যে কারণে একে-৪৭ হাতে নিয়েছে পাকিস্তানে কর্মরত চীনা নাগরিকরা
jugantor
যে কারণে একে-৪৭ হাতে নিয়েছে পাকিস্তানে কর্মরত চীনা নাগরিকরা

  যুগান্তর ডেস্ক  

২৩ জুলাই ২০২১, ১৯:০৯:৫৯  |  অনলাইন সংস্করণ

পাকিস্তানে কর্মরত চীনা নাগরিকদের সুরক্ষা দিতে আগ্নেয়াস্ত্রসহ নিরাপত্তারক্ষী মোতায়েন করেছে চীন। এমনকি চীন-পাকিস্তান অর্থনৈতিক করিডোরের সিপিইসি প্রকল্পে কর্মরত চীনা প্রকৌশলীরাও একে-৪৭ রাইফেল নিয়ে কাজে আসছেন বলে গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

কয়েকদিন আগে পাকিস্তানের উত্তরাঞ্চলের খাইবার পাখতুনওয়া প্রদেশে একটি বাসে শক্তিশালী বিস্ফোরণে চীনের ৯ প্রকৌশলী নিহতের জেরে খাইবার-পাখতুনখাওয়া প্রদেশে দাসু নদীর উপর বাঁধ নির্মাণের কাজ বন্ধ করেছিল চীন।

চীনের সিজিজিসি নামে এক প্রতিষ্ঠান ওই বাঁধ নির্মাণের দায়িত্বে ছিল। নিরাপত্তাহীনতার অভিযোগ তুলে পাকিস্তানের বাঁধের কাজ অসমাপ্ত রেখে পাকিস্তান ত্যাগ করেছিল প্রতিষ্ঠানটির সব কর্মী।

এই বাঁধ চীন-পাকিস্তান অর্থনৈতিক করিডোরের সিপিইসি প্রকল্পের অংশ। এই ঘটনা সিপিইসি প্রকল্পের অন্যান্য কাজগুলোর ওপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছিল।এবার পাকিস্তানে সিপিইসি প্রকল্পে কর্মরত চীনা নাগরিকদের সুরক্ষায় পাকিস্তানের উপর ভরসা না করে নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়েছে চীন।

এদিকে ওই বিস্ফোরণের ঘটনার পর পাকিস্তানকে কড়া বার্তা দিয়েছিল চীন। চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ঝাও লিজিয়ান চীনের নাগরিকদের সুরক্ষা নিশ্চিতে ইসলামাবাদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছিলেন। একই সঙ্গে এ ঘটনার দ্রুত স্বচ্ছ তদন্তেরও দাবি জানিয়েছিলেন তিনি।

অন্যদিকে এক বিবৃতিতে পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছিল, ঘটনার তদন্ত সহায়তা এবং সমন্বয়ের জন্য তারা চীনের দূতাবাসের সঙ্গে গভীর যোগাযোগ রক্ষা করছেন।

যে কারণে একে-৪৭ হাতে নিয়েছে পাকিস্তানে কর্মরত চীনা নাগরিকরা

 যুগান্তর ডেস্ক 
২৩ জুলাই ২০২১, ০৭:০৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

পাকিস্তানে কর্মরত চীনা নাগরিকদের সুরক্ষা দিতে আগ্নেয়াস্ত্রসহ নিরাপত্তারক্ষী মোতায়েন করেছে চীন। এমনকি চীন-পাকিস্তান অর্থনৈতিক করিডোরের সিপিইসি প্রকল্পে কর্মরত চীনা প্রকৌশলীরাও একে-৪৭ রাইফেল নিয়ে কাজে আসছেন বলে গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

কয়েকদিন আগে পাকিস্তানের উত্তরাঞ্চলের খাইবার পাখতুনওয়া প্রদেশে একটি বাসে শক্তিশালী বিস্ফোরণে চীনের ৯ প্রকৌশলী নিহতের জেরে খাইবার-পাখতুনখাওয়া প্রদেশে দাসু নদীর উপর বাঁধ নির্মাণের কাজ বন্ধ করেছিল চীন।

চীনের সিজিজিসি নামে এক প্রতিষ্ঠান ওই বাঁধ নির্মাণের দায়িত্বে ছিল। নিরাপত্তাহীনতার অভিযোগ তুলে পাকিস্তানের বাঁধের কাজ অসমাপ্ত রেখে পাকিস্তান ত্যাগ করেছিল প্রতিষ্ঠানটির সব কর্মী।

এই বাঁধ চীন-পাকিস্তান অর্থনৈতিক করিডোরের সিপিইসি প্রকল্পের অংশ। এই ঘটনা সিপিইসি প্রকল্পের অন্যান্য কাজগুলোর ওপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছিল।এবার পাকিস্তানে সিপিইসি প্রকল্পে কর্মরত চীনা নাগরিকদের সুরক্ষায় পাকিস্তানের উপর ভরসা না করে নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়েছে চীন।

এদিকে ওই বিস্ফোরণের ঘটনার পর পাকিস্তানকে কড়া বার্তা দিয়েছিল চীন। চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ঝাও লিজিয়ান চীনের নাগরিকদের সুরক্ষা নিশ্চিতে ইসলামাবাদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছিলেন। একই সঙ্গে এ ঘটনার দ্রুত স্বচ্ছ তদন্তেরও দাবি জানিয়েছিলেন তিনি।

অন্যদিকে এক বিবৃতিতে পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছিল, ঘটনার তদন্ত সহায়তা এবং সমন্বয়ের জন্য তারা চীনের দূতাবাসের সঙ্গে গভীর যোগাযোগ রক্ষা করছেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন