আরও ১৩ জেলার নিয়ন্ত্রণ নিল তালেবান
jugantor
আরও ১৩ জেলার নিয়ন্ত্রণ নিল তালেবান

  অনলাইন ডেস্ক  

০৪ জুলাই ২০২১, ১৮:১৪:১০  |  অনলাইন সংস্করণ

আরও ১৩ জেলার নিয়ন্ত্রণ নিল তালেবান

২৪ ঘন্টায় আফগানিস্তানের আরও ১৩ জেলা দখলে নিয়েছে তালেবান যোদ্ধারা। মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের প্রক্রিয়া শুরু হওয়ার পর থেকে দেশটির বিভিন্ন এলাকা দখলে নিচ্ছে সশস্ত্র গোষ্ঠীটি।

আল আরাবিয়ার খবরে বলা হয়, রাজধানী কাবুল ও ৩৪টি প্রাদেশিক রাজধানী ছাড়াও ৩৭২টি জেলার মধ্যে ১১০টি দখল করেছে তালেবান।

আফগান প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের দাবি, গত ২৪ ঘণ্টায় প্রতিরক্ষা বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে ২২৪ তালেবান যোদ্ধা নিহত হয়েছে।

অন্যদিকে, মার্কিন সেনা প্রত্যাহার প্রক্রিয়া শুরু হওয়ার পর আফগান প্রশাসনে হতাশা বিরাজ করছে।

আল আরাবিয়া জানিয়েছে, সেনাবাহিনীর সঙ্গে তালেবানদের তীব্র লড়াইয়ে সাধারণ জনগণ বেশ আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছে। তারা চায় যে কোনো একপক্ষের বিজয়ের মাধ্যমে এই লড়াইয়ের অবসান হোক।

আফগানিস্তানে তালেবানদের অব্যাহত অভিযানের বিষয়ে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কোনো কার্যকর প্রতিক্রিয়া এখনও দেখা যায়নি। যার অর্থ অনেকেই মনে করছে তালেবানদের প্রতি তাদের সমর্থন রয়েছে।

২০০১ সালের ১১ সেপ্টেম্বর নিউইয়র্ক, ওয়াশিংটন ডিসি ও পেনসিলভানিয়ায় সন্ত্রাসী হামলা চালানোর পর আফগানিস্তানে হামলার লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত করে যুক্তরাষ্ট্র।

তৎকালীন বুশ প্রশাসন ৯/১১ এর হামলায় আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসী সংগঠন আল-কায়েদার যোগসূত্র রয়েছে-এমন ঘোষণা দিয়ে সে সময় তালেবানদের দখলে থাকা আফগানিস্তানে আশ্রয় নেওয়া আল-কায়েদার বিরুদ্ধে যুদ্ধ শুরু করে।

প্রায় দুই দশকের এই যুদ্ধ শেষের লক্ষ্যে যুক্তরাষ্ট্র ও ন্যাটোর সেনারা ইতোমধ্যে দেশটির সবচেয়ে বড় বাগরাম বিমানঘাঁটি ত্যাগ করেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দারা জানিয়েছে, আগামী সেপ্টেম্বরের মধ্যে সেনা প্রত্যাহার করা হলে তালেবান ৬ থেকে ১২ মাসের মধ্যে আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখল করবে।

আল আরাবিয়া অবলম্বনে- আশরাফ জিয়া

আরও ১৩ জেলার নিয়ন্ত্রণ নিল তালেবান

 অনলাইন ডেস্ক 
০৪ জুলাই ২০২১, ০৬:১৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
আরও ১৩ জেলার নিয়ন্ত্রণ নিল তালেবান
ছবি: সংগৃহীত

২৪ ঘন্টায় আফগানিস্তানের আরও ১৩ জেলা দখলে নিয়েছে তালেবান যোদ্ধারা। মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের প্রক্রিয়া শুরু হওয়ার পর থেকে দেশটির বিভিন্ন এলাকা দখলে নিচ্ছে সশস্ত্র গোষ্ঠীটি।   

আল আরাবিয়ার খবরে বলা হয়, রাজধানী কাবুল ও ৩৪টি প্রাদেশিক রাজধানী ছাড়াও ৩৭২টি জেলার মধ্যে ১১০টি দখল করেছে তালেবান।

আফগান প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের দাবি, গত ২৪ ঘণ্টায় প্রতিরক্ষা বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে ২২৪ তালেবান যোদ্ধা নিহত হয়েছে।

অন্যদিকে, মার্কিন সেনা প্রত্যাহার প্রক্রিয়া শুরু হওয়ার পর আফগান প্রশাসনে হতাশা বিরাজ করছে।

আল আরাবিয়া জানিয়েছে, সেনাবাহিনীর সঙ্গে তালেবানদের তীব্র লড়াইয়ে সাধারণ জনগণ বেশ আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছে। তারা চায় যে কোনো একপক্ষের বিজয়ের মাধ্যমে এই লড়াইয়ের অবসান হোক।

আফগানিস্তানে তালেবানদের অব্যাহত অভিযানের বিষয়ে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কোনো কার্যকর প্রতিক্রিয়া এখনও দেখা যায়নি। যার অর্থ অনেকেই মনে করছে তালেবানদের প্রতি তাদের সমর্থন রয়েছে। 

২০০১ সালের ১১ সেপ্টেম্বর নিউইয়র্ক, ওয়াশিংটন ডিসি ও পেনসিলভানিয়ায় সন্ত্রাসী হামলা চালানোর পর আফগানিস্তানে হামলার লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত করে যুক্তরাষ্ট্র। 

তৎকালীন বুশ প্রশাসন ৯/১১ এর হামলায় আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসী সংগঠন আল-কায়েদার যোগসূত্র রয়েছে-এমন ঘোষণা দিয়ে সে সময় তালেবানদের দখলে থাকা আফগানিস্তানে আশ্রয় নেওয়া আল-কায়েদার বিরুদ্ধে যুদ্ধ শুরু করে।

প্রায় দুই দশকের এই যুদ্ধ শেষের লক্ষ্যে যুক্তরাষ্ট্র ও ন্যাটোর সেনারা ইতোমধ্যে দেশটির সবচেয়ে বড় বাগরাম বিমানঘাঁটি ত্যাগ করেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দারা জানিয়েছে, আগামী সেপ্টেম্বরের মধ্যে সেনা প্রত্যাহার করা হলে তালেবান ৬ থেকে ১২ মাসের মধ্যে আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখল করবে। 

আল আরাবিয়া অবলম্বনে- আশরাফ জিয়া

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : মার্কিন-তালেবান শান্তি আলোচনা