রাশিয়ার কড়া সমালোচনা করে যা বললেন ইইউ কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট
jugantor
রাশিয়ার কড়া সমালোচনা করে যা বললেন ইইউ কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট

  অনলাইন ডেস্ক  

২৪ আগস্ট ২০২১, ১৩:৩৯:৫৪  |  অনলাইন সংস্করণ

রাশিয়ার কড়া সমালোচনা করেছেন ইউরোপীয় ইউনিয়ন কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট চার্লস মিশেল। তিনি বলেন, রাশিয়ার ক্রিমিয়া দখলকে কখনও বৈধতা দেবে না ইউরোপীয় ইউনিয়ন।

স্থানীয় সময় সোমবার প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক ক্রিমিয়া প্ল্যাটফরমের সম্মেলনের শুরুতে এবং ইউক্রেনের ৩০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর প্রাক্কালে মিশেল এ কথা বলেন। খবর আনাদোলুর।

আন্তর্জাতিক আইনের লঙ্ঘনের কারণে এ সময় রাশিয়ার তীব্র সমালোচনা করেন ইউরোপীয় ইউনিয়ন কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট। একই সঙ্গে তিনি ইউক্রেনের অখণ্ডতার প্রতি নিজের সমর্থন পুনর্ব্যক্ত করেন।

ইউক্রেন সরকারের আয়োজনে কিয়েভে আয়োজিত এ সম্মেলনে মিশেল বলেন, আমরা বলতে চাই— ইউক্রেন কখনও একা নয় এবং ক্রিমিয়া ইউক্রেনের।

এর পর তিনি বলেন, আমি এখানে ইউরোপীয় ইউনিয়নের অনড় অবস্থানের কথা ফের উল্লেখ করতেই এসেছি। আমরা কখনই ক্রিমিয়ার ওপর রাশিয়ার অবৈধ দখলদারিত্ব মেনে নেব না।

২০১৪ সালে রাশিয়া ক্রিমিয়া দখল করে নেয়। এর পর থেকে ক্রিমিয়া ইস্যুতে রাশিয়ার সঙ্গে ইউরোপীয় ইউনিয়নের টানাপোড়েন চলছে।

রাশিয়ার কড়া সমালোচনা করে যা বললেন ইইউ কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট

 অনলাইন ডেস্ক 
২৪ আগস্ট ২০২১, ০১:৩৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

রাশিয়ার কড়া সমালোচনা করেছেন ইউরোপীয় ইউনিয়ন কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট চার্লস মিশেল। তিনি বলেন, রাশিয়ার ক্রিমিয়া দখলকে কখনও বৈধতা দেবে না ইউরোপীয় ইউনিয়ন।

স্থানীয় সময় সোমবার প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক ক্রিমিয়া প্ল্যাটফরমের সম্মেলনের শুরুতে এবং ইউক্রেনের ৩০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর প্রাক্কালে মিশেল এ কথা বলেন। খবর আনাদোলুর।

আন্তর্জাতিক আইনের লঙ্ঘনের কারণে এ সময় রাশিয়ার তীব্র সমালোচনা করেন ইউরোপীয় ইউনিয়ন কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট। একই সঙ্গে তিনি ইউক্রেনের অখণ্ডতার প্রতি নিজের সমর্থন পুনর্ব্যক্ত করেন।

ইউক্রেন সরকারের আয়োজনে কিয়েভে আয়োজিত এ সম্মেলনে মিশেল বলেন, আমরা বলতে চাই— ইউক্রেন কখনও একা নয় এবং ক্রিমিয়া ইউক্রেনের।

এর পর তিনি বলেন, আমি এখানে ইউরোপীয় ইউনিয়নের অনড় অবস্থানের কথা ফের উল্লেখ করতেই এসেছি। আমরা কখনই ক্রিমিয়ার ওপর রাশিয়ার অবৈধ দখলদারিত্ব মেনে নেব না। 

২০১৪ সালে রাশিয়া ক্রিমিয়া দখল করে নেয়। এর পর থেকে ক্রিমিয়া ইস্যুতে রাশিয়ার সঙ্গে ইউরোপীয় ইউনিয়নের টানাপোড়েন চলছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন