দক্ষিণ আফ্রিকায় তৈরি হবে ফাইজারের টিকা 
jugantor
দক্ষিণ আফ্রিকায় তৈরি হবে ফাইজারের টিকা 

  শওকত বিন আশরাফ, দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে  

২৪ জুলাই ২০২১, ০১:৩৭:৩২  |  অনলাইন সংস্করণ

বহুজাতিক ঔষধ প্রস্তুতকারী কোম্পানি ফাইজারের করোনা টিকা তৈরি হবে দক্ষিণ আফ্রিকার কেপটাউনে। দক্ষিণ আফ্রিকার বেসরকারি ঔষধ প্রস্তুতকারী কোম্পানি বায়োভাক ইনস্টিটিউটের সঙ্গে বুধবার এমন চুক্তি স্বাক্ষর করেছে বহুজাতিক ঔষধ প্রস্তুতকারী কোম্পানি ফাইজার।

আফ্রিকা মহাদেশের স্বল্পোন্নত দেশগুলোর করোনা টিকার চাহিদা মেটাতে ফাইজার এবং বায়োভাক যৌথভাবে এমন উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। এদিকে দুই কোম্পানির এমন মহৎ উদ্যেগকে স্বাগত জানিয়ে দেশটির রাষ্ট্রপতি সিরিল রামাপোসা বলেছেন, আফ্রিকান দেশগুলোর করোনা সুরক্ষার জন্য ফাইজার ও বায়োভাকের এমন উদ্যোগ সত্যিই প্রশংসনীয়। সরকার এ কোম্পানিকে টিকা উৎপাদনে সার্বিক সহযোগিতা করবে বলে জানান রাষ্ট্রপতি।

বায়োভাকের সিইও ডা. মরেনা মাকোনা গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, ফাইজার এবং বায়োভাক ঘোষণা করেছে যে, ফাইজারের করোনা টিকা কেপটাউনে বায়োভাক ইনস্টিটিউট কর্তৃক উৎপাদিত হবে। বায়োভাক দক্ষিণ আফ্রিকা সরকারের সহযোগিতায় টিকা উৎপাদন চালিয়ে যাবে। আজকের চুক্তিটি আমাদের আফ্রিকা মহাদেশে স্বাস্থ্য সুরক্ষা এবং টেকসই স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে উল্লেখযোগ্য অবদান রাখবে। বর্তমান বিশ্বে করোনা টিকার ঘাটতি মিটাতে ফাইজার এবং বায়োভাক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।

অপরদিকে ফাইজারের দক্ষিণ আফ্রিকা বায়োফার্মাসিউটিক্যালস ডিভিশনের সিইও ও কান্ট্রি ম্যানেজার ব্রেরিয়ান ডেনিয়াল বলেছেন, বায়োভাক এবং ফাইজারের মধ্যে অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে কেপটাউনে বায়োভাক প্ল্যান্টে ফাইজারের করোনা টিকা তৈরি হবে। কেপটাউনে উৎপাদিত হওয়া ফাইজারের টিকা আফ্রিকা মহাদেশসহ বিশ্বব্যাপী টিকার ঘাটতি কাটিয়ে উঠতে সহযোগিতা করবে এবং এটি আমাদের একটি যুগান্তকারী সিদ্ধান্ত। সামগ্রিকভাবে মানবতা রক্ষাসহ আফ্রিকানদের সুরক্ষায় এটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।

দক্ষিণ আফ্রিকায় তৈরি হবে ফাইজারের টিকা 

 শওকত বিন আশরাফ, দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে 
২৪ জুলাই ২০২১, ০১:৩৭ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বহুজাতিক ঔষধ প্রস্তুতকারী কোম্পানি ফাইজারের করোনা টিকা তৈরি হবে দক্ষিণ আফ্রিকার কেপটাউনে। দক্ষিণ আফ্রিকার বেসরকারি ঔষধ প্রস্তুতকারী কোম্পানি বায়োভাক ইনস্টিটিউটের সঙ্গে বুধবার এমন চুক্তি স্বাক্ষর করেছে বহুজাতিক ঔষধ প্রস্তুতকারী কোম্পানি ফাইজার।

আফ্রিকা মহাদেশের স্বল্পোন্নত দেশগুলোর করোনা টিকার চাহিদা মেটাতে ফাইজার এবং বায়োভাক যৌথভাবে এমন উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। এদিকে দুই কোম্পানির এমন মহৎ উদ্যেগকে স্বাগত জানিয়ে দেশটির রাষ্ট্রপতি সিরিল রামাপোসা বলেছেন, আফ্রিকান দেশগুলোর করোনা সুরক্ষার জন্য ফাইজার ও বায়োভাকের এমন উদ্যোগ সত্যিই প্রশংসনীয়। সরকার এ কোম্পানিকে টিকা উৎপাদনে সার্বিক সহযোগিতা করবে বলে জানান রাষ্ট্রপতি। 

বায়োভাকের  সিইও ডা. মরেনা মাকোনা গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, ফাইজার এবং বায়োভাক ঘোষণা করেছে যে, ফাইজারের করোনা টিকা কেপটাউনে বায়োভাক ইনস্টিটিউট কর্তৃক উৎপাদিত হবে। বায়োভাক দক্ষিণ আফ্রিকা সরকারের সহযোগিতায় টিকা উৎপাদন চালিয়ে যাবে। আজকের চুক্তিটি আমাদের আফ্রিকা মহাদেশে স্বাস্থ্য সুরক্ষা এবং টেকসই স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে উল্লেখযোগ্য অবদান রাখবে। বর্তমান বিশ্বে করোনা টিকার ঘাটতি মিটাতে ফাইজার এবং বায়োভাক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।
 
অপরদিকে ফাইজারের দক্ষিণ আফ্রিকা বায়োফার্মাসিউটিক্যালস ডিভিশনের সিইও ও কান্ট্রি ম্যানেজার ব্রেরিয়ান ডেনিয়াল বলেছেন, বায়োভাক এবং ফাইজারের মধ্যে অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে কেপটাউনে বায়োভাক প্ল্যান্টে ফাইজারের করোনা টিকা তৈরি হবে। কেপটাউনে উৎপাদিত হওয়া ফাইজারের টিকা আফ্রিকা মহাদেশসহ বিশ্বব্যাপী টিকার ঘাটতি কাটিয়ে উঠতে সহযোগিতা করবে এবং এটি আমাদের একটি যুগান্তকারী সিদ্ধান্ত। সামগ্রিকভাবে মানবতা রক্ষাসহ আফ্রিকানদের সুরক্ষায় এটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন