মৃত্যুর কিছুক্ষণ আগে টুইটারে যা লিখেছিলেন নারী চিকিৎসক (ভিডিও)
jugantor
মৃত্যুর কিছুক্ষণ আগে টুইটারে যা লিখেছিলেন নারী চিকিৎসক (ভিডিও)

  যুগান্তর ডেস্ক  

২৬ জুলাই ২০২১, ২৩:৩৭:৪৩  |  অনলাইন সংস্করণ

ঘুরতে ভীষণ পছন্দ করতেন আয়ুর্বেদের চিকিৎসক দীপা শর্মা। প্রকৃতির প্রতি তার ছিল নিবিড় টান। তবে সেই প্রকৃতিই বিরূপ হয়ে কেড়ে নিল তার জীবন।মারা যাওয়ার কয়েক মিনিট আগে টুইটারে ভারতের হিমাচল প্রদেশে নিজের বেড়াতে যাওয়ার বিষয়েই পোস্ট করেছিলেন তিনি।

মৃত্যুর কয়েক মিনিট আগে শেষ টুইটে দীপ লিখেছিলেন, ভারতের শেষ প্রান্তে দাঁড়িয়ে আছি যে পর্যন্ত সাধারণ নাগরিকরা যেতে পারে। এর ৪০ কিলোমিটার পরই তিব্বত সীমান্ত।

৩৪ বছর বয়সী এই চিকিৎসক ভারতের হিমাচল প্রদেশে রোববার ভূমিধসে নিহত ৯ পর্যটকের একজন।

জয়পুরের বাসিন্দা দীপা হিমাচলের কিন্নৌর জেলার নাগাস্তি ইন্দো-টিবেট বর্ডার পুলিশের (আইটিবিপি) চেক-পোস্টে দাঁড়িয়ে তোলা তার শেষ ছবিটি পোস্ট করেছিলেন স্থানীয় সময় দুপুর ১২টা ৫৯ মিনিটে। এর মাত্র ২৬ মিনিট পর দুপুর ১টা ২৫ মিনিটে বাতসেরি ব্রিজের ওপর দুর্ঘটনার কবলে পড়ে দীপাদের বহনকারী গাড়িটি।

ওই পোস্টের কিছুক্ষণ পরই দীপার ভাই টুইটারে আরেকটি পোস্ট দিয়ে দীপার মৃত্যুর বিষয়টি জানান। দীপার মৃত্যুর খবর নেটিজেনদের হতভম্ব করে দেয়। দীপার টুইটার ভর্তি ছিল তার সাম্প্রতিক হিমাচল ভ্রমণের ছবি। অনেকেই বিশ্বাস করতে পারছিলেন না তারুণ্যে ভরপুর ভ্রমণ পিপাসু মেয়েটি আর নেই।

গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ১২ জন যাত্রী নিয়ে হিমাচল প্রদেশের বাতসেরি ব্রিজ দিয়ে কিন্নৌরের দিকে যাচ্ছিল দীপাদের বহনকারী গাড়িটি। হঠাৎ পাহাড় থেকে ভূমিধসের কারণে বড় বড় পাথর ব্রিজের ওপর পড়তে শুরু করে। পাথরগুলো ব্রিজের ওপর থাকা গাড়িটিকে ধাক্কা দিলে এ হতাহতের ঘটনা ঘটে। পাথরের আঘাতে ব্রিজটি পুরোপুরি ভেঙে যায়।

এই দুর্ঘটনাকে ‘হৃদয় বিদারক’ হিসেবে অভিহিত করেছেন হিমাচল প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী জয়রাম ঠাকুর। হতাহতদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন তিনি।

এই ঘটনায় শোক প্রকাশ করে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি আহতদের দ্রুত আরোগ্য কামনা করেছেন।

মৃত্যুর কিছুক্ষণ আগে টুইটারে যা লিখেছিলেন নারী চিকিৎসক (ভিডিও)

 যুগান্তর ডেস্ক 
২৬ জুলাই ২০২১, ১১:৩৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ঘুরতে ভীষণ পছন্দ করতেন আয়ুর্বেদের চিকিৎসক দীপা শর্মা। প্রকৃতির প্রতি তার ছিল নিবিড় টান। তবে সেই প্রকৃতিই বিরূপ হয়ে কেড়ে নিল তার জীবন।মারা যাওয়ার কয়েক মিনিট আগে টুইটারে ভারতের হিমাচল প্রদেশে নিজের বেড়াতে যাওয়ার বিষয়েই পোস্ট করেছিলেন তিনি।

মৃত্যুর কয়েক মিনিট আগে শেষ টুইটে দীপ লিখেছিলেন, ভারতের শেষ প্রান্তে দাঁড়িয়ে আছি যে পর্যন্ত সাধারণ নাগরিকরা যেতে পারে। এর ৪০ কিলোমিটার পরই তিব্বত সীমান্ত।

৩৪ বছর বয়সী এই চিকিৎসক ভারতের হিমাচল প্রদেশে রোববার ভূমিধসে নিহত ৯ পর্যটকের একজন।

জয়পুরের বাসিন্দা দীপা হিমাচলের কিন্নৌর জেলার নাগাস্তি ইন্দো-টিবেট বর্ডার পুলিশের (আইটিবিপি) চেক-পোস্টে দাঁড়িয়ে তোলা তার শেষ ছবিটি পোস্ট করেছিলেন স্থানীয় সময় দুপুর ১২টা ৫৯ মিনিটে। এর মাত্র ২৬ মিনিট পর দুপুর ১টা ২৫ মিনিটে বাতসেরি ব্রিজের ওপর দুর্ঘটনার কবলে পড়ে দীপাদের বহনকারী গাড়িটি।

ওই পোস্টের কিছুক্ষণ পরই দীপার ভাই টুইটারে আরেকটি পোস্ট দিয়ে দীপার মৃত্যুর বিষয়টি জানান। দীপার মৃত্যুর খবর নেটিজেনদের হতভম্ব করে দেয়। দীপার টুইটার ভর্তি ছিল তার সাম্প্রতিক হিমাচল ভ্রমণের ছবি। অনেকেই বিশ্বাস করতে পারছিলেন না তারুণ্যে ভরপুর ভ্রমণ পিপাসু মেয়েটি আর নেই।

গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ১২ জন যাত্রী নিয়ে হিমাচল প্রদেশের বাতসেরি ব্রিজ দিয়ে কিন্নৌরের দিকে যাচ্ছিল দীপাদের বহনকারী গাড়িটি। হঠাৎ পাহাড় থেকে ভূমিধসের কারণে বড় বড় পাথর ব্রিজের ওপর পড়তে শুরু করে। পাথরগুলো ব্রিজের ওপর থাকা গাড়িটিকে ধাক্কা দিলে এ হতাহতের ঘটনা ঘটে। পাথরের আঘাতে ব্রিজটি পুরোপুরি ভেঙে যায়।

এই দুর্ঘটনাকে ‘হৃদয় বিদারক’ হিসেবে অভিহিত করেছেন হিমাচল প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী জয়রাম ঠাকুর। হতাহতদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন তিনি। 

এই ঘটনায় শোক প্রকাশ করে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি আহতদের দ্রুত আরোগ্য কামনা করেছেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন