আফগানিস্তানকে আর্থিক সহায়তার ঘোষণা যুক্তরাষ্ট্রের
jugantor
আফগানিস্তানকে আর্থিক সহায়তার ঘোষণা যুক্তরাষ্ট্রের

  যুগান্তর ডেস্ক  

১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৮:৫৯:১৭  |  অনলাইন সংস্করণ

যুদ্ধবিধ্বস্ত আফগানিস্তানের জনগণের জন্য প্রায় ৬৪ মিলিয়ন ডলার অর্থ সহায়তা দেওয়ার ঘোষণা করেছে যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন সরকারের অধীন একটি বেসামরিক বৈদেশিক সাহায্য প্রদানকারী সংস্থা ইউএসএইড এবং স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তরফ থেকে এই সহায়তা দেওয়া হবে। এসব অর্থ জাতিসংঘের বিভিন্ন সংস্থা ও এনজিওগুলোর মাধ্যমে আফগান জনগণের সংঘাতকালীন নিরাপত্তা, দারিদ্র, প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও করোনা মোকাবেলায় সহায়তা প্রদানের জন্য দেওয়া হবে বলে ইউএসএইড এক বিবৃতিতেতথ্য জানিয়েছেন।

এদিকে, যুদ্ধবিধ্বস্ত যুদ্ধবিধ্বস্ত আফগানিস্তানের ব্যাংকিং সেবা একেবারেই ভেঙে পড়েছে।

গত ১৫ আগস্ট আফরাশ গনি সরকারের পতনের দেশ দখল করলেও তা শাসন করা নিয়ে অথৈ জলে পড়েছে তালেবান। অন্তর্বর্তীকালীন সরকার গড়লেও যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশের অর্থনীতি সামাল দিতে হিমশিম খাচ্ছে তারা। ইতিমধ্যে বহির্বিশের কাছে আর্থিক সহায়তা চেয়েছে তালেবানের অন্তর্বর্তীকালীন সরকার। মঙ্গলবার অন্তর্বর্তী আফগান সরকারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আমির খান মুত্তাকি বহির্বিশ্বের কাছে ফের ত্রাণ চালু করার আবেদন জানিয়েছে।

কাবুলে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি জানান, আফগানিস্তান যুদ্ধবিধ্বস্ত। তাই দেশ পুনর্গঠনের জন্য আন্তর্জাতিক সহায়তার প্রয়োজন। বিশেষ করে শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও উন্নয়নের জন্য ত্রাণের প্রয়োজন।

এদিকে, তালেবান ক্ষমতা দখলের পরই আফগানিস্তানের খাদ্য ও ব্যাংকগুলোতে নগদ অর্থের সংকট দেখা গিয়েছিল। সবকিছু মিলিয়ে আফগানিস্তানে মারাত্মক অর্থনৈতিক ও মানবিক সংকট সৃষ্টি হতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে জাতিসংঘ।

আফগানিস্তানকে আর্থিক সহায়তার ঘোষণা যুক্তরাষ্ট্রের

 যুগান্তর ডেস্ক 
১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৬:৫৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

যুদ্ধবিধ্বস্ত আফগানিস্তানের জনগণের জন্য প্রায় ৬৪ মিলিয়ন ডলার অর্থ সহায়তা দেওয়ার ঘোষণা করেছে যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন সরকারের অধীন একটি বেসামরিক বৈদেশিক সাহায্য প্রদানকারী সংস্থা ইউএসএইড এবং স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তরফ থেকে এই সহায়তা দেওয়া হবে। এসব অর্থ জাতিসংঘের বিভিন্ন সংস্থা ও এনজিওগুলোর মাধ্যমে আফগান জনগণের সংঘাতকালীন নিরাপত্তা, দারিদ্র, প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও করোনা মোকাবেলায় সহায়তা প্রদানের জন্য দেওয়া হবে বলে ইউএসএইড এক বিবৃতিতে তথ্য জানিয়েছেন।

এদিকে, যুদ্ধবিধ্বস্ত যুদ্ধবিধ্বস্ত আফগানিস্তানের ব্যাংকিং সেবা একেবারেই ভেঙে পড়েছে। 

গত ১৫ আগস্ট আফরাশ গনি সরকারের পতনের দেশ দখল করলেও তা শাসন করা নিয়ে অথৈ জলে পড়েছে তালেবান। অন্তর্বর্তীকালীন সরকার গড়লেও যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশের অর্থনীতি সামাল দিতে হিমশিম খাচ্ছে তারা। ইতিমধ্যে বহির্বিশের কাছে আর্থিক সহায়তা চেয়েছে তালেবানের অন্তর্বর্তীকালীন সরকার। মঙ্গলবার অন্তর্বর্তী আফগান সরকারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আমির খান মুত্তাকি বহির্বিশ্বের কাছে ফের ত্রাণ চালু করার আবেদন জানিয়েছে। 

কাবুলে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি জানান, আফগানিস্তান যুদ্ধবিধ্বস্ত। তাই দেশ পুনর্গঠনের জন্য আন্তর্জাতিক সহায়তার প্রয়োজন। বিশেষ করে শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও উন্নয়নের জন্য ত্রাণের প্রয়োজন।

এদিকে, তালেবান ক্ষমতা দখলের পরই আফগানিস্তানের খাদ্য ও ব্যাংকগুলোতে নগদ অর্থের সংকট দেখা গিয়েছিল। সবকিছু মিলিয়ে আফগানিস্তানে মারাত্মক অর্থনৈতিক ও মানবিক সংকট সৃষ্টি হতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে জাতিসংঘ।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন