তালেবান ক্ষমতায়, পাকিস্তানের সঙ্গে বাণিজ্য বেড়েছে আফগানিস্তানের
jugantor
তালেবান ক্ষমতায়, পাকিস্তানের সঙ্গে বাণিজ্য বেড়েছে আফগানিস্তানের

  অনলাইন ডেস্ক  

১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৭:৩৩:০৬  |  অনলাইন সংস্করণ

তালেবান পাকিস্তান

তালেবান ১৫ আগস্ট ক্ষমতা দখলের পর আফগানিস্তানের বড় শহরগুলোতে বাণিজ্য বন্ধ ছিল। প্রায় ১৯ দিন ব্যবসা-বাণিজ্য বন্ধ থাকার পর পাকিস্তানের রপ্তানিকারকরা আফগানিস্তানে পণ্য রপ্তানি শুরু করেছে।

আফগানিস্তানের ব্যবসায়ী আব্দুল রহিম কাজিযাই বলেন, তালেবান যখন বড় শহরগুলো দখল করে তখন অবস্থা খারাপ হতে পারে ভেবে আমি পাকিস্তানে কোনো পণ্যের অর্ডার করিনি। কিন্তু এখন আমি পাকিস্তানের ব্যবসায়ীদের সঙ্গে যোগাযোগ করে চিনি এবং রান্নার তেলের অর্ডার করেছি।

তুরস্কের আনাদোলু এজেন্সির খবরে বলা হয়েছে, বুধবার খাইবার পাস এলাকায় শত শত ট্রাক অপেক্ষারত অবস্থায় দেখা গেছে। খাদ্যপণ্যে ভর্তি ট্রাকগুলো আফগানিস্তানের জালালাবাদে যাওয়ার অপেক্ষা করছে। আফগান সাইডে পার্কিংয়ের জায়গা না থাকায় ড্রাইভারদের তিন-চার দিন অপেক্ষা করতে হচ্ছে। কিন্তু এই দীর্ঘ সারি দুই দেশের মধ্যে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড শুরুর ইঙ্গিত দেয়।

আফগানিস্তান কপার, সোনা, তেল, প্রাকৃতিক গ্যাস, ইউরেনিয়াম, বক্সাইট, কয়লা, লোহা, জিপসাম, জিংক , জেমস্টোনসহ অসংখ্য প্রাকৃতিক সম্পদে ভরপুর দেশ। কিন্তু ২০ বছর ধরে দেশটিতে যুদ্ধ থাকায় এগুলো অনাবিষ্কৃত থেকে গেছে।

তোরখাম বর্ডারে পাকিস্তানের একজন কাস্টমস কর্মকর্তা বলেন, সীমান্তে গত কয়েক দিন ব্যবসা বৃদ্ধি পেয়েছে। তিনি বলেন, আগস্টের শুরুতে আমরা লক্ষ্য করছিলাম সবজি, ফল, আনার পর আফগানিস্তান ট্রাকগুলো খালি যাচ্ছে। কিন্তু এখন সেগুলো পাকিস্তান থেকে পণ্য নিয়ে ফিরছে। তিনি আরও বলেন, আমরা এসব ট্রাকগুলো পারাপার হতে সহযোগিতা করছি। আগে প্রতিদিন ১০০ থেকে ১৫০টি ট্রাক পার হচ্ছিল, কিন্তু এখন সেখানে ৩০০ থেকে ৪০০টি ট্রাক যাচ্ছে।

ড্রাইভাররা খুশি
আফগানিস্তান-পাকিস্তান সীমান্ত পার হওয়া গাড়িগুলোর ড্রাইভাররা বলছে, তালেবান ক্ষমতায় আসার পর অবস্থা পরিবর্তন হয়েছে। এখন আর রাস্তা পার হওয়ার জন্য কাউকে ঘুস দিতে হচ্ছে না। আব্দুল্লাহ নামে একজন ট্রাকডাইভার বলেন, পূর্বে সীমান্ত এবং বিভিন্ন চেক পয়েন্টে আফগান কর্মকর্তাদের ১০ হাজার থেকে ২০ হাজার পাকিস্তানি রূপি ঘুসদিতে হতো। কিন্তু গত ২০ দিন কেউ ঘুসের কথা বলেনি।

