তালেবান ক্ষমতা দখল করলে সীমান্ত বন্ধ করে দেবে পাকিস্তান
jugantor
তালেবান ক্ষমতা দখল করলে সীমান্ত বন্ধ করে দেবে পাকিস্তান

  যুগান্তর ডেস্ক  

২৮ জুন ২০২১, ২০:৪৯:৫৯  |  অনলাইন সংস্করণ

তালেবান ক্ষমতা দখল করলে সীমান্ত বন্ধ করে দেবে পাকিস্তান

তালেবান আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখল করলে দেশটির সঙ্গে সীমান্ত বন্ধ করে দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কোরেশি।

তিনি বলেন, বিদেশি বাহিনী চলে যাওয়ার পর যদি তালেবান আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখল করে, তাহলে জাতীয় স্বার্থ বিবেচনায় দেশটির সঙ্গে সীমান্ত বন্ধ করে দেবে পাকিস্তান। খবর আরব নিউজের।

রোববার মুলতানে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ হুশিয়ারি দেন।

তিনি আরও বলেন, পাকিস্তান গত কয়েক বছরে ৩৫ লাখ আফগান শরণার্থীকে আশ্রয় দিয়েছে। আমাদের পক্ষে আরও শরণার্থী গ্রহণ করা সম্ভব নয়।

এর আগে তালেবান জোর করে আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখল করলেও পাকিস্তান তাদের বিরুদ্ধে কোনো সামরিক পদক্ষেপ নেবে না বলে জানিয়েছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

তালেবান জোর করে ক্ষমতা দখল করলে কী ঘটবে-এমন প্রশ্নের জবাবে ইমরান খান বলেন, পূর্বে আফগানিস্তানের সঙ্গে আমাদের সীমান্ত খোলা ছিল। কিন্তু ইতোমধ্যে আমরা ৯০ শতাংশ সীমান্তে বেড়া দিয়েছি। তালেবান ক্ষমতা দখল করলে আমরা সীমান্ত বন্ধ করে দেব। দুটো কারণে তিনি এটা করবেন বলে উল্লেখ করেন। সেই দুই কারণ হলো-পকিস্তান কোনো সংঘর্ষে যাবে না আর দ্বিতীয় কারণ হলো, আফগানিস্তান থেকে পাকিস্তানে শরণার্থীর ঢল বন্ধ করা।

তালেবান জোর করে ক্ষমতা দখল করলে পাকিস্তান তাদের স্বীকৃতি দেবে কীনা এমন প্রশ্নের জবাবে ইমরান খান বলেন, আফগানিস্তানের সাধারণ মানুষ যে সরকারকে পছন্দ করবে পাকিস্তান শুধুমাত্র সে সরকারকেই স্বীকৃতি দেবে।

পাক প্রধানমন্ত্রী এমন এক সময় এ মন্তব্য করলেন যখন বিভিন্ন মহল তালেবান আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখল করবে বলে আশঙ্কা করছে। যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দারা জানিয়েছে, আগামী সেপ্টেম্বরের মধ্যে সেনা প্রত্যাহার করা হলে তালেবান ৬ থেকে ১২ মাসের মধ্যে আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখল করবে।

জাতিসংঘ বলছে, গত দুই মাসে তালেবান আফগানিস্তানের চার’শ জেলার মধ্যে ৮০টির অধিক জেলা দখল করে নিয়েছে। প্রায় প্রতিদিনই তালেবানের হাতে আফগানিস্তানের কোনো না কোনো জেলার পতন হচ্ছে।

তালেবান ক্ষমতা দখল করলে সীমান্ত বন্ধ করে দেবে পাকিস্তান

 যুগান্তর ডেস্ক 
২৮ জুন ২০২১, ০৮:৪৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
তালেবান ক্ষমতা দখল করলে সীমান্ত বন্ধ করে দেবে পাকিস্তান
ফাইল ছবি

তালেবান আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখল করলে দেশটির সঙ্গে সীমান্ত বন্ধ করে দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কোরেশি। 

তিনি বলেন, বিদেশি বাহিনী চলে যাওয়ার পর যদি তালেবান আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখল করে, তাহলে জাতীয় স্বার্থ বিবেচনায় দেশটির সঙ্গে সীমান্ত বন্ধ করে দেবে পাকিস্তান। খবর আরব নিউজের।

রোববার মুলতানে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ হুশিয়ারি দেন।

তিনি আরও বলেন, পাকিস্তান গত কয়েক বছরে ৩৫ লাখ আফগান শরণার্থীকে আশ্রয় দিয়েছে। আমাদের পক্ষে আরও শরণার্থী গ্রহণ করা সম্ভব নয়। 

এর আগে তালেবান জোর করে আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখল করলেও পাকিস্তান তাদের বিরুদ্ধে কোনো সামরিক পদক্ষেপ নেবে না বলে জানিয়েছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। 

তালেবান জোর করে ক্ষমতা দখল করলে কী ঘটবে-এমন প্রশ্নের জবাবে ইমরান খান বলেন, পূর্বে আফগানিস্তানের সঙ্গে আমাদের সীমান্ত খোলা ছিল। কিন্তু ইতোমধ্যে আমরা ৯০ শতাংশ সীমান্তে বেড়া দিয়েছি। তালেবান ক্ষমতা দখল করলে আমরা সীমান্ত বন্ধ করে দেব। দুটো কারণে তিনি এটা করবেন বলে উল্লেখ করেন। সেই দুই কারণ হলো-পকিস্তান কোনো সংঘর্ষে যাবে না আর দ্বিতীয় কারণ হলো, আফগানিস্তান থেকে পাকিস্তানে শরণার্থীর ঢল বন্ধ করা।

তালেবান জোর করে ক্ষমতা দখল করলে পাকিস্তান তাদের স্বীকৃতি দেবে কীনা এমন প্রশ্নের জবাবে ইমরান খান বলেন, আফগানিস্তানের সাধারণ মানুষ যে সরকারকে পছন্দ করবে পাকিস্তান শুধুমাত্র সে সরকারকেই স্বীকৃতি দেবে।

পাক প্রধানমন্ত্রী এমন এক সময় এ মন্তব্য করলেন যখন বিভিন্ন মহল তালেবান আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখল করবে বলে আশঙ্কা করছে। যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দারা জানিয়েছে, আগামী সেপ্টেম্বরের মধ্যে সেনা প্রত্যাহার করা হলে তালেবান ৬ থেকে ১২ মাসের মধ্যে আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখল করবে।

জাতিসংঘ বলছে, গত দুই মাসে তালেবান আফগানিস্তানের চার’শ জেলার মধ্যে ৮০টির অধিক জেলা দখল করে নিয়েছে। প্রায় প্রতিদিনই তালেবানের হাতে আফগানিস্তানের কোনো না কোনো জেলার পতন হচ্ছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : মার্কিন-তালেবান শান্তি আলোচনা

আরও খবর