মমতার বিরুদ্ধে বিজেপির প্রার্থী কে এই সুবোধ?
jugantor
মমতার বিরুদ্ধে বিজেপির প্রার্থী কে এই সুবোধ?

  অনলাইন ডেস্ক  

০৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৮:৫৯:৪৪  |  অনলাইন সংস্করণ

বিজেপি নেতা তথাগত রায়। ফাইল ছবি

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রীমমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে উপনির্বাচনেবিজেপি প্রার্থী কে?‌ এই প্রশ্ন এখন রাজ্য–রাজনীতিরঘুরপাক খাচ্ছে। ভবানীপুর বিধানসভা কেন্দ্রে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় উপনির্বাচনে প্রার্থী হয়েছেন। সুতরাং সমস্ত ফোকাস এখন সেখানেই।

এ নিয়ে বিশেষ প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে হিন্দুস্তান টাইমস।

প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, মমতার বিরুদ্ধেবিজেপি ভবানীপুরে প্রার্থী করার লোক পাচ্ছে না বলে চাউর হয়ে গিয়েছে। এই পরিস্থিতিতে কটাক্ষ করেটুইট করলেন বিজেপির প্রবীণ নেতা তথাগত রায়। যিনি বিভিন্ন সময় বিতর্কিত টুইট করে নানা সময় আলোচনা-সমালোচনার শিকার হয়েছিলেন।

মঙ্গলবার টুইটে তথাগত রায় লেখেন, ‘‌পশ্চিমবঙ্গ বিজেপির উচিত ভবানীপুর উপনির্বাচনে সুবোধকে প্রার্থী করা।’‌ এই টুইটের পর প্রশ্ন ওঠে, কে এই সুবোধ? কার কথা বলছেন তথাগত রায়?‌ তবে সেই উত্তরও টুইটেই তিনি প্রকাশ্যে এনেছেন।

ওইটুইটবার্তায় তথাগত রায় লেখেন, ‘‌ওই যে, বিজেপি কার্যালয়ে ফুটফরমাশ খাটে, চপ–সিঙাড়া এনে দেয়! চপই তো পশ্চিমবঙ্গের ভবিষ্যৎ!’‌

এভাবেই তিনি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে খোঁচা দেন তিনি।

আবার বিজেপি নেতাদেরও তিনি ছেড়ে কথা বলেননি। এই সুবোধের কথা বলে দলেরও অস্বস্তি বাড়ান তথাগত রায়। কারণ রাজ্য বিজেপি নেতারা এখন কাকে প্রার্থী করবেন বুঝতে পারছেন না। কারণ ভবানীপুর মমতার দুর্ঘ। সেখানে তিনি জিতবেন একপ্রকার নিশ্চিত বলেই মনে করেন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা। সেখানে সুবোধকে দাঁড় করালে বিজেপির প্রার্থীও দেওয়া হল আবার হারলে সম্মানও যাওয়ার ব্যাপার নেই।

বিজেপি সূত্রের খবর, ইতিমধ্যেই ভবানীপুরে প্রার্থী নিয়ে ফোনে একপ্রস্থ আলোচনা করেছেন রাজ্য বিজেপির নেতারা। ওই আলোচনায় চারজনের নাম উঠে এসেছে। তারা হলেন—দীনেশ ত্রিবেদী, তথাগত রায়, রুদ্রনীল ঘোষ এবং অনির্বাণ গঙ্গোপাধ্যায়।

হিন্দুস্তান টাইমসের খবরে বলা হয়, একুশের নির্বাচনে ভবানীপুরে বিজেপির প্রার্থী হয়েছিলেন রুদ্রনীল ঘোষ। তবে শোচনীয় পরাজয় হয় তাঁর। অনির্বাণ গঙ্গোপাধ্যায় ছিলেন বোলপুরে বিজেপি প্রার্থী। তিনিও নির্বাচনে হেরেছেন। তৃণমূল কংগ্রেসের রাজ্যসভার সাংসদ পদ থেকে ইস্তফা দিয়ে বিজেপিতে যোগ দেন দীনেশ ত্রিবেদী। তাকেই বিজেপি ময়দানে নামাতে পারে বলে জোর খবর। এমনকি একুশের নির্বাচনে প্রার্থী হতে চেয়েছিলেন তথাগত রায়। তবে তাঁকে টিকিট দেওয়া হয়নি। তাই তথাগতর মতো পুরনো বিজেপি নেতাকে প্রার্থী করার কথা ভাবছে গেরুয়া শিবির। এমন সময় এই টুইট অস্বস্তি বাড়িয়ে দিল বঙ্গ–বিজেপি নেতৃত্বের।

মমতার বিরুদ্ধে বিজেপির প্রার্থী কে এই সুবোধ?

