এবার ইরাকে ‘যুদ্ধ সমাপ্ত’ ঘোষণা বাইডেনের
jugantor
এবার ইরাকে ‘যুদ্ধ সমাপ্ত’ ঘোষণা বাইডেনের

  অনলাইন ডেস্ক  

২৭ জুলাই ২০২১, ০৮:৫৮:৫৫  |  অনলাইন সংস্করণ

চলতি বছরের শেষ নাগাদ ইরাকে ‘যুদ্ধের দায়িত্ব সমাপ্ত’ করার ঘোষণা দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

ওয়াশিংটন সফররত ইরাকি প্রধানমন্ত্রী মুস্তফা আল-কাজেমির সঙ্গে সাক্ষাতে সোমবার হোয়াইট হাউজে এ ঘোষণা দিয়েছে তিনি। খবর বিবিসির।

বাইডেন উগ্র জঙ্গিগোষ্ঠী আইএসের বিরুদ্ধে কথিত যুদ্ধের সমাপ্তি ঘোষণা করে বলেন, ২০২১ সাল শেষে মার্কিন সেনারা ইরাকি সেনাবাহিনীকে প্রশিক্ষণ ও সহযোগিতা করার দায়িত্ব পালন করবে, কিন্তু তারা সরাসরি কোনো যুদ্ধে অংশ নেবে না।

তবে আফগানিস্তানের পর ইরাক থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহার করা হবে কিনা- সে সম্পর্কে মুখ খোলেননি বাইডেন।

সাক্ষাতের পর দুই নেতা এক যৌথ বিবৃতিতে ঘোষণা করেন, ২০২১ সালের ৩১ ডিসেম্বরের পর ইরাকে আর কোনো মার্কিন সেনা যুদ্ধের ভূমিকা পালন করবে না।

ইরাকি প্রধানমন্ত্রী কাজেমি রোববার রাতে আমেরিকা পৌঁছান।এর আগে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের আহ্বান জানিয়ে ইরাকি পার্লামেন্টে আইন পাস হয়।

২০২০ সালের জানুয়ারি মাসে ইরাকের মাটিতে ইরানের ইসলামি বিপ্লবী গার্ড বাহিনী বা আইআরজিসি’র কুদস ফোর্সের সাবেক কমান্ডার লেফটেন্যান্ট জেনারেল কাসেম সোলাইমানি ও ইরাকের স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন হাশদ আশ-শাবির সেকেন্ড ইন কমান্ড আবু মাহাদি আল-মুহান্দিসকে হত্যার পর পার্লামেন্ট ওই আইন পাস করেছিল।

এছাড়া, ওই ঘটনার পর ইরাক থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের ব্যাপারে গণদাবিও দিন দিন জোরালো হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী কাজেমি আমেরিকা সফরে যাওয়ার আগে বাগদাদে বলেছিলেন, উগ্র সন্ত্রাসীগোষ্ঠী আইএসের বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য আর মার্কিন সেনাদের তার দেশে প্রয়োজন নেই।

তবে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের ব্যাপারে আনুষ্ঠানিক সময়সীমা ঘোষণা হবে চলতি সপ্তাহে মার্কিন কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠকের পর।

এবার ইরাকে ‘যুদ্ধ সমাপ্ত’ ঘোষণা বাইডেনের

 অনলাইন ডেস্ক 
২৭ জুলাই ২০২১, ০৮:৫৮ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

চলতি বছরের শেষ নাগাদ ইরাকে ‘যুদ্ধের দায়িত্ব সমাপ্ত’ করার ঘোষণা দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

ওয়াশিংটন সফররত ইরাকি প্রধানমন্ত্রী মুস্তফা আল-কাজেমির সঙ্গে সাক্ষাতে সোমবার হোয়াইট হাউজে এ ঘোষণা দিয়েছে তিনি। খবর বিবিসির।

বাইডেন উগ্র জঙ্গিগোষ্ঠী আইএসের বিরুদ্ধে কথিত যুদ্ধের সমাপ্তি ঘোষণা করে বলেন, ২০২১ সাল শেষে মার্কিন সেনারা ইরাকি সেনাবাহিনীকে প্রশিক্ষণ ও সহযোগিতা করার দায়িত্ব পালন করবে, কিন্তু তারা সরাসরি কোনো যুদ্ধে অংশ নেবে না।

তবে আফগানিস্তানের পর ইরাক থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহার করা হবে কিনা- সে সম্পর্কে মুখ খোলেননি বাইডেন।

সাক্ষাতের পর দুই নেতা এক যৌথ বিবৃতিতে ঘোষণা করেন, ২০২১ সালের ৩১ ডিসেম্বরের পর ইরাকে আর কোনো মার্কিন সেনা যুদ্ধের ভূমিকা পালন করবে না।

ইরাকি প্রধানমন্ত্রী কাজেমি রোববার রাতে আমেরিকা পৌঁছান।এর আগে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের আহ্বান জানিয়ে ইরাকি পার্লামেন্টে আইন পাস হয়।  

২০২০ সালের জানুয়ারি মাসে ইরাকের মাটিতে ইরানের ইসলামি বিপ্লবী গার্ড বাহিনী বা আইআরজিসি’র কুদস ফোর্সের সাবেক কমান্ডার লেফটেন্যান্ট জেনারেল কাসেম সোলাইমানি ও ইরাকের স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন হাশদ আশ-শাবির সেকেন্ড ইন কমান্ড আবু মাহাদি আল-মুহান্দিসকে হত্যার পর পার্লামেন্ট ওই আইন পাস করেছিল।

এছাড়া, ওই ঘটনার পর ইরাক থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের ব্যাপারে গণদাবিও দিন দিন জোরালো হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী কাজেমি আমেরিকা সফরে যাওয়ার আগে বাগদাদে বলেছিলেন, উগ্র সন্ত্রাসীগোষ্ঠী আইএসের বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য আর মার্কিন সেনাদের তার দেশে প্রয়োজন নেই।

তবে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের ব্যাপারে আনুষ্ঠানিক সময়সীমা ঘোষণা হবে চলতি সপ্তাহে মার্কিন কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠকের পর।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ইরাকে মার্কিন-ইরান ছায়াযুদ্ধ