তালেবান ক্ষমতায়, পাকিস্তানের সঙ্গে বাণিজ্য বেড়েছে আফগানিস্তানের

 অনলাইন ডেস্ক 
১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৫:৩৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
তালেবান পাকিস্তান
তালেবান ক্ষমতায় আসার পর আফগানিস্তানের সঙ্গে পাকিস্তানের ব্যবসায়িক গতি বৃদ্ধি পেয়েছে

তালেবান ১৫ আগস্ট ক্ষমতা দখলের পর আফগানিস্তানের বড় শহরগুলোতে বাণিজ্য বন্ধ ছিল। প্রায় ১৯ দিন ব্যবসা-বাণিজ্য বন্ধ থাকার পর পাকিস্তানের রপ্তানিকারকরা আফগানিস্তানে পণ্য রপ্তানি শুরু করেছে। 

আফগানিস্তানের ব্যবসায়ী আব্দুল রহিম কাজিযাই বলেন, তালেবান যখন বড় শহরগুলো দখল করে তখন অবস্থা খারাপ হতে পারে ভেবে আমি পাকিস্তানে কোনো পণ্যের অর্ডার করিনি। কিন্তু এখন আমি পাকিস্তানের ব্যবসায়ীদের সঙ্গে যোগাযোগ করে চিনি এবং রান্নার তেলের অর্ডার করেছি।

তুরস্কের আনাদোলু এজেন্সির খবরে বলা হয়েছে, বুধবার খাইবার পাস এলাকায় শত শত ট্রাক অপেক্ষারত অবস্থায় দেখা গেছে। খাদ্যপণ্যে ভর্তি ট্রাকগুলো আফগানিস্তানের জালালাবাদে যাওয়ার অপেক্ষা করছে। আফগান সাইডে পার্কিংয়ের জায়গা না থাকায় ড্রাইভারদের তিন-চার দিন অপেক্ষা করতে হচ্ছে। কিন্তু এই দীর্ঘ সারি দুই দেশের মধ্যে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড শুরুর ইঙ্গিত দেয়। 

আফগানিস্তান কপার, সোনা, তেল, প্রাকৃতিক গ্যাস, ইউরেনিয়াম, বক্সাইট, কয়লা, লোহা, জিপসাম, জিংক , জেমস্টোনসহ অসংখ্য প্রাকৃতিক সম্পদে ভরপুর দেশ। কিন্তু ২০ বছর ধরে দেশটিতে যুদ্ধ থাকায় এগুলো অনাবিষ্কৃত থেকে গেছে।

তোরখাম বর্ডারে পাকিস্তানের একজন কাস্টমস কর্মকর্তা বলেন, সীমান্তে গত কয়েক দিন ব্যবসা বৃদ্ধি পেয়েছে। তিনি বলেন, আগস্টের শুরুতে আমরা লক্ষ্য করছিলাম সবজি, ফল, আনার পর আফগানিস্তান ট্রাকগুলো খালি যাচ্ছে। কিন্তু এখন সেগুলো পাকিস্তান থেকে পণ্য নিয়ে ফিরছে। তিনি আরও বলেন, আমরা এসব ট্রাকগুলো পারাপার হতে সহযোগিতা করছি। আগে প্রতিদিন ১০০ থেকে ১৫০টি ট্রাক পার হচ্ছিল, কিন্তু এখন সেখানে ৩০০ থেকে ৪০০টি ট্রাক যাচ্ছে। 

ড্রাইভাররা খুশি 
আফগানিস্তান-পাকিস্তান সীমান্ত পার হওয়া গাড়িগুলোর ড্রাইভাররা বলছে, তালেবান ক্ষমতায় আসার পর অবস্থা পরিবর্তন হয়েছে। এখন আর রাস্তা পার হওয়ার জন্য কাউকে ঘুস দিতে হচ্ছে না। আব্দুল্লাহ নামে একজন ট্রাকডাইভার বলেন, পূর্বে সীমান্ত এবং বিভিন্ন চেক পয়েন্টে আফগান কর্মকর্তাদের ১০ হাজার থেকে ২০ হাজার পাকিস্তানি রূপি ঘুস দিতে হতো। কিন্তু গত ২০ দিন কেউ ঘুসের কথা বলেনি। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও খবর