রাতারাতি যেভাবে মাল্টি-বিলিয়নার হলেন এই ব্যক্তি (ভিডিও)
jugantor
রাতারাতি যেভাবে মাল্টি-বিলিয়নার হলেন এই ব্যক্তি (ভিডিও)

  যুগান্তর ডেস্ক  

২৫ জুন ২০২১, ১৭:৪৫:২৭  |  অনলাইন সংস্করণ

রাতারাতি যেভাবে মাল্টি-বিলিয়নার হলেন এই ব্যক্তি

নিজের ভাগ্য পরীক্ষা করতে ক্রিপ্টো মার্কেটে প্রায়ই টাকা বিনিয়োগ করতেন যুক্তরাষ্ট্রের বাসিন্দা ক্রিস উইলিয়ামসন। তবে তার বিনিয়োগের অঙ্ক ছিল যৎসামান্য। গত ১৬ জুন সে রকমই নিজের ভাগ্য পরীক্ষা করতে ক্রিপ্টো মার্কেটে মাত্র ২০ ডলার বিনিয়োগ করেছিলেন কয়েনবেস অ্যাপের মাধ্যমে। পর দিন সকালে ক্রিস ঘুম থেকে উঠে দেখেন তার অ্যাকাউন্টে জমা পড়েছে ১১৪১৫০১৫৬৪৪৩৮ ডলার!

প্রথমে ক্রিস মনে করছিলেন তিনি স্বপ্ন দেখছেন। পরে ফের অ্যাকাউন্টটা ভালো করে দেখেন তিনি। না কোনো স্বপ্ন নয়, রাতারাতি তিনি এই বিপুল পরিমাণ অর্থের মালিক হয়েছেন।

তবে ক্রিসের সেই আনন্দ উচ্ছ্বাস দীর্ঘস্থায়ী হয়নি। রাতারাতি কোটিপতি হয়েছিলেন ঠিকই, কিন্তু তার ‘জেতা’ টাকা কয়েনবেস-এর কাছে দাবি করতেই চিত্রটা পুরো বদলে যায়। কয়েনবেস ক্রিসকে জানিয়ে দেয়, এই টাকা তার নয়। প্রযুক্তিগত ত্রুটির জন্য তার অ্যাকাউন্টে এই বিপুল পরিমাণ টাকা ঢুকেছে। অতএব তিনি ওই টাকা দাবি করতে পারেন না।

যে স্বপ্ন ক্রিস রোজ দেখতেন, সেই স্বপ্ন পূরণ হলো ঠিকই, কিন্তু তা অল্প সময়ের জন্য। রাতারাতি কোটি টাকার মালিক হয়েও দিনশেষে শূন্যহাতেই ফিরতে হলো ক্রিসকে।

সত্যি সত্যি এতে টাকার মালিক হলে কী করতেন? জানতে চাইলে ক্রিস বলেন, তিনি যদি এই টাকা পেতেন, তা হলে কিছু টাকা মানুষের সেবার কাজে লাগাতেন। বোনের বাড়ির ঋণ শোধ করতেন। আর একটা দাতব্য চিকিৎসালয় খুলতেন।

রাতারাতি যেভাবে মাল্টি-বিলিয়নার হলেন এই ব্যক্তি (ভিডিও)

 যুগান্তর ডেস্ক 
২৫ জুন ২০২১, ০৫:৪৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
রাতারাতি যেভাবে মাল্টি-বিলিয়নার হলেন এই ব্যক্তি
ছবি : প্রতীকী

নিজের ভাগ্য পরীক্ষা করতে ক্রিপ্টো মার্কেটে প্রায়ই টাকা বিনিয়োগ করতেন যুক্তরাষ্ট্রের বাসিন্দা ক্রিস উইলিয়ামসন। তবে তার বিনিয়োগের অঙ্ক ছিল যৎসামান্য। গত ১৬ জুন সে রকমই নিজের ভাগ্য পরীক্ষা করতে ক্রিপ্টো মার্কেটে মাত্র ২০ ডলার বিনিয়োগ করেছিলেন কয়েনবেস অ্যাপের মাধ্যমে। পর দিন সকালে ক্রিস ঘুম থেকে উঠে দেখেন তার অ্যাকাউন্টে জমা পড়েছে ১১৪১৫০১৫৬৪৪৩৮ ডলার!

প্রথমে ক্রিস মনে করছিলেন তিনি স্বপ্ন দেখছেন। পরে ফের অ্যাকাউন্টটা ভালো করে দেখেন তিনি। না কোনো স্বপ্ন নয়, রাতারাতি তিনি এই বিপুল পরিমাণ অর্থের মালিক হয়েছেন।

তবে ক্রিসের সেই আনন্দ উচ্ছ্বাস দীর্ঘস্থায়ী হয়নি। রাতারাতি কোটিপতি হয়েছিলেন ঠিকই, কিন্তু তার ‘জেতা’ টাকা কয়েনবেস-এর কাছে দাবি করতেই চিত্রটা পুরো বদলে যায়। কয়েনবেস ক্রিসকে জানিয়ে দেয়, এই টাকা তার নয়। প্রযুক্তিগত ত্রুটির জন্য তার অ্যাকাউন্টে এই বিপুল পরিমাণ টাকা ঢুকেছে। অতএব তিনি ওই টাকা দাবি করতে পারেন না।

যে স্বপ্ন ক্রিস রোজ দেখতেন, সেই স্বপ্ন পূরণ হলো ঠিকই, কিন্তু তা অল্প সময়ের জন্য। রাতারাতি কোটি টাকার মালিক হয়েও দিনশেষে শূন্যহাতেই ফিরতে হলো ক্রিসকে।

সত্যি সত্যি এতে টাকার মালিক হলে কী করতেন? জানতে চাইলে ক্রিস বলেন, তিনি যদি এই টাকা পেতেন, তা হলে কিছু টাকা মানুষের সেবার কাজে লাগাতেন। বোনের বাড়ির ঋণ শোধ করতেন। আর একটা দাতব্য চিকিৎসালয় খুলতেন।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন