আফগান নারীবিষয়ক মন্ত্রণালয় এখন ‘পাপ-পুণ্য’ মন্ত্রণালয়
jugantor
আফগান নারীবিষয়ক মন্ত্রণালয় এখন ‘পাপ-পুণ্য’ মন্ত্রণালয়

  যুগান্তর ডেস্ক  

১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:৪৮:১৯  |  অনলাইন সংস্করণ

আফগান নারীবিষয়ক মন্ত্রণালয় এখন ‘পাপ-পুণ্য’ মন্ত্রণালয়

আফগানিস্তানে নারীবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের জায়গায় ‘পাপ-পুণ্য’ মন্ত্রণালয়ের ব্যানার দেখা গেছে।

শুক্রবার কাবুলে মন্ত্রণালয়ের ভবনে নারীবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সিল মুছে দিয়ে নৈতিক পুলিশের সিল প্রতিস্থাপন করেছেন শ্রমিকরা। বিভাগটির সাবেক নারী কর্মকর্তা-কর্মচারীরা বলেছেন, তাদের ভবনের বাইরে তালা দেওয়া হয়েছে।

প্রকাশিত ছবি এবং রয়টার্সের প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ভবনটি দারি এবং আরবি মিশ্রিত চিহ্ন দ্বারা আচ্ছাদিত ছিল। শুক্রবার সেখানে ‘প্রার্থনা ও নির্দেশনা মন্ত্রণালয় এবং পুণ্যের প্রচার এবং অনৈতিকতা প্রতিরোধ’ লেখা দেখা গেছে।

একটি ভিডিওফুটেজে দেখা যায়, ভবনের বাইরে অবস্থানরত নারী কর্মীরা বলছেন, তারা গত কয়েক সপ্তাহ ধরে কাজ করতে আসার চেষ্টা করছেন। কিন্তু প্রতিবারই তাদের বাড়ি ফিরে যেতে নির্দেশ দিচ্ছে তালেবান।

বৃহস্পতিবার ভবনের গেটগুলো তালাবদ্ধ করে দেওয়া হয়। এরমধ্যে আজ (শনিবার) থেকে কাবুলের বয়েজ (ছেলেদের) স্কুলগুলো খুলে দেওয়ার অনুমতি দিয়েছে তালেবান শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

শুক্রবার শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে এই নির্দেশ দেওয়া হয়। তবে মেয়েদের স্কুলগুলো কখন খুলবে সে বিষয়ে এখনো কোনো নির্দেশনা দেয়নি তালেবান সরকার। রাজনৈতিক অস্থিরতার কারণে প্রায় এক মাস ধরে বন্ধ রয়েছে কাবুলের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো।

তালেবানের ১৯৯৬-২০০১ সালের শাসন আমলেও এই পাপ-পুণ্য বিষয়ক মন্ত্রী ছিল। কিন্তু ২০০১ সালে যুক্তরাষ্ট্র তালেবান সরকারকে উৎখাত করে হামিদ কারজাইকে ক্ষমতায় বসালে তিনি এই মন্ত্রণালয়ের নাম পরিবর্তন করে হজ ও ধর্ম মন্ত্রণালয় নামকরণ করেন।

আফগান নারীবিষয়ক মন্ত্রণালয় এখন ‘পাপ-পুণ্য’ মন্ত্রণালয়

 যুগান্তর ডেস্ক 
১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:৪৮ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
আফগান নারীবিষয়ক মন্ত্রণালয় এখন ‘পাপ-পুণ্য’ মন্ত্রণালয়
ছবি: বিবিসি

আফগানিস্তানে নারীবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের জায়গায় ‘পাপ-পুণ্য’ মন্ত্রণালয়ের ব্যানার দেখা গেছে।  

শুক্রবার কাবুলে মন্ত্রণালয়ের ভবনে নারীবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সিল মুছে দিয়ে নৈতিক পুলিশের সিল প্রতিস্থাপন করেছেন শ্রমিকরা। বিভাগটির সাবেক নারী কর্মকর্তা-কর্মচারীরা বলেছেন, তাদের ভবনের বাইরে তালা দেওয়া হয়েছে। 

প্রকাশিত ছবি এবং রয়টার্সের প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ভবনটি দারি এবং আরবি মিশ্রিত চিহ্ন দ্বারা আচ্ছাদিত ছিল। শুক্রবার সেখানে ‘প্রার্থনা ও নির্দেশনা মন্ত্রণালয় এবং পুণ্যের প্রচার এবং অনৈতিকতা প্রতিরোধ’ লেখা দেখা গেছে। 

একটি ভিডিওফুটেজে দেখা যায়, ভবনের বাইরে অবস্থানরত নারী কর্মীরা বলছেন, তারা গত কয়েক সপ্তাহ ধরে কাজ করতে আসার চেষ্টা করছেন। কিন্তু প্রতিবারই তাদের বাড়ি ফিরে যেতে নির্দেশ দিচ্ছে তালেবান। 

বৃহস্পতিবার ভবনের গেটগুলো তালাবদ্ধ করে দেওয়া হয়। এরমধ্যে আজ (শনিবার) থেকে কাবুলের বয়েজ (ছেলেদের) স্কুলগুলো খুলে দেওয়ার অনুমতি দিয়েছে তালেবান শিক্ষা মন্ত্রণালয়। 

শুক্রবার শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে এই নির্দেশ দেওয়া হয়। তবে মেয়েদের স্কুলগুলো কখন খুলবে সে বিষয়ে এখনো কোনো নির্দেশনা দেয়নি তালেবান সরকার। রাজনৈতিক অস্থিরতার কারণে প্রায় এক মাস ধরে বন্ধ রয়েছে কাবুলের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো।

তালেবানের ১৯৯৬-২০০১ সালের শাসন আমলেও এই পাপ-পুণ্য বিষয়ক মন্ত্রী ছিল। কিন্তু ২০০১ সালে যুক্তরাষ্ট্র তালেবান সরকারকে উৎখাত করে হামিদ কারজাইকে ক্ষমতায় বসালে তিনি এই মন্ত্রণালয়ের নাম পরিবর্তন করে হজ ও ধর্ম মন্ত্রণালয় নামকরণ করেন।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : আফগানিস্তানে তালেবানের পুনরুত্থান