 অনলাইন ডেস্ক 
০৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৬:৫৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
বিজেপি নেতা তথাগত রায়। ফাইল ছবি
বিজেপি নেতা তথাগত রায়। ফাইল ছবি

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে উপনির্বাচনে বিজেপি প্রার্থী কে?‌ এই প্রশ্ন এখন রাজ্য–রাজনীতির ঘুরপাক খাচ্ছে। ভবানীপুর বিধানসভা কেন্দ্রে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় উপনির্বাচনে প্রার্থী হয়েছেন। সুতরাং সমস্ত ফোকাস এখন সেখানেই।

এ নিয়ে বিশেষ প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে হিন্দুস্তান টাইমস।

প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, মমতার বিরুদ্ধে বিজেপি ভবানীপুরে প্রার্থী করার লোক পাচ্ছে না বলে চাউর হয়ে গিয়েছে। এই পরিস্থিতিতে কটাক্ষ করে টুইট করলেন বিজেপির প্রবীণ নেতা তথাগত রায়। যিনি বিভিন্ন সময় বিতর্কিত টুইট করে নানা সময় আলোচনা-সমালোচনার শিকার হয়েছিলেন।  
 
মঙ্গলবার টুইটে তথাগত রায় লেখেন, ‘‌পশ্চিমবঙ্গ বিজেপির উচিত ভবানীপুর উপনির্বাচনে সুবোধকে প্রার্থী করা।’‌ এই টুইটের পর প্রশ্ন ওঠে, কে এই সুবোধ? কার কথা বলছেন তথাগত রায়?‌ তবে সেই উত্তরও টুইটেই তিনি প্রকাশ্যে এনেছেন।

ওই টুইটবার্তায় তথাগত রায় লেখেন, ‘‌ওই যে, বিজেপি কার্যালয়ে ফুটফরমাশ খাটে, চপ–সিঙাড়া এনে দেয়! চপই তো পশ্চিমবঙ্গের ভবিষ্যৎ!’‌ 

এভাবেই তিনি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে খোঁচা দেন তিনি।

আবার বিজেপি নেতাদেরও তিনি ছেড়ে কথা বলেননি। এই সুবোধের কথা বলে দলেরও অস্বস্তি বাড়ান তথাগত রায়। কারণ রাজ্য বিজেপি নেতারা এখন কাকে প্রার্থী করবেন বুঝতে পারছেন না। কারণ ভবানীপুর মমতার দুর্ঘ। সেখানে তিনি জিতবেন একপ্রকার নিশ্চিত বলেই মনে করেন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা। সেখানে সুবোধকে দাঁড় করালে বিজেপির প্রার্থীও দেওয়া হল আবার হারলে সম্মানও যাওয়ার ব্যাপার নেই।

বিজেপি সূত্রের খবর, ইতিমধ্যেই ভবানীপুরে প্রার্থী নিয়ে ফোনে একপ্রস্থ আলোচনা করেছেন রাজ্য বিজেপির নেতারা। ওই আলোচনায় চারজনের নাম উঠে এসেছে। তারা হলেন—দীনেশ ত্রিবেদী, তথাগত রায়, রুদ্রনীল ঘোষ এবং অনির্বাণ গঙ্গোপাধ্যায়। 

হিন্দুস্তান টাইমসের খবরে বলা হয়, একুশের নির্বাচনে ভবানীপুরে বিজেপির প্রার্থী হয়েছিলেন রুদ্রনীল ঘোষ। তবে শোচনীয় পরাজয় হয় তাঁর। অনির্বাণ গঙ্গোপাধ্যায় ছিলেন বোলপুরে বিজেপি প্রার্থী। তিনিও নির্বাচনে হেরেছেন। তৃণমূল কংগ্রেসের রাজ্যসভার সাংসদ পদ থেকে ইস্তফা দিয়ে বিজেপিতে যোগ দেন দীনেশ ত্রিবেদী। তাকেই বিজেপি ময়দানে নামাতে পারে বলে জোর খবর। এমনকি একুশের নির্বাচনে প্রার্থী হতে চেয়েছিলেন তথাগত রায়। তবে তাঁকে টিকিট দেওয়া হয়নি। তাই তথাগতর মতো পুরনো বিজেপি নেতাকে প্রার্থী করার কথা ভাবছে গেরুয়া শিবির। এমন সময় এই টুইট অস্বস্তি বাড়িয়ে দিল বঙ্গ–বিজেপি নেতৃত্বের।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : পশ্চিমবঙ্গ নির্বাচন ২০২১