দক্ষিণ আফ্রিকায় আন্দোলনে নিহত ২১২ (ভিডিও)
jugantor
দক্ষিণ আফ্রিকায় আন্দোলনে নিহত ২১২ (ভিডিও)

  শওকত বিন আশরাফ, দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে  

১৯ জুলাই ২০২১, ০০:৪১:৫৩  |  অনলাইন সংস্করণ

যুদ্ধ নয়, কিন্তু যুদ্ধ অবস্থা চলে আসছিল গত এক সপ্তাহ ধরে। দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক রাষ্ট্রপতি জ্যাকব জুমার কারাদণ্ডের প্রতিবাদে ফুঁসে ওঠা আন্দোলন রীতিমতো যুদ্ধে রুপ নিয়েছিল।

বৃহস্পতিবার থেকে যুদ্ধের সমাপ্তি হলেও বাড়তে থাকে মৃতের সংখ্যা। আজ শুক্রবার পর্যন্ত জুমা আন্দোলনে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২১২ জনে।

জুমা মুক্তির আন্দোলন লুটপাট, হামলা ও অগ্নিসংযোগে রূপ নিলে দেশের দুই প্রদেশ হয়ে যায় যুদ্ধের রণক্ষেএ। সেই সময় পুলিশ ও বেসরকারি সিকিউরিটির গুলিতে নিহত কৃষ্ণাঙ্গদের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২১২ জনে। পুলিশ ও সেনাবাহিনী লাশ উদ্ধারে অভিযান অব্যাহত রেখেছে।

এদিকে দেশটির ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা ডারবান পরিদর্শন করেছেন রাষ্ট্রপতি সিরিল রামাপোসা। পরিদর্শনের সময় রাষ্ট্রপতি দেশের জনগণকে শান্ত থাকার অনুরোধ জানিয়ে বলেন, গত এক সপ্তাহ ধরে চলে আসা লুটপাট একটি অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা। দেশের সুনাম এবং সম্পদের ক্ষতিসাধন করে যারাই দেশের সুনাম নষ্ট করেছে তাদের আইনের আওতায় আনা হচ্ছে। কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। রাষ্ট্রপতি ভবিষ্যতে নেলসন ম্যান্ডেলার দেশ দক্ষিণ আফ্রিকার সুনাম নষ্ট না করার জন্য জনগণের কাছে আহ্বান জানান।

অপরদিকে গত এক সপ্তাহের তাণ্ডবে লণ্ডভণ্ড দক্ষিণ আফ্রিকা সরকারি বেসরকারি স্থাপনা, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, রাস্তাঘাট মেরামতে কাজ করে যাচ্ছে দেশের সেনাবাহিনী ও সংশ্লিষ্ট প্রশাসন। রাস্তাঘাট ধোয়া মুছার কাজ চালিয়ে যাচ্ছে স্ব স্ব মিউনিসিপ্যালিটি।

অপরদিকে লুটপাট হওয়া মালামাল উদ্ধার করতে পুলিশ সেনাবাহিনী যৌথ অভিযান পরিচালনা করছে কৃষ্ণাঙ্গদের ঘরে ঘরে। জোহানেসবার্গ ও ডারবানের প্রতিটি কৃষ্ণাঙ্গ নাগরিকের ঘর তল্লাশি চালিয়ে লুটপাট হওয়া মালামাল উদ্ধার করছে। সেই সঙ্গে লুটপাটে অভিযুক্ত কৃষ্ণাঙ্গদের গ্রেফতার অভিযান অব্যাহত রেখেছে। এ পর্যন্ত ১৭শ কৃষ্ণাঙ্গকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ ও সেনাবাহিনী।

দক্ষিণ আফ্রিকায় আন্দোলনে নিহত ২১২ (ভিডিও)

 শওকত বিন আশরাফ, দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে 
১৯ জুলাই ২০২১, ১২:৪১ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

যুদ্ধ নয়, কিন্তু যুদ্ধ অবস্থা চলে আসছিল গত এক সপ্তাহ ধরে। দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক রাষ্ট্রপতি জ্যাকব জুমার কারাদণ্ডের প্রতিবাদে ফুঁসে ওঠা আন্দোলন রীতিমতো যুদ্ধে রুপ নিয়েছিল।

বৃহস্পতিবার থেকে যুদ্ধের সমাপ্তি হলেও বাড়তে থাকে মৃতের সংখ্যা। আজ শুক্রবার পর্যন্ত জুমা আন্দোলনে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২১২ জনে।

জুমা মুক্তির আন্দোলন লুটপাট, হামলা ও অগ্নিসংযোগে রূপ নিলে দেশের দুই প্রদেশ হয়ে যায় যুদ্ধের রণক্ষেএ। সেই সময় পুলিশ ও বেসরকারি সিকিউরিটির গুলিতে নিহত কৃষ্ণাঙ্গদের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২১২ জনে। পুলিশ ও সেনাবাহিনী লাশ উদ্ধারে অভিযান অব্যাহত রেখেছে।

এদিকে দেশটির ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা ডারবান পরিদর্শন করেছেন রাষ্ট্রপতি সিরিল রামাপোসা। পরিদর্শনের সময় রাষ্ট্রপতি দেশের জনগণকে শান্ত থাকার অনুরোধ জানিয়ে বলেন, গত এক সপ্তাহ ধরে চলে আসা লুটপাট একটি অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা। দেশের সুনাম এবং সম্পদের ক্ষতিসাধন করে যারাই দেশের সুনাম নষ্ট করেছে তাদের আইনের আওতায় আনা হচ্ছে। কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। রাষ্ট্রপতি ভবিষ্যতে নেলসন ম্যান্ডেলার দেশ দক্ষিণ আফ্রিকার সুনাম নষ্ট না করার জন্য জনগণের কাছে আহ্বান জানান।

অপরদিকে গত এক সপ্তাহের তাণ্ডবে লণ্ডভণ্ড দক্ষিণ আফ্রিকা সরকারি বেসরকারি স্থাপনা, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, রাস্তাঘাট মেরামতে কাজ করে যাচ্ছে দেশের সেনাবাহিনী ও সংশ্লিষ্ট প্রশাসন। রাস্তাঘাট ধোয়া মুছার কাজ চালিয়ে যাচ্ছে স্ব স্ব মিউনিসিপ্যালিটি।

অপরদিকে লুটপাট হওয়া মালামাল উদ্ধার করতে পুলিশ সেনাবাহিনী যৌথ অভিযান পরিচালনা করছে কৃষ্ণাঙ্গদের ঘরে ঘরে। জোহানেসবার্গ ও ডারবানের প্রতিটি কৃষ্ণাঙ্গ নাগরিকের ঘর তল্লাশি চালিয়ে লুটপাট হওয়া মালামাল উদ্ধার করছে। সেই সঙ্গে লুটপাটে অভিযুক্ত কৃষ্ণাঙ্গদের গ্রেফতার অভিযান অব্যাহত রেখেছে। এ পর্যন্ত ১৭শ কৃষ্ণাঙ্গকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ ও সেনাবাহিনী।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন