সাড়ে ৫ হাজারের বেশি মামলা প্রত্যাহার করল তামিলনাড়ু সরকার
jugantor
সাড়ে ৫ হাজারের বেশি মামলা প্রত্যাহার করল তামিলনাড়ু সরকার

  যুগান্তর ডেস্ক  

১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৬:৪৫:৫৪  |  অনলাইন সংস্করণ

বিতর্কিত নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনসহ বিভিন্ন আইনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদকারীদের ওপর আরোপিত মামলা তুলে নিয়েছে তামিলনাড়ু সরকার।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের খবরে বলা হয়, সবমিলিয়ে মোট ৫ হাজার ৫৭০ টি মামলা প্রত্যাহার করা হয়েছে। এই তালিকায় বেশ কিছু সংবাদমাধ্যমেরও নাম ছিল। সেই মামলাগুলোও প্রত্যাহার করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

এর আগে তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী এম কে স্তালিন ২৪ জুন বিধানসভায় ঘোষণা করেছিলেন, বিক্ষোভকারীদের ওপর এবং সংবাদমাধ্যমের ওপর যে মামলাগুলো করা হয়েছে, সেগুলো প্রত্যাহার করা হবে।

এরপর ৪ সেপ্টেম্বর তামিলনাড়ুর স্বরাষ্ট্রসচিব এস কে প্রভাকর একটি বিবৃতিতে জানিয়েছিলেন, সেখানকার পুলিশের ডিজি যে যে মামলাগুলো প্রত্যাহার করা হবে, তার যাবতীয় তথ্যসহ তালিকা তৈরি করেছেন।

এর মধ্যে ২৬ টি মামলা রয়েছে সংবাদমাধ্যমের বিরুদ্ধে। কৃষি আইনের বিরোধিতা করায় মামলা রয়েছে মোট ২ হাজার ৮৩১ টি। নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদের কারণে মামলা রয়েছে ২ হাজার ২৮২ টি।

এছাড়া আট লেনের রাস্তা, মিথেন নিষ্কাশন এবং নিউট্রিনোর প্রতিবাদ করায় মোট ৪০৫ টি বিরুদ্ধে মামলা রুজু করা হয়েছিল। এছাড়া ২৬ টি মামলা ছিল কুদনকুলাম পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের প্রতিবাদ করার কারণে।

সরকার পক্ষের আইনজীবী জানিয়েছেন, যেসব ক্ষেত্রে এখনও তদন্ত চলছে কিংবা এখনও চার্জশিট তৈরি করা হয়নি, সেগুলো নিয়েও আর নাড়াচাড়া করা হবে না। আর যে মামলাগুলো আদালতে বিচারাধীন, সেগুলোর ক্ষেত্রে সরকার পক্ষের সংশ্লিষ্ট আইনজীবীদের নির্দেশ দেওয়া হবে মামলাটি প্রত্যাহার করে নেওয়ার আবেদন আদালতে জমা দেওয়ার জন্য।

নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন, জাতীয় নাগরিকপঞ্জি এবং তারপর তিনটি কৃষি আইন – প্রতিটি ইস্যুতে সারা ভারতজুড়ে প্রতিবাদের ঝড় উঠেছিল। বাদ ছিল না তামিলনাড়ুও।

আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতির বাইরে চলে যাওয়ার জোগাড় হয়েছিল। পরিস্থিতি যাতে নাগালের বাইরে না চলে যায়, তা নিশ্চিত করতে শুরু হয়েছিল পুলিশি অভিযান। সংবাদমাধ্যমের একাংশের বিরুদ্ধেও মামলা রুজু করা হয়েছিল। এবার সেই সব মামলা প্রত্যাহার করে নিচ্ছে তামিলনাড়ু সরকার।


সাড়ে ৫ হাজারের বেশি মামলা প্রত্যাহার করল তামিলনাড়ু সরকার

 যুগান্তর ডেস্ক 
১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:৪৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বিতর্কিত নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনসহ বিভিন্ন আইনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদকারীদের ওপর আরোপিত মামলা তুলে নিয়েছে তামিলনাড়ু সরকার। 

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের খবরে বলা হয়, সবমিলিয়ে মোট ৫ হাজার ৫৭০ টি মামলা প্রত্যাহার করা হয়েছে। এই তালিকায় বেশ কিছু সংবাদমাধ্যমেরও নাম ছিল। সেই মামলাগুলোও প্রত্যাহার করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

এর আগে তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী এম কে স্তালিন ২৪ জুন বিধানসভায় ঘোষণা করেছিলেন, বিক্ষোভকারীদের ওপর এবং সংবাদমাধ্যমের ওপর যে মামলাগুলো করা হয়েছে, সেগুলো প্রত্যাহার করা হবে। 

এরপর ৪ সেপ্টেম্বর তামিলনাড়ুর স্বরাষ্ট্রসচিব এস কে প্রভাকর একটি বিবৃতিতে জানিয়েছিলেন, সেখানকার পুলিশের ডিজি যে যে মামলাগুলো প্রত্যাহার করা হবে, তার যাবতীয় তথ্যসহ তালিকা তৈরি করেছেন।

এর মধ্যে ২৬ টি মামলা রয়েছে সংবাদমাধ্যমের বিরুদ্ধে। কৃষি আইনের বিরোধিতা করায় মামলা রয়েছে মোট ২ হাজার ৮৩১ টি। নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদের কারণে মামলা রয়েছে ২ হাজার ২৮২ টি। 

এছাড়া আট লেনের রাস্তা, মিথেন নিষ্কাশন এবং নিউট্রিনোর প্রতিবাদ করায় মোট ৪০৫ টি বিরুদ্ধে মামলা রুজু করা হয়েছিল। এছাড়া ২৬ টি মামলা ছিল কুদনকুলাম পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের প্রতিবাদ করার কারণে।

সরকার পক্ষের আইনজীবী জানিয়েছেন, যেসব ক্ষেত্রে এখনও তদন্ত চলছে কিংবা এখনও চার্জশিট তৈরি করা হয়নি, সেগুলো নিয়েও আর নাড়াচাড়া করা হবে না। আর যে মামলাগুলো আদালতে বিচারাধীন, সেগুলোর ক্ষেত্রে সরকার পক্ষের সংশ্লিষ্ট আইনজীবীদের নির্দেশ দেওয়া হবে মামলাটি প্রত্যাহার করে নেওয়ার আবেদন আদালতে জমা দেওয়ার জন্য।

নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন, জাতীয় নাগরিকপঞ্জি এবং তারপর তিনটি কৃষি আইন – প্রতিটি ইস্যুতে সারা ভারতজুড়ে প্রতিবাদের ঝড় উঠেছিল। বাদ ছিল না তামিলনাড়ুও। 

আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতির বাইরে চলে যাওয়ার জোগাড় হয়েছিল। পরিস্থিতি যাতে নাগালের বাইরে না চলে যায়, তা নিশ্চিত করতে শুরু হয়েছিল পুলিশি অভিযান। সংবাদমাধ্যমের একাংশের বিরুদ্ধেও মামলা রুজু করা হয়েছিল। এবার সেই সব মামলা প্রত্যাহার করে নিচ্ছে তামিলনাড়ু সরকার।


 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন