রাশিয়াকে সতর্ক করল আজারবাইজান
jugantor
রাশিয়াকে সতর্ক করল আজারবাইজান

  অনলাইন ডেস্ক  

১৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:১১:১১  |  অনলাইন সংস্করণ

আজারবাইজানে যেন কোনো বিদেশি যান অনুপ্রবেশের অনুমতি না দেওয়া হয়, এ ব্যাপারে রাশিয়াকে সতর্ক করেছে দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়।

আজারবাইজান ও আর্মেনিয়ার সীমান্তে বিতর্কিত কারাবাখ অঞ্চলে বর্তমানে শান্তিরক্ষার দায়িত্ব পালন করছে রাশিয়ার সেনাবাহিনী। খবর আনাদোলুর।

২০২০ সালে কারাবাখ অঞ্চলের দখল নিয়ে আজারবাইজান ও আর্মেনিয়ার মধ্যে ৪৪ দিনের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের পর পিছু হটে আর্মেনিয়া।

কারাবাখ অঞ্চলের বেশ কিছু এলাকা আজারবাইজান দখল করে নেয়। এরপর রাশিয়র মধ্যস্থতায় ২০২০ সালের ১০ নভেম্বার যুদ্ধবিরতিতে সম্মত হয় প্রতিবেশী দেশ দুটি।

তখন থেকে নগোরনো-কারাবাখ অঞ্চলে শান্তিরক্ষার দায়িত্ব পালন করে আসছে রাশিয়া। কিন্তু এর মধ্যে একাধিকবার সংঘর্ষে জড়িয়ে দুই দেশ।

এ বছরের জানুয়ারি থেকে রাশিয়ার সঙ্গে যুদ্ধবিরতি পর্যবেক্ষণে যৌথভাবে অংশ নেয় তুরস্ক।

আজারবাইজানে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় চিঠিতে উল্লেখ করেন, তাদের সীমানায় কোনো বিদেশি গাড়ি ঢুকার অনুমোতি দেয়ার অর্থ তাদের স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করা। তারা তা কোনোভাবেই হতে দেবে না বলেও চিঠিতে উল্লেখ করেন।

রাশিয়াকে সতর্ক করল আজারবাইজান

 অনলাইন ডেস্ক 
১৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:১১ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

আজারবাইজানে যেন কোনো বিদেশি যান অনুপ্রবেশের অনুমতি না দেওয়া হয়, এ ব্যাপারে রাশিয়াকে সতর্ক করেছে দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়।
 
আজারবাইজান ও আর্মেনিয়ার সীমান্তে বিতর্কিত কারাবাখ অঞ্চলে বর্তমানে শান্তিরক্ষার দায়িত্ব পালন করছে রাশিয়ার সেনাবাহিনী।  খবর আনাদোলুর।

২০২০ সালে কারাবাখ অঞ্চলের দখল নিয়ে আজারবাইজান ও আর্মেনিয়ার মধ্যে ৪৪ দিনের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের পর পিছু হটে আর্মেনিয়া।

কারাবাখ অঞ্চলের বেশ কিছু এলাকা আজারবাইজান দখল করে নেয়। এরপর রাশিয়র মধ্যস্থতায় ২০২০ সালের ১০ নভেম্বার যুদ্ধবিরতিতে সম্মত হয় প্রতিবেশী দেশ দুটি।

তখন থেকে নগোরনো-কারাবাখ অঞ্চলে শান্তিরক্ষার দায়িত্ব পালন করে আসছে রাশিয়া। কিন্তু এর মধ্যে একাধিকবার সংঘর্ষে জড়িয়ে দুই দেশ।

এ বছরের জানুয়ারি থেকে রাশিয়ার সঙ্গে যুদ্ধবিরতি পর্যবেক্ষণে যৌথভাবে অংশ নেয় তুরস্ক।

আজারবাইজানে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় চিঠিতে উল্লেখ করেন, তাদের সীমানায় কোনো বিদেশি গাড়ি ঢুকার অনুমোতি দেয়ার অর্থ তাদের স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করা। তারা তা কোনোভাবেই হতে দেবে না বলেও চিঠিতে উল্লেখ করেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : আর্মেনিয়া-আজারবাইজান সংঘাত