বিজেপির ৬১ জন বিধায়কের নিরাপত্তা প্রত্যাহার, নেপথ্যে কারণ কী?
jugantor
বিজেপির ৬১ জন বিধায়কের নিরাপত্তা প্রত্যাহার, নেপথ্যে কারণ কী?

  অনলাইন ডেস্ক  

০৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৬:০৭:২০  |  অনলাইন সংস্করণ

পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের ৬১ জন বিজেপি বিধায়কের নিরাপত্তা প্রত্যাহার করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার।

এবার ভারতের পশ্চিমবঙ্গের বিজেপির ৬১ বিধায়কের কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা বাতিল করেছে নরেন্দ্র মোদি সরকার। এই নিয়ে রাজ্য সরকারের কাছে একটি চিঠি পাঠিয়ে দিয়েছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়। সেখানে উল্লেখ করা হয়েছে, এবার রাজ্য সরকারই যেন এই বিধায়কদের নিরাপত্তার ব্যবস্থা করে।

ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের সূত্রের বরাত দিয়ে বৃহস্পতিবার এ নিয়ে বিশেষ প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে হিন্দুস্তান টাইমস।

খবরে বলা হয়, একসঙ্গে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের ৬১ জন বিজেপি বিধায়কের নিরাপত্তা প্রত্যাহার করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার। এখন থেকে বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারীর মতো প্রথম সারির ১০ জন বিধায়ক কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা পাবেন। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয় সূত্রে এই খবর মিলেছে। এখন পর্যন্ত পশ্চিমবঙ্গে বিজেপির ৭১ জন বিধায়ক আছেন। একে একে কমছে বিজেপির বিধায়ক। কারণ, বিজেপির বিধায়করা একে একে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দিচ্ছেন। এই পরিস্থিতিতে ৬১ জন কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা পাবেন না। শুভেন্দু অধিকারীর মতো প্রথমসারির ১০ জন বিধায়ক কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা পাবেন।


একুশের নির্বাচন শেষ হওয়ার পরই কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয় বঙ্গ বিজেপির সব বিধায়ককে কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছিল। শুভেন্দু অধিকারীসহ কয়েকজন আগে থেকেই কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা পেতেন। নির্বাচনের পর মোট ৬৬ জন জয়ী বিধায়ককে কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা দেওয়া হয়। কিন্তু আসন্ন পাঁচ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচন। তাই সেখানে বেশি নিরাপত্তারক্ষীর প্রয়োজন। সুতরাং রাজ্যের বিজেপি নেতাদের কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা প্রত্যাহার করা হয়েছে।

হিন্দুস্তান টাইমসের খবরে আরও বলা হয়, তৃণমূল কংগ্রেস থেকে বহু নেতা নির্বাচনের আগে যোগ দিয়েছিলেন বিজেপিতে। প্রাণহানির আশঙ্কার কথা বলে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয় থেকে কেন্দ্রীয় নিরাপত্তাও আদায় করেছিলেন। কিন্তু এখন পরিস্থিতি পাল্টে গিয়েছে। কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা পাওয়া অনেক বিজেপি নেতাই নিজের কেন্দ্রে হেরেছেন। তাই এই ধরনের বহু নেতার কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা সরে গিয়েছে। এখন জয়ী বিধায়কদেরও নিরাপত্তা বাতিল হল।

তবে এখন জয়ী বিধায়কদের নিরাপত্তা দেওয়ার দায়িত্ব থাকবে রাজ্য সরকারের উপর। নিয়ম অনুযায়ী, কোনও বিধায়ককে কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা দেওয়া বা প্রত্যাহার করার সময় রাজ্যকে জানাতে হয় কেন্দ্রীয় সরকারকে। সেটা জানানো হয়েছে বলেই খবর। সূত্রের খবর, নিয়ম অনুসরণ করেই ৬১ জন বিধায়কের নিরাপত্তা প্রত্যাহার করার সিদ্ধান্ত নবান্নকে জানিয়ে দিয়েছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়। এখন বল রাজ্য সরকারের কোর্টে।

বিজেপির ৬১ জন বিধায়কের নিরাপত্তা প্রত্যাহার, নেপথ্যে কারণ কী?

