বৃক্ষরোপণ খাতে ৩২ হাজার বিদেশি কর্মী নিয়োগ দেবে মালয়েশিয়া
jugantor
বৃক্ষরোপণ খাতে ৩২ হাজার বিদেশি কর্মী নিয়োগ দেবে মালয়েশিয়া

  আহমাদুল কবির, মালয়েশিয়া থেকে  

১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০০:৩৮:৪৮  |  অনলাইন সংস্করণ

বৃক্ষরোপণ খাতে ৩২ হাজার বিদেশি কর্মী নিয়োগ দেবে মালয়েশিয়া। সরকারের পক্ষ থেকে বাগান খাতে শ্রমিকের ঘাটতি দূর করতে ৩২ হাজার বিদেশী কর্মী নিয়োগে মন্ত্রিসভা সম্মত হয়েছে এবং জরুরি প্রয়োজনে উৎস দেশ থেকে বিদেশি কর্মী নিয়োগের প্রস্তুতি চলছে।

১৭ সেপ্টেম্বর মানবসম্পদ মন্ত্রী দাতুক সেরী এম সারভানান এক বিবৃতিতে এ কথা জানান। এছাড়া মানবসম্পদ মন্ত্রণালয় (এমওএইচআর) স্ট্যান্ডিং অর্ডার অব অপারেশন (এসওপি) খসড়া করেছে এবং কুয়ালালামপুর আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের (কেএলআইএ) কাছে একটি বিদেশি শ্রমিক কোয়ারেন্টিন সেন্টার চিহ্নিত করেছে; যেখানে একসঙ্গে ২ হাজার কর্মচারী থাকতে পারবেন।

সারাভানান বিবৃতিতে বলেন, প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরে (অর্থনীতি) দাতুক সেরি মুস্তাফা মোহাম্মদের ১২ সেপ্টেম্বরের বিবৃতিতে তেল-পামসহ বাগান খাতে জনবলের ঘাটতি রয়েছে, তা দূরীকরণে মানবসম্পদ মন্ত্রণালয় একমত পোষণ করেছে। রোপণ খাতে শ্রমিকের অভাব জাতীয় আয়ের ক্ষতির ঝুঁকি তৈরি করেছে; যা বছরে ২০ বিলিয়ন রিঙ্গিত, বিশেষ করে তেল-পাম খাতে।

এক্ষেত্রে কেএসএম স্থানীয় কর্মীদের দ্বারা শূন্যপদ পূরণ করতে উৎসাহিত করার পরও কোনো সাড়া মেলেনি। ফলে বিদেশি শ্রম দ্বারা শূন্যস্থান পূরণ করা দরকার বলে ব্যাখ্যা করেন মন্ত্রী।

বৃক্ষরোপণ খাতে ৩২ হাজার বিদেশি কর্মী নিয়োগ দেবে মালয়েশিয়া

 আহমাদুল কবির, মালয়েশিয়া থেকে 
১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:৩৮ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বৃক্ষরোপণ খাতে ৩২ হাজার বিদেশি কর্মী নিয়োগ দেবে মালয়েশিয়া। সরকারের পক্ষ থেকে বাগান খাতে শ্রমিকের ঘাটতি দূর করতে ৩২ হাজার বিদেশী কর্মী নিয়োগে মন্ত্রিসভা সম্মত হয়েছে এবং জরুরি প্রয়োজনে উৎস দেশ থেকে বিদেশি কর্মী নিয়োগের প্রস্তুতি চলছে।

১৭ সেপ্টেম্বর মানবসম্পদ মন্ত্রী দাতুক সেরী এম সারভানান এক বিবৃতিতে এ কথা জানান। এছাড়া মানবসম্পদ মন্ত্রণালয় (এমওএইচআর) স্ট্যান্ডিং অর্ডার অব অপারেশন (এসওপি) খসড়া করেছে এবং কুয়ালালামপুর আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের (কেএলআইএ) কাছে একটি বিদেশি শ্রমিক কোয়ারেন্টিন সেন্টার চিহ্নিত করেছে; যেখানে একসঙ্গে ২ হাজার কর্মচারী থাকতে পারবেন।

সারাভানান বিবৃতিতে বলেন, প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরে (অর্থনীতি) দাতুক সেরি মুস্তাফা মোহাম্মদের ১২ সেপ্টেম্বরের বিবৃতিতে তেল-পামসহ বাগান খাতে জনবলের ঘাটতি রয়েছে, তা দূরীকরণে মানবসম্পদ মন্ত্রণালয় একমত পোষণ করেছে।  রোপণ খাতে শ্রমিকের অভাব জাতীয় আয়ের ক্ষতির ঝুঁকি তৈরি করেছে; যা বছরে ২০ বিলিয়ন রিঙ্গিত, বিশেষ করে তেল-পাম খাতে।

এক্ষেত্রে কেএসএম স্থানীয় কর্মীদের দ্বারা শূন্যপদ পূরণ করতে উৎসাহিত করার পরও কোনো সাড়া মেলেনি। ফলে বিদেশি শ্রম দ্বারা শূন্যস্থান পূরণ করা দরকার বলে ব্যাখ্যা করেন মন্ত্রী।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন