২০২৪ সালের নির্বাচনেও ‘খেলা’ হবে: মমতা
jugantor
২০২৪ সালের নির্বাচনেও ‘খেলা’ হবে: মমতা

  অনলাইন ডেস্ক  

২১ জুলাই ২০২১, ১৮:২২:৪৬  |  অনলাইন সংস্করণ

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যাণার্জী বলেছেন, তৃণমূল মাটির দল, মানুষের দল। নিজে থাকব, আর কেউ নয় এমন নয়। নতুনদের নিয়ে আসুন। তারা না এলে আগামী দিনে কে দল চালাবে?

তিনি বলেন, ২০২৪ সালের নির্বাচনেও ‘খেলা’ হবে বিজেপির সঙ্গে। আগামীতে বিজেপিবিরোধী জোট গঠন করে পশ্চিমবঙ্গে তৃণমূলের জয়যাত্রা অব্যাহত রাখবেন বলেও ঘোষণা দেন মমতা।

মমতা বলেন, বিজেপিতে গাদ্দারদেরই জন্ম হয়। ভালো মানুষের নয়। ওরা দেশটাকে জানে না, মানুষকে চেনে না। মুখ বন্ধ করে দেওয়ার রাজনীতি করে। এই রাজনীতি আমার মোটে পছন্দ নয়।

১৯৯৩ সালের ২১ জুলাই পুলিশের গুলিতে নিহত নিজ দলের নেতাকর্মীদের স্মরণ করতে প্রতিবছর ২১ জুলাই ‘শহীদ দিবস’ পালন করে তৃণমূল।

এই প্রথম শহীদ স্মরণকে জাতীয় পর্যায়ে নিয়ে গেল তারা। দিল্লি, উত্তরপ্রদেশ, গুজরাত, তামিলনাড়ু, আসাম ও ত্রিপুরায়ও মমতার ভাষণ শোনার ব্যবস্থা করা হয়েছে। ২০২৪ সালের লোকসভা নির্বাচনকে সামনে রেখেই তৃণমূলের এমন উদ্যোগ বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

জনসভায় অভিষেক ব্যাণার্জী জানান, আগামী দিনে সাংগঠনিক ভাবে আরও শক্তিশালী হবে তৃমমূল।

স্বৈরাচারী শক্তিকে হটিয়ে উজ্জ্বল ভারত গড়ে তুলতে একসঙ্গে হাত ধরে এগোতে হবে আমাদের। আমাদের ভয় দেখিয়ে লাভ নেই। আমরা মাথা নত করব না।

মনে রাখবেন, আমরা হারব না, আমরা ভয় পাব না, মাথা নত করব না। আমরা, করব, লড়ব, জিতব। এখনও অনেক কাজ বাকি রয়েছে। অনেক গাদ্দার আছে, যারা বড় বড় কথা বলছে। ফোন ট্যাপিংয়ের কথাও বলছে। এদের মানুষ রাজনৈতিক ভাবে বিদায় দেবেন বলে আমার বিশ্বাস।

২০২৪ সালের নির্বাচনেও ‘খেলা’ হবে: মমতা

 অনলাইন ডেস্ক 
২১ জুলাই ২০২১, ০৬:২২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যাণার্জী বলেছেন, তৃণমূল মাটির দল, মানুষের দল। নিজে থাকব, আর কেউ নয় এমন নয়। নতুনদের নিয়ে আসুন। তারা না এলে আগামী দিনে কে দল চালাবে?

তিনি বলেন, ২০২৪ সালের নির্বাচনেও ‘খেলা’ হবে বিজেপির সঙ্গে। আগামীতে বিজেপিবিরোধী জোট গঠন করে পশ্চিমবঙ্গে তৃণমূলের জয়যাত্রা অব্যাহত রাখবেন বলেও ঘোষণা দেন মমতা।

মমতা বলেন, বিজেপিতে গাদ্দারদেরই জন্ম হয়। ভালো মানুষের নয়। ওরা দেশটাকে জানে না, মানুষকে চেনে না। মুখ বন্ধ করে দেওয়ার রাজনীতি করে। এই রাজনীতি আমার মোটে পছন্দ নয়।

১৯৯৩ সালের ২১ জুলাই পুলিশের গুলিতে নিহত নিজ দলের নেতাকর্মীদের স্মরণ করতে প্রতিবছর ২১ জুলাই ‘শহীদ দিবস’ পালন করে তৃণমূল।

এই প্রথম শহীদ স্মরণকে জাতীয় পর্যায়ে নিয়ে গেল তারা। দিল্লি, উত্তরপ্রদেশ, গুজরাত, তামিলনাড়ু, আসাম ও ত্রিপুরায়ও মমতার ভাষণ শোনার ব্যবস্থা করা হয়েছে। ২০২৪ সালের লোকসভা নির্বাচনকে সামনে রেখেই তৃণমূলের এমন উদ্যোগ বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

জনসভায় অভিষেক ব্যাণার্জী জানান, আগামী দিনে সাংগঠনিক ভাবে আরও শক্তিশালী হবে তৃমমূল।

স্বৈরাচারী শক্তিকে হটিয়ে উজ্জ্বল ভারত গড়ে তুলতে একসঙ্গে হাত ধরে এগোতে হবে আমাদের। আমাদের ভয় দেখিয়ে লাভ নেই। আমরা মাথা নত করব না।

মনে রাখবেন, আমরা হারব না, আমরা ভয় পাব না, মাথা নত করব না। আমরা, করব, লড়ব, জিতব। এখনও অনেক কাজ বাকি রয়েছে। অনেক গাদ্দার আছে, যারা বড় বড় কথা বলছে। ফোন ট্যাপিংয়ের কথাও বলছে। এদের মানুষ রাজনৈতিক ভাবে বিদায় দেবেন বলে আমার বিশ্বাস।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন