টোকিও অলিম্পিকে ২৪১ জন করোনায় আক্রান্ত
jugantor
টোকিও অলিম্পিকে ২৪১ জন করোনায় আক্রান্ত

  অনলাইন ডেস্ক  

৩১ জুলাই ২০২১, ১৪:০৯:০৩  |  অনলাইন সংস্করণ

টোকিও অলিম্পিকে শনিবার পর্যন্ত ২৪১ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানিয়েছে জাপান।

গত ২৪ ঘণ্টায় অলিম্পিকের সঙ্গে জড়িত আরও ২১ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। খবর আনাদোলুর।

তবে, অলিম্পিকের আয়োজক কমিটি নিশ্চিত করেছে, আক্রান্তদের মধ্যে কোনো খেলোয়াড় নেই।

আক্রান্ত কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হয়েছে বলেও জানায় কমিটি।

২০২০ সালে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলে করোনার কারণে এক বছর পিছানো হয় টোকিও অলিম্পিক।

কিস্তু তার পরও করোনার হাত থেকে নিস্তার পাওয়া যায়নি। করোনার ডেলটা ভ্যারিয়েন্টের বিস্তারে চিন্তায় আছে অলিম্পিক কমিটে।

এদিকে, জাপানে করোনার ডেলটা ভ্যারিয়েন্ট দ্রুত ছড়িয়ে পড়ায় নতুন করে আরও চারটি প্রদেশে জরুরি অবস্থা জারি করেছে।

শুক্রবার রাতে নতুন করে চিবা, সাইতামা, কানাগাওয়া ও ওসাকা প্রদেশে জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে।

টোকিও ও অকিনাওয়া প্রদেশে আগে থেকেই ৩১ আগস্ট পর্যন্ত জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে।

শুক্রবার জাপানে নতুন করে ১০ হাজার মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।এদের মধ্যে টোকিও অলিম্পিকে অংশগ্রহণকারী ক্রীড়াবিদ ছাড়াও কর্মকর্তা-কর্মচারীরাও আছেন।

জাপানের প্রধানমন্ত্রী ইয়োশিহিদে সুগা রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম এনএইচকেতে দেয়া এক ভাষণে বলেছেন, করোনার সবচেয়ে সংক্রমক ভ্যারিয়েন্ট জাপানে দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে। এ জন্য সবাইকে যথাযথ ভাবে করোনার বিধিনিষেধ মেনে চলার পরামর্শ দেন সবাইকে।

তিনি বলেন, বর্তমানে টোকিওর মেট্রোপলিটন এবং জাপানের পশ্চিমাঞ্চলীয় কানসাই এলাকায় করোনার সংক্রমণ সবচেয়ে বেশি।

জাপানে এ পর্যন্ত ৯ লাখ ২ হাজার মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন এবং প্রাণঘাতী এ ভাইরাসে মারা গেছেন ১৫ হাজার ১৭৩ জন।

টোকিও অলিম্পিকে ২৪১ জন করোনায় আক্রান্ত

 অনলাইন ডেস্ক 
৩১ জুলাই ২০২১, ০২:০৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

টোকিও অলিম্পিকে শনিবার পর্যন্ত ২৪১ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানিয়েছে জাপান।

গত ২৪ ঘণ্টায় অলিম্পিকের সঙ্গে জড়িত আরও ২১ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। খবর আনাদোলুর।

তবে, অলিম্পিকের আয়োজক কমিটি নিশ্চিত করেছে, আক্রান্তদের মধ্যে কোনো খেলোয়াড় নেই।

আক্রান্ত কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হয়েছে বলেও জানায় কমিটি।
   
২০২০ সালে  অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলে করোনার কারণে এক বছর পিছানো হয় টোকিও অলিম্পিক।

কিস্তু তার পরও করোনার হাত থেকে নিস্তার পাওয়া যায়নি। করোনার ডেলটা ভ্যারিয়েন্টের বিস্তারে চিন্তায় আছে অলিম্পিক কমিটে।

এদিকে, জাপানে করোনার ডেলটা ভ্যারিয়েন্ট দ্রুত ছড়িয়ে পড়ায় নতুন করে আরও চারটি প্রদেশে জরুরি অবস্থা জারি করেছে।

শুক্রবার রাতে নতুন করে চিবা, সাইতামা, কানাগাওয়া ও ওসাকা প্রদেশে জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে।

টোকিও ও অকিনাওয়া প্রদেশে আগে থেকেই ৩১ আগস্ট পর্যন্ত জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে।

শুক্রবার জাপানে নতুন করে ১০ হাজার মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।এদের মধ্যে টোকিও অলিম্পিকে অংশগ্রহণকারী ক্রীড়াবিদ ছাড়াও কর্মকর্তা-কর্মচারীরাও আছেন।

জাপানের প্রধানমন্ত্রী ইয়োশিহিদে সুগা রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম এনএইচকেতে দেয়া এক ভাষণে বলেছেন, করোনার সবচেয়ে সংক্রমক ভ্যারিয়েন্ট জাপানে দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে। এ জন্য সবাইকে যথাযথ ভাবে করোনার বিধিনিষেধ মেনে চলার পরামর্শ দেন সবাইকে।

তিনি বলেন, বর্তমানে টোকিওর মেট্রোপলিটন এবং জাপানের পশ্চিমাঞ্চলীয় কানসাই এলাকায় করোনার সংক্রমণ সবচেয়ে বেশি।
 
জাপানে এ পর্যন্ত ৯ লাখ ২ হাজার মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন এবং প্রাণঘাতী এ ভাইরাসে মারা গেছেন ১৫ হাজার ১৭৩ জন।

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : অলিম্পিক ২০২০