স্কুলে কুরআন শিক্ষা বাধ্যতামূলক করল পাঞ্জাব সরকার
jugantor
স্কুলে কুরআন শিক্ষা বাধ্যতামূলক করল পাঞ্জাব সরকার

  যুগান্তর ডেস্ক  

৩১ জুলাই ২০২১, ১৪:২৩:২৪  |  অনলাইন সংস্করণ

পাঞ্জাবের সব স্কুলে কোরআন শিক্ষা বাধ্যতামূলক

প্রথম থেকে দ্বাদশ শ্রেণী পর্যন্ত প্রদেশের সব স্কুলে কুরআন শিক্ষাকে বাধ্যতামূলক করেছে পাকিস্তানের সর্বাধিক জনবহুল প্রদেশ পাঞ্জাব।

প্রাদেশিক সরকারের পক্ষ থেকে জারি করা এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয় বলে শুক্রবার জিয়ো ‍নিউজের খবরে বলা হয়েছে।

ওই বিবৃতিতে বলা হয়েছে, প্রথম থেকে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত পাঠ্যসূচিতে কুরআনের নাজেরা তেলাওয়াত বাধ্যতামূলক থাকবে। ষষ্ঠ থেকে দ্বাদশ শ্রেণী পর্যন্ত কুরআনের তর্জমার বিষয়টি গুরুত্ব পাবে।

এর আগে ২০১৭ সালে পাঞ্জাব সরকারের পক্ষ থেকে স্কুলগুলোতে প্রথম থেকে পঞ্চম শ্রেণী পর্যন্ত কুরআনের নাজেরা বাধ্যতামূলক করা হয়েছিল।

গত বছর দেশের সব বিশ্ববিদ্যালয় পবিত্র কুরআনের অনুবাদ শিক্ষাদানের প্রস্তাব অনুমোদন দিয়েছে পাকিস্তানের জাতীয় সংসদ।

দেশটির সংসদ বিষয়কমন্ত্রী আলী মোহাম্মদ খানের উত্থাপিত প্রস্তাবে বলা হয়, কুরআনের উর্দূ অনুবাদ পাঠদানের মাধ্যমে আমাদের প্রজন্মের সামনে জ্ঞানের এক নতুন দিগন্ত উন্মোচিত হবে। এ জন্য যেসব প্রদেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে অনুবাদসহ কুরআন পড়ানো হয় না সেসব বিশ্ববিদ্যালয়ে অর্থসহ কোরআন পড়ানো উচিত।

পরে সংসদ বিষয়কমন্ত্রীর উত্থাপিত প্রস্তাবটি সংসদে সর্বসম্মতভাবে পাস হয়।

জিয়ো নিউজ জানিয়েছে, পাঞ্জাবের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে ডিগ্রি অর্জনের জন্য অনুবাদসহ কুরআন অধ্যায়ন একটি অপরিহার্য শর্ত।

স্কুলে কুরআন শিক্ষা বাধ্যতামূলক করল পাঞ্জাব সরকার

 যুগান্তর ডেস্ক 
৩১ জুলাই ২০২১, ০২:২৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
পাঞ্জাবের সব স্কুলে কোরআন শিক্ষা বাধ্যতামূলক
ছবি: জিয়ো নিউজ

প্রথম থেকে দ্বাদশ শ্রেণী পর্যন্ত প্রদেশের সব স্কুলে কুরআন শিক্ষাকে বাধ্যতামূলক করেছে পাকিস্তানের সর্বাধিক জনবহুল প্রদেশ পাঞ্জাব।  

প্রাদেশিক সরকারের পক্ষ থেকে জারি করা এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয় বলে শুক্রবার জিয়ো ‍নিউজের খবরে বলা হয়েছে।

ওই বিবৃতিতে বলা হয়েছে, প্রথম থেকে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত পাঠ্যসূচিতে কুরআনের নাজেরা তেলাওয়াত বাধ্যতামূলক থাকবে। ষষ্ঠ থেকে দ্বাদশ শ্রেণী পর্যন্ত কুরআনের তর্জমার বিষয়টি গুরুত্ব পাবে।

এর আগে ২০১৭ সালে পাঞ্জাব সরকারের পক্ষ থেকে স্কুলগুলোতে প্রথম থেকে পঞ্চম শ্রেণী পর্যন্ত কুরআনের নাজেরা বাধ্যতামূলক করা হয়েছিল।

গত বছর দেশের সব বিশ্ববিদ্যালয় পবিত্র কুরআনের অনুবাদ শিক্ষাদানের প্রস্তাব অনুমোদন দিয়েছে পাকিস্তানের জাতীয় সংসদ।  

দেশটির সংসদ বিষয়কমন্ত্রী আলী মোহাম্মদ খানের উত্থাপিত প্রস্তাবে বলা হয়, কুরআনের উর্দূ অনুবাদ পাঠদানের মাধ্যমে আমাদের প্রজন্মের সামনে জ্ঞানের এক নতুন দিগন্ত উন্মোচিত হবে।  এ জন্য যেসব প্রদেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে অনুবাদসহ কুরআন পড়ানো হয় না সেসব বিশ্ববিদ্যালয়ে অর্থসহ কোরআন পড়ানো উচিত।

পরে সংসদ বিষয়কমন্ত্রীর উত্থাপিত প্রস্তাবটি সংসদে সর্বসম্মতভাবে পাস হয়।

জিয়ো নিউজ জানিয়েছে, পাঞ্জাবের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে ডিগ্রি অর্জনের জন্য অনুবাদসহ কুরআন অধ্যায়ন একটি অপরিহার্য শর্ত।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন