এবার ওমান সাগরে ৪ জাহাজ ছিনতাই
jugantor
এবার ওমান সাগরে ৪ জাহাজ ছিনতাই

  অনলাইন ডেস্ক  

০৪ আগস্ট ২০২১, ১১:১৫:৪৯  |  অনলাইন সংস্করণ

সংযুক্ত আরব আমিরাত উপকূলের কাছে ওমান সাগরে অন্তত চারটি জাহাজ ছিনতাই হয়েছে বলে জাহাজগুলো থেকে সতর্কতামূলক বার্তা পাঠানো হয়েছে।

কুইন এমাথা, গোল্ডেন ব্রিলিয়ান্ট, জাগ পুফা ও অ্যাবিস নামের ওই চার জাহাজ তাদের অটোমেটিক আইডিন্টিফিকেশন সিস্টেম বা এআইএস ট্র্যাকারের সাহায্যে মঙ্গলবার ঘোষণা করে জাহাজগুলো তাদের নিয়ন্ত্রণে নেই। খবর সিএনবিসি ও বিবিসির।

সাগরে চলাচলকারী জাহাজগুলোর তথ্য তাৎক্ষণিকভাবে সরবরাহকারী ওয়েবসাইট মেরিন ট্রাফিকডটকম এ খবর জানিয়েছে।

সমুদ্রে চলাচলকারী কোনো জাহাজ যখন ‘নট আন্ডার কমান্ড’ পরিভাষা ব্যবহার করে সতর্কবার্তা প্রকাশ করে তখন ধরে নেওয়া হয় অজানা কোনো কারণে জাহাজটি নিজের নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলেছে। ওই চারটি জাহাজ মঙ্গলবার এ পরিভাষা ব্যবহার করে সতর্কবার্তা পাঠিয়েছে।

আরব আমিরাতের ফুজাইরা বন্দর থেকে ৬১ নটিক্যাল মাইল (১১৩ কিলোমিটার) পূর্বে ওমান সাগরের এ ঘটনার কারণ তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি।

প্রাথমিকভাবে ব্রিটিশ মেরিটাইম ট্রেড অপারেশন্স বা ইউকেএমটিও এ ঘটনাকে ‘নন-পাইরেসি ইনসিডেন্ট’ বা ‘অ-জলদস্যুসুলভ ঘটনা’ বলে উল্লেখ করেছে।

সংস্থাটি বলেছে— ওই এলাকা দিয়ে চলাচলকারী জাহাজগুলো যেন ‘সর্বোচ্চ সতর্কতামূলক’ ব্যবস্থা গ্রহণ করে। তবে পরে ব্রিটিশ মেরিটাইম এজেন্সি এ ঘটনাকে ‘সম্ভাব্য ছিনতাই’ বলে ঘোষণা করে।

ওমান সাগরে গত সপ্তাহে ইসরাইলি মালিকানাধীন একটি তেল ট্যাংকারে সন্দেহজনক হামলায় দুই ক্রু নিহত হওয়ার এক সপ্তাহেরও কম সময়ের মধ্যে একই সাগরে এ ঘটনা ঘটল।

ইসরাইল, ব্রিটেন, আমেরিকা ও কানাডা একযোগে ওই হামলার জন্য ইরানকে দায়ী করলেও তেহরান কঠোর ভাষায় ওই অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করে একে ‘শিশুসুলভ’ আচরণ বলে উল্লেখ করেছে।

এ ছাড়া ব্রিটেন ও আমেরিকা ইরানের বিরুদ্ধে সামরিক ব্যবস্থা নিতে ইসরাইলকে সবুজ সংকেত দিয়েছে বলে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে যে খবর বেরিয়েছে তার প্রতিক্রিয়ায় তেহরান বলেছে, ইরানের বিরুদ্ধে যে কোনো ‘হঠকারিতার তাৎক্ষণিক কঠোর জবাব’ দেওয়া হবে।

এবার ওমান সাগরে ৪ জাহাজ ছিনতাই

 অনলাইন ডেস্ক 
০৪ আগস্ট ২০২১, ১১:১৫ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

সংযুক্ত আরব আমিরাত উপকূলের কাছে ওমান সাগরে অন্তত চারটি জাহাজ ছিনতাই হয়েছে বলে জাহাজগুলো থেকে সতর্কতামূলক বার্তা পাঠানো হয়েছে।

কুইন এমাথা, গোল্ডেন ব্রিলিয়ান্ট, জাগ পুফা ও অ্যাবিস নামের ওই চার জাহাজ তাদের অটোমেটিক আইডিন্টিফিকেশন সিস্টেম বা এআইএস ট্র্যাকারের সাহায্যে মঙ্গলবার ঘোষণা করে জাহাজগুলো তাদের নিয়ন্ত্রণে নেই। খবর সিএনবিসি ও বিবিসির।

সাগরে চলাচলকারী জাহাজগুলোর তথ্য তাৎক্ষণিকভাবে সরবরাহকারী ওয়েবসাইট মেরিন ট্রাফিকডটকম এ খবর জানিয়েছে।

সমুদ্রে চলাচলকারী কোনো জাহাজ যখন ‘নট আন্ডার কমান্ড’ পরিভাষা ব্যবহার করে সতর্কবার্তা প্রকাশ করে তখন ধরে নেওয়া হয় অজানা কোনো কারণে জাহাজটি নিজের নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলেছে। ওই চারটি জাহাজ মঙ্গলবার এ পরিভাষা ব্যবহার করে সতর্কবার্তা পাঠিয়েছে।

আরব আমিরাতের ফুজাইরা বন্দর থেকে ৬১ নটিক্যাল মাইল (১১৩ কিলোমিটার) পূর্বে ওমান সাগরের এ ঘটনার কারণ তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি।

প্রাথমিকভাবে ব্রিটিশ মেরিটাইম ট্রেড অপারেশন্স বা ইউকেএমটিও এ ঘটনাকে ‘নন-পাইরেসি ইনসিডেন্ট’ বা ‘অ-জলদস্যুসুলভ ঘটনা’ বলে উল্লেখ করেছে।

সংস্থাটি বলেছে— ওই এলাকা দিয়ে চলাচলকারী জাহাজগুলো যেন ‘সর্বোচ্চ সতর্কতামূলক’ ব্যবস্থা গ্রহণ করে। তবে পরে ব্রিটিশ মেরিটাইম এজেন্সি এ ঘটনাকে ‘সম্ভাব্য ছিনতাই’ বলে ঘোষণা করে।

ওমান সাগরে গত সপ্তাহে ইসরাইলি মালিকানাধীন একটি তেল ট্যাংকারে সন্দেহজনক হামলায় দুই ক্রু নিহত হওয়ার এক সপ্তাহেরও কম সময়ের মধ্যে একই সাগরে এ ঘটনা ঘটল।

ইসরাইল, ব্রিটেন, আমেরিকা ও কানাডা একযোগে ওই হামলার জন্য ইরানকে দায়ী করলেও তেহরান কঠোর ভাষায় ওই অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করে একে ‘শিশুসুলভ’ আচরণ বলে উল্লেখ করেছে।

এ ছাড়া ব্রিটেন ও আমেরিকা ইরানের বিরুদ্ধে সামরিক ব্যবস্থা নিতে ইসরাইলকে সবুজ সংকেত দিয়েছে বলে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে যে খবর বেরিয়েছে তার প্রতিক্রিয়ায় তেহরান বলেছে, ইরানের বিরুদ্ধে যে কোনো ‘হঠকারিতার তাৎক্ষণিক কঠোর জবাব’ দেওয়া হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন