ইসরাইলি কারাগারে আমরণ অনশনে ফিলিস্তিনি ফুটবলার
jugantor
ইসরাইলি কারাগারে আমরণ অনশনে ফিলিস্তিনি ফুটবলার

  যুগান্তর ডেস্ক  

২৭ জুলাই ২০২১, ১৬:৫৮:০৮  |  অনলাইন সংস্করণ

ইসরাইলি কারাগারে আমরণ অনশনে ফিলিস্তিনি ফুটবলার

বিনা কারণে ও বিনা উস্কানিতে ইসরাইলি বাহিনীর হাতে আটক ফিলিস্তিনি ফুটবল খেলোয়াড় গুয়েভারা আল-নামুরা অনশন চালিয়ে যাচ্ছেন। প্রায় দু’সপ্তাহ আগে অনশন শুরু করেন তিনি।

ওয়াফা নিউজের সূত্রে ইরানের প্রেসটিভি জানিয়েছে, ১০ মাস আগে ফিলিস্তিনি এ ফুটবল খেলোয়াড়কে ইসরাইলি বাহিনী আটক করে। আটকের তিন মাস পর গুয়েভারার অন্তঃস্বত্তা স্ত্রী একটি কন্যা সন্তান প্রসব করেন।

চলতি মাসে গুয়েভারার অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ ডিটেনশনের মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা থাকলেও ইসরাইল কর্তৃপক্ষ তার অবৈধ আটকাদেশের মেয়াদ বাড়িয়েছে।

এর প্রতিবাদে কারাগারে অনশন শুরু করেন গুয়েভারা। এই প্রতিবাদের মাধ্যমে মুক্তি পেয়ে সাত মাসের সন্তান জুলিয়াকে দেখতে পাবেন বলে আশা করছেন তিনি।

ওয়াফা নিউজ জানিয়েছে, বিনা বিচারে আটকে রাখার প্রতিবাদে অন্তত ১৪ ফিলিস্তিনি অনশন শুরু করেছেন। তারা সবাই বিনা বিচারে ইসরাইলের কারাগারে আটক আছেন।

দখলদার ইসরাইলি সেনাদের হাতে গণহারে বন্দি ফিলিস্তিনিদের বেশিরভাগই কোনো কারণ ছাড়াই বন্দি হয়ে আছেন।

তাদের ব্যাপারে কোনো সাজানো বা মিথ্যা অভিযোগও দায়ের করতে না পেরে ইসরাইল এইসব বন্দিকে প্রশাসনিক কারণে বন্দি বা প্রশাসনিক বন্দি বলে থাকে।

ইসরাইলি কারাগারগুলোতে ৪০ জন নারী ও আড়াইশ শিশুসহ প্রায় সাড়ে ৫ হাজার ফিলিস্তিনি বন্দি রয়েছেন বর্তমানে। এদের মধ্যে প্রায় ৫২০ জন কথিত প্রশাসনিক বন্দি তথা বিনা বিচারে বন্দি।

ইসরাইলি কারাগারে তাদের মানবেতর অবস্থায় রাখা হয়েছে। বন্দিদের অনেককেই কয়েকবার করে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়ে রেখেছে দখলদার ইসরাইল। ৫৪০ জন ফিলিস্তিনি বন্দি এক বা একাধিক যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের শিকার।

১৯৬৭ সাল থেকে এ পর্যন্ত ২২৫ ফিলিস্তিনি ইসরাইলি কারাগারে নির্যাতনের শিকার হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন।

ইসরাইলি কারাগারে আমরণ অনশনে ফিলিস্তিনি ফুটবলার

 যুগান্তর ডেস্ক 
২৭ জুলাই ২০২১, ০৪:৫৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ইসরাইলি কারাগারে আমরণ অনশনে ফিলিস্তিনি ফুটবলার
ছবি: ওয়াফা নিউজ

বিনা কারণে ও বিনা উস্কানিতে ইসরাইলি বাহিনীর হাতে আটক ফিলিস্তিনি ফুটবল খেলোয়াড় গুয়েভারা আল-নামুরা অনশন চালিয়ে যাচ্ছেন। প্রায় দু’সপ্তাহ আগে অনশন শুরু করেন তিনি।

ওয়াফা নিউজের সূত্রে ইরানের প্রেসটিভি জানিয়েছে, ১০ মাস আগে ফিলিস্তিনি এ ফুটবল খেলোয়াড়কে ইসরাইলি বাহিনী আটক করে। আটকের তিন মাস পর গুয়েভারার অন্তঃস্বত্তা স্ত্রী একটি কন্যা সন্তান প্রসব করেন। 

চলতি মাসে গুয়েভারার অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ ডিটেনশনের মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা থাকলেও ইসরাইল কর্তৃপক্ষ তার অবৈধ আটকাদেশের মেয়াদ বাড়িয়েছে। 

এর প্রতিবাদে কারাগারে অনশন শুরু করেন গুয়েভারা। এই প্রতিবাদের মাধ্যমে মুক্তি পেয়ে সাত মাসের সন্তান জুলিয়াকে দেখতে পাবেন বলে আশা করছেন তিনি।

ওয়াফা নিউজ জানিয়েছে, বিনা বিচারে আটকে রাখার প্রতিবাদে অন্তত ১৪ ফিলিস্তিনি অনশন শুরু করেছেন। তারা সবাই বিনা বিচারে ইসরাইলের কারাগারে আটক আছেন। 

দখলদার ইসরাইলি সেনাদের হাতে গণহারে বন্দি ফিলিস্তিনিদের বেশিরভাগই কোনো কারণ ছাড়াই বন্দি হয়ে আছেন।

তাদের ব্যাপারে কোনো সাজানো বা মিথ্যা অভিযোগও দায়ের করতে না পেরে ইসরাইল এইসব বন্দিকে প্রশাসনিক কারণে বন্দি বা প্রশাসনিক বন্দি বলে থাকে।

ইসরাইলি কারাগারগুলোতে ৪০ জন নারী ও আড়াইশ শিশুসহ প্রায় সাড়ে ৫ হাজার ফিলিস্তিনি বন্দি রয়েছেন বর্তমানে। এদের মধ্যে প্রায় ৫২০ জন কথিত প্রশাসনিক বন্দি তথা বিনা বিচারে বন্দি।

ইসরাইলি কারাগারে তাদের মানবেতর অবস্থায় রাখা হয়েছে। বন্দিদের অনেককেই কয়েকবার করে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়ে রেখেছে দখলদার ইসরাইল। ৫৪০ জন ফিলিস্তিনি বন্দি এক বা একাধিক যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের শিকার।

১৯৬৭ সাল থেকে এ পর্যন্ত ২২৫ ফিলিস্তিনি ইসরাইলি কারাগারে নির্যাতনের শিকার হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন