকে থাকার ওপর। 

আফগানিস্তান থেকে বিদেশি সেনা প্রত্যাহারের মধ্যে তালেবানের প্রবল আক্রমণের মুখে আফগান সরকার, সেনাবাহিনী এবং দেশটির বাসিন্দারা যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি ধীরে ধীরে সৈন্য প্রত্যাহার প্রত্যাশা করছে। কিন্তু যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তারা এ বিষয়ে দ্বিধাদ্বন্দ্বে আছেন। 

হোয়াইট হাউসের প্রেস সচিব জেন সাকি জানান, আফগানিস্তান থেকে পেন্টাগন সুশৃঙ্খলভাবে সেনা প্রত্যাহারের বিষয় ভাবছে। দেশটিতে তালেবানের সহিংসতা তাদের সেনাদের ওপর নয় বলেও মন্তব্য করেন তিনি। এর অর্থ আফগানিস্তান থেকে যুক্তরাষ্ট্রের সেনা প্রত্যাহার বন্ধ ঘোষণার কোনো সম্ভাবনা নেই।

সূত্র: টিআরটি ওয়ার্ল্ড/ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন