তালেবান সরকার নিয়ে বিশ্ব নেতাদের সামনে মুখ খুললেন মোদি
jugantor
তালেবান সরকার নিয়ে বিশ্ব নেতাদের সামনে মুখ খুললেন মোদি

  যুগান্তর ডেস্ক  

১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:৪৪:৫৩  |  অনলাইন সংস্করণ

তালেবান সরকার নিয়ে বিশ্ব নেতাদের সামনে মুখ খুললেন মোদি

তালেবান ক্ষমতা নেওয়ার পর প্রথমবার বিশ্ব নেতাদের সামনে আফগান পরিস্থিতি নিয়ে কথা বলেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

শুক্রবার তাজিকিস্তানের রাজধানী দুশানবেতে সাংহাই কো-অপারেশন অর্গানাইজেশনের (এসসিও) শীর্ষ সম্মেলনে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যুক্ত হয়ে মোদি তালেবানের নতুন সরকার ক্ষমতায় আসা নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেন।

তিনি বলেন, ভারতসহ প্রতিবেশী দেশগুলোতে সন্ত্রাসবাদ আরও মাথাচাড়া দিতে পারে। সন্ত্রাসবাদ রুখতে দেশটির পরিস্থিতিকে গুরুত্ব দিয়ে আঞ্চলিক সহযোগিতা বাড়াতে হবে।

মোদি বলেন, আফগানিস্তানে অস্থিরতার জেরে গোটা বিশ্বে সন্ত্রাসবাদ এবং চরমপন্থা বাড়তে পারে। অন্য সন্ত্রাসবাদী সংগঠনগুলোও এইভাবে সরকার গড়তে উৎসাহী হবে। আফগানিস্তান থেকে অন্য দেশে যাতে সন্ত্রাস না ছড়ায়, সেটা সবাই মিলে নিশ্চিত করতে হবে।

এই সম্মেলনে অংশ নিয়েছেন আটটি সদস্য দেশ ও পাঁচটি পর্যবেক্ষক রাষ্ট্রের প্রতিনিধিরা। সম্মেলনের ফাঁকে দ্বিপাক্ষিক বিভিন্ন বিষয়েও আলাপ সেরে নিচ্ছেন অংশগ্রহণকারী নেতারা।

তালেবানের কাবুল দখলের বিষয়টি টেনে মোদি বলেন, আফগানিস্তানে ক্ষমতার পরিবর্তন অন্তর্ভুক্তিমূলক হয়নি, বরং আলোচনা ছাড়াই হয়েছে। আমাদের মতো প্রতিবেশী দেশগুলোর ওপর এর বিরূপ প্রভাব পড়তে পারে। এ ব্যাপারে জাতিসংঘ এবং এসসিও পদক্ষেপ গ্রহণ করুক।


তালেবান সরকার নিয়ে বিশ্ব নেতাদের সামনে মুখ খুললেন মোদি

 যুগান্তর ডেস্ক 
১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:৪৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
তালেবান সরকার নিয়ে বিশ্ব নেতাদের সামনে মুখ খুললেন মোদি
ফাইল ছবি।

তালেবান ক্ষমতা নেওয়ার পর প্রথমবার বিশ্ব নেতাদের সামনে আফগান পরিস্থিতি নিয়ে কথা বলেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। 

শুক্রবার তাজিকিস্তানের রাজধানী দুশানবেতে সাংহাই কো-অপারেশন অর্গানাইজেশনের (এসসিও) শীর্ষ সম্মেলনে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যুক্ত হয়ে মোদি তালেবানের নতুন সরকার ক্ষমতায় আসা নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেন। 

তিনি বলেন, ভারতসহ প্রতিবেশী দেশগুলোতে সন্ত্রাসবাদ আরও মাথাচাড়া দিতে পারে। সন্ত্রাসবাদ রুখতে দেশটির পরিস্থিতিকে গুরুত্ব দিয়ে আঞ্চলিক সহযোগিতা বাড়াতে হবে।

মোদি বলেন, আফগানিস্তানে অস্থিরতার জেরে গোটা বিশ্বে সন্ত্রাসবাদ এবং চরমপন্থা বাড়তে পারে। অন্য সন্ত্রাসবাদী সংগঠনগুলোও এইভাবে সরকার গড়তে উৎসাহী হবে। আফগানিস্তান থেকে অন্য দেশে যাতে সন্ত্রাস না ছড়ায়, সেটা সবাই মিলে নিশ্চিত করতে হবে।

এই সম্মেলনে অংশ নিয়েছেন আটটি সদস্য দেশ ও পাঁচটি পর্যবেক্ষক রাষ্ট্রের প্রতিনিধিরা। সম্মেলনের ফাঁকে দ্বিপাক্ষিক বিভিন্ন বিষয়েও আলাপ সেরে নিচ্ছেন অংশগ্রহণকারী নেতারা।

তালেবানের কাবুল দখলের বিষয়টি টেনে মোদি বলেন, আফগানিস্তানে ক্ষমতার পরিবর্তন অন্তর্ভুক্তিমূলক হয়নি, বরং আলোচনা ছাড়াই হয়েছে। আমাদের মতো প্রতিবেশী দেশগুলোর ওপর এর বিরূপ প্রভাব পড়তে পারে।  এ ব্যাপারে জাতিসংঘ এবং এসসিও পদক্ষেপ গ্রহণ করুক।


 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : আফগানিস্তানে তালেবানের পুনরুত্থান