 অনলাইন ডেস্ক 
০৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:০৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের ৬১ জন বিজেপি বিধায়কের নিরাপত্তা প্রত্যাহার করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার।
পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের ৬১ জন বিজেপি বিধায়কের নিরাপত্তা প্রত্যাহার করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার। ছবি: হিন্দুস্তান টাইমস

এবার ভারতের পশ্চিমবঙ্গের বিজেপির ৬১ বিধায়কের কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা বাতিল করেছে নরেন্দ্র মোদি সরকার। এই নিয়ে রাজ্য সরকারের কাছে একটি চিঠি পাঠিয়ে দিয়েছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়। সেখানে উল্লেখ করা হয়েছে, এবার রাজ্য সরকারই যেন এই বিধায়কদের নিরাপত্তার ব্যবস্থা করে।

ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের সূত্রের বরাত দিয়ে বৃহস্পতিবার এ নিয়ে বিশেষ প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে হিন্দুস্তান টাইমস।

খবরে বলা হয়, একসঙ্গে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের ৬১ জন বিজেপি বিধায়কের নিরাপত্তা প্রত্যাহার করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার। এখন থেকে বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারীর মতো প্রথম সারির ১০ জন বিধায়ক কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা পাবেন। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয় সূত্রে এই খবর মিলেছে। এখন পর্যন্ত পশ্চিমবঙ্গে বিজেপির ৭১ জন বিধায়ক আছেন। একে একে কমছে বিজেপির বিধায়ক। কারণ, বিজেপির বিধায়করা একে একে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দিচ্ছেন। এই পরিস্থিতিতে ৬১ জন কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা পাবেন না। শুভেন্দু অধিকারীর মতো প্রথমসারির ১০ জন বিধায়ক কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা পাবেন। 


একুশের নির্বাচন শেষ হওয়ার পরই কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয় বঙ্গ বিজেপির সব বিধায়ককে কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছিল। শুভেন্দু অধিকারীসহ কয়েকজন আগে থেকেই কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা পেতেন। নির্বাচনের পর মোট ৬৬ জন জয়ী বিধায়ককে কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা দেওয়া হয়। কিন্তু আসন্ন পাঁচ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচন। তাই সেখানে বেশি নিরাপত্তারক্ষীর প্রয়োজন। সুতরাং রাজ্যের বিজেপি নেতাদের কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা প্রত্যাহার করা হয়েছে। 

হিন্দুস্তান টাইমসের খবরে আরও বলা হয়, তৃণমূল কংগ্রেস থেকে বহু নেতা নির্বাচনের আগে যোগ দিয়েছিলেন বিজেপিতে। প্রাণহানির আশঙ্কার কথা বলে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয় থেকে কেন্দ্রীয় নিরাপত্তাও আদায় করেছিলেন। কিন্তু এখন পরিস্থিতি পাল্টে গিয়েছে। কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা পাওয়া অনেক বিজেপি নেতাই নিজের কেন্দ্রে হেরেছেন। তাই এই ধরনের বহু নেতার কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা সরে গিয়েছে। এখন জয়ী বিধায়কদেরও নিরাপত্তা বাতিল হল।

তবে এখন জয়ী বিধায়কদের নিরাপত্তা দেওয়ার দায়িত্ব থাকবে রাজ্য সরকারের উপর। নিয়ম অনুযায়ী, কোনও বিধায়ককে কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা দেওয়া বা প্রত্যাহার করার সময় রাজ্যকে জানাতে হয় কেন্দ্রীয় সরকারকে। সেটা জানানো হয়েছে বলেই খবর। সূত্রের খবর, নিয়ম অনুসরণ করেই ৬১ জন বিধায়কের নিরাপত্তা প্রত্যাহার করার সিদ্ধান্ত নবান্নকে জানিয়ে দিয়েছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়। এখন বল রাজ্য সরকারের কোর্টে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : পশ্চিমবঙ্গ নির্বাচন ২০২১