জন্মাষ্ঠমীর দিনে বিজেপি শিবিরে বড় দুঃসংবাদ!
jugantor
জন্মাষ্ঠমীর দিনে বিজেপি শিবিরে বড় দুঃসংবাদ!

  অনলাইন ডেস্ক  

৩০ আগস্ট ২০২১, ১৬:৩৩:০৮  |  অনলাইন সংস্করণ

বিষ্ণুপুরের বিধায়ক তন্ময় ঘোষ। তৃণমূল ভবনে এসে শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসুর থেকে তৃণমূল কংগ্রেসের পতাকা হাতে তুলে নেন।

ভারতের পশ্চিমবঙ্গে একুশের বিধানসভা নির্বাচনের পর থেকেই বিজেপি শিবিরে ভাঙন শুরু হয়েছিল। এর রেশ ধরে সোমবার জন্মাষ্ঠমীর দিনে আরও বড়সড় ভাঙনের ঘটনা ঘটেছে গেরুয়া শিবিরে।

এবার বিজেপি থেকে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দিয়েছেন বিষ্ণুপুরের বিধায়ক তন্ময় ঘোষ। যার ফলে বিজেপির বিধায়ক সংখ্যাও এখন কমে গেল। খবর হিন্দুস্তান টাইমসের।

খবরে বলা হয়, সোমবার জন্মাষ্ঠমীর দিন বিজেপি ত্যাগ করলেন বিষ্ণুপুরের বিধায়ক তন্ময় ঘোষ। তৃণমূল ভবনে এসে শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসুর থেকে তৃণমূল কংগ্রেসের পতাকা হাতে তুলে নেন।

হিন্দুস্তান টাইমস জানায়,এটা বিজেপির কাছে অবশ্যই বড় সেটব্যাক বলে মনে করা হচ্ছে। কারণ তাদের বিধায়ক সংখ্যা আরও কমে গেল। একুশের বিধানসভা নির্বাচনে ২০০ আসন নিয়ে বাংলায় সরকার গড়ার হুঙ্কার দিয়েছিল বিজেপি। সেখানে দেখা গিয়েছে তারা ১০০ আসন অতিক্রম করতে পারেননি। তারপর থেকে সাংগঠনিকভাবে সর্বত্র ভাঙন ধরতে শুরু করে। এবার বিধায়ক সংখ্যায়ও ভাঙন ধরল।

প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, একুশের নির্বাচনের ফলাফলে দেখা যায়, ডলব ইঞ্জিন সরকারের স্বপ্ন বিভোর হননি বাংলার মানুষ। তবে বরং বাংলার মেয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপর ভরসা রাখেন রাজ্যবাসী। নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে তৃতীয়বারের জন্য ক্ষমতায় আসে তৃণমূল কংগ্রেস। বিধানসভা ৭৭ আসন পায় বিজেপি। এরপর বিধায়ক পদ ছাড়েন দু’‌জন। পদত্যাগ করেন নিশীথ প্রামাণিক এবং জগন্নাথ সরকার। সংসদ সদস্য পদেই বহাল থাকেন তারা। সুতরাং অঙ্ক দাঁড়ায় ৭৫–এ। তারপর মুকুল রায় ছেড়ে দেওয়ায় তা ৭৪–এ নেমে যায়। এবার তন্ময় ঘোষ ছেড়ে দেওয়ায় সংখ্যাটা নেমে দাঁড়াল ৭৩–এ।

হিন্দুস্তান টাইমসেরখবরে আরওবলা হয়, পুজোর পর বিজেপি আরও ভাঙনের আভাস পাওয়া গেছে।

জন্মাষ্ঠমীর দিনে বিজেপি শিবিরে বড় দুঃসংবাদ!

 অনলাইন ডেস্ক 
৩০ আগস্ট ২০২১, ০৪:৩৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
বিষ্ণুপুরের বিধায়ক তন্ময় ঘোষ। তৃণমূল ভবনে এসে শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসুর থেকে তৃণমূল কংগ্রেসের পতাকা হাতে তুলে নেন।
বিষ্ণুপুরের বিধায়ক তন্ময় ঘোষ তৃণমূল ভবনে এসে শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসুর থেকে তৃণমূল কংগ্রেসের পতাকা হাতে তুলে নেন। ছবি: হিন্দুস্তান টাইমস

ভারতের পশ্চিমবঙ্গে একুশের বিধানসভা নির্বাচনের পর থেকেই বিজেপি শিবিরে ভাঙন শুরু হয়েছিল। এর রেশ ধরে সোমবার জন্মাষ্ঠমীর দিনে আরও বড়সড় ভাঙনের ঘটনা ঘটেছে গেরুয়া শিবিরে। 

এবার বিজেপি থেকে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দিয়েছেন বিষ্ণুপুরের বিধায়ক তন্ময় ঘোষ। যার ফলে বিজেপির বিধায়ক সংখ্যাও এখন কমে গেল। খবর হিন্দুস্তান টাইমসের।

খবরে বলা হয়, সোমবার জন্মাষ্ঠমীর দিন বিজেপি ত্যাগ করলেন বিষ্ণুপুরের বিধায়ক তন্ময় ঘোষ। তৃণমূল ভবনে এসে শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসুর থেকে তৃণমূল কংগ্রেসের পতাকা হাতে তুলে নেন।

হিন্দুস্তান টাইমস জানায়, এটা বিজেপির কাছে অবশ্যই বড় সেটব্যাক বলে মনে করা হচ্ছে। কারণ তাদের বিধায়ক সংখ্যা আরও কমে গেল। একুশের বিধানসভা নির্বাচনে ২০০ আসন নিয়ে বাংলায় সরকার গড়ার হুঙ্কার দিয়েছিল বিজেপি। সেখানে দেখা গিয়েছে তারা ১০০ আসন অতিক্রম করতে পারেননি। তারপর থেকে সাংগঠনিকভাবে সর্বত্র ভাঙন ধরতে শুরু করে। এবার বিধায়ক সংখ্যায়ও ভাঙন ধরল।

প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, একুশের নির্বাচনের ফলাফলে দেখা যায়, ডলব ইঞ্জিন সরকারের স্বপ্ন বিভোর হননি বাংলার মানুষ। তবে বরং বাংলার মেয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপর ভরসা রাখেন রাজ্যবাসী। নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে তৃতীয়বারের জন্য ক্ষমতায় আসে তৃণমূল কংগ্রেস। বিধানসভা ৭৭ আসন পায় বিজেপি। এরপর বিধায়ক পদ ছাড়েন দু’‌জন। পদত্যাগ করেন নিশীথ প্রামাণিক এবং জগন্নাথ সরকার। সংসদ সদস্য পদেই বহাল থাকেন তারা। সুতরাং অঙ্ক দাঁড়ায় ৭৫–এ। তারপর মুকুল রায় ছেড়ে দেওয়ায় তা ৭৪–এ নেমে যায়। এবার তন্ময় ঘোষ ছেড়ে দেওয়ায় সংখ্যাটা নেমে দাঁড়াল ৭৩–এ। 

হিন্দুস্তান টাইমসের খবরে আরও বলা হয়, পুজোর পর বিজেপি আরও ভাঙনের আভাস পাওয়া গেছে। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : পশ্চিমবঙ্গ নির্বাচন ২০২১