লাদাখে সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ১১ হাজার ৫৬২ ফুট উচ্চতায় সিনেমা হল
jugantor
লাদাখে সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ১১ হাজার ৫৬২ ফুট উচ্চতায় সিনেমা হল

  অনলাইন ডেস্ক  

৩০ আগস্ট ২০২১, ১৫:১২:৪০  |  অনলাইন সংস্করণ

বিশ্বের সবচেয়ে বড় স্থানে সিনেমা হল নির্মিত হয়েছে ভারতের লাদাখে। চীন সীমান্তে সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ১১ হাজার ৫৬২ ফুট উচ্চতায় লাদাখের লেহর পলডন ‘পিকচার টাইম’ নামে এ সিনেমা হলটি গত ২৪ আগস্ট আনুষ্ঠানিকভাবে চালু করা হয়।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বলিউড অভিনেতা পঙ্কজ ত্রিপাঠি। এ ছাড়া ছিলেন লাদাখ বুড্ডিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট থুপস্টান চেওয়াং। বিশ্বের উচ্চতম এ সিনেমা হলের প্রথম শোতে দেখানো হয় চাংপা নোমাডসের শর্ট ফিল্ম ‘শিকল’।

একই দিন সন্ধ্যায় দেখানো হয় সদ্য মুক্তি পাওয়া অক্ষয় কুমারের আলোচিত সিনেমা ‘বেল বটম’। ১২০ আসনবিশিষ্ট সম্পূর্ণ শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত এ ডিজিটাল সিনেমা হল তৈরি করতে খবর হয়েছে ৬৫ হাজার মার্কিন ডলার।

সিনেমা হলটির মূল উদ্যোক্তা সুশীল জানান, দুর্গম পাহাড়ি এলাকায় সিনেমাকে পৌঁছে দেওয়ার উদ্দেশ্যেই এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এই এলাকায় আরও চারটি সিনেমা হল চালু করবেন বলেও জানান তিনি।

সুশীল বলেন, ‘সিনেমা হলটিতে আধুনিক সব সুযোগ-সুবিধা রাখা হয়েছে। মাইনাস ২৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় বসেও এখানে সিনেমা দেখা যাবে। টিকিটের মূল্য অন্যান্য শহরের সিনেমা হলের মতোই, মাত্র ৭০ রুপি। যাতে পর্যটকদের পাশাপাশি স্থানীয় মানুষের সিনেমা দেখার প্রতি আকর্ষণ বাড়ে।’

প্রসঙ্গত প্রতি বছর সারা বিশ্ব থেকে বহু মানুষ ভিড় জমান লাদাখে। নতুন এ প্রেক্ষাগৃহ পর্যটকদের আরও বেশি আকর্ষণ করবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। বিশ্বের উচ্চতম সিনেমা হলে বসে সিনেমা দেখার আনন্দটা নিশ্চয়ই পর্যটকদের কাছে স্মরণীয় হয়ে থাকবে।

প্রতি বছর ভারতে এক হাজারেরও বেশি ছবি নির্মিত হয়, এর এক পঞ্চমাংশই হিন্দিতে।

লাদাখে সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ১১ হাজার ৫৬২ ফুট উচ্চতায় সিনেমা হল

 অনলাইন ডেস্ক 
৩০ আগস্ট ২০২১, ০৩:১২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বিশ্বের সবচেয়ে বড় স্থানে সিনেমা হল নির্মিত হয়েছে ভারতের লাদাখে। চীন সীমান্তে সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ১১ হাজার ৫৬২ ফুট উচ্চতায় লাদাখের লেহর পলডন ‘পিকচার টাইম’ নামে এ সিনেমা হলটি গত ২৪ আগস্ট আনুষ্ঠানিকভাবে চালু করা হয়।
 
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বলিউড অভিনেতা পঙ্কজ ত্রিপাঠি। এ ছাড়া ছিলেন লাদাখ বুড্ডিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট থুপস্টান চেওয়াং। বিশ্বের উচ্চতম এ সিনেমা হলের প্রথম শোতে দেখানো হয় চাংপা নোমাডসের শর্ট ফিল্ম ‘শিকল’।

একই দিন সন্ধ্যায় দেখানো হয় সদ্য মুক্তি পাওয়া অক্ষয় কুমারের আলোচিত সিনেমা ‘বেল বটম’। ১২০ আসনবিশিষ্ট সম্পূর্ণ শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত এ ডিজিটাল সিনেমা হল তৈরি করতে খবর হয়েছে ৬৫ হাজার মার্কিন ডলার।

সিনেমা হলটির মূল উদ্যোক্তা সুশীল জানান, দুর্গম পাহাড়ি এলাকায় সিনেমাকে পৌঁছে দেওয়ার উদ্দেশ্যেই এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এই এলাকায় আরও চারটি সিনেমা হল চালু করবেন বলেও জানান তিনি।

সুশীল বলেন, ‘সিনেমা হলটিতে আধুনিক সব সুযোগ-সুবিধা রাখা হয়েছে। মাইনাস ২৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় বসেও এখানে সিনেমা দেখা যাবে। টিকিটের মূল্য অন্যান্য শহরের সিনেমা হলের মতোই, মাত্র ৭০ রুপি। যাতে পর্যটকদের পাশাপাশি স্থানীয় মানুষের সিনেমা দেখার প্রতি আকর্ষণ বাড়ে।’

প্রসঙ্গত প্রতি বছর সারা বিশ্ব থেকে বহু মানুষ ভিড় জমান লাদাখে। নতুন এ প্রেক্ষাগৃহ পর্যটকদের আরও বেশি আকর্ষণ করবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। বিশ্বের উচ্চতম সিনেমা হলে বসে সিনেমা দেখার আনন্দটা নিশ্চয়ই পর্যটকদের কাছে স্মরণীয় হয়ে থাকবে।

প্রতি বছর ভারতে এক হাজারেরও বেশি ছবি নির্মিত হয়, এর এক পঞ্চমাংশই হিন্দিতে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : কাশ্মীর সংকট