সাধারণ পর্যটক হিসেবে মহাকাশ ঘুরে এলেন তারা (ভিডিও)
jugantor
সাধারণ পর্যটক হিসেবে মহাকাশ ঘুরে এলেন তারা (ভিডিও)

  অনলাইন ডেস্ক  

১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:৫৫:৩৯  |  অনলাইন সংস্করণ

সন্ধ্যা সাতটার পর যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যের উপকূলে অবতরণ করেন তারা।

সাধারণ পর্যটক হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের চার নাগরিক মহাকাশ ঘুরে এসেছেন। বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, দল বেঁধে মহাকাশ ভ্রমণের ঘটনা এই প্রথম।

খবরে বলা হয়, স্পেস এক্সের একটি রকেট বুধবার ওই চার পর্যটককে নিয়ে ফ্লোরিডার কেপ ক্যানাভেরালের কেনেডি স্পেস সেন্টার থেকে পৃথিবী ছেড়ে যায়। তাদের সঙ্গে কোনো পেশাদার নভোচারী ছিলেন না। টানা তিন দিন পৃথিবীর কক্ষপথে পরিভ্রমণের পর স্থানীয় সময় শনিবার সন্ধ্যা সাতটার পর যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যের উপকূলে অবতরণ করেন তারা।

তাদেরকে পৃথিবীর বাইরে ভ্রমণের সুযোগ করে দিয়েছে মার্কিন ধনকুবের ইলন মাস্কের প্রতিষ্ঠান স্পেস এক্স। মিশনটির নাম দেওয়া হয় ‘ইনসপাইরেশন ফোর’। স্পেস এক্স এ নিয়ে তৃতীয়বার সফল মহাকাশযাত্রা করল।

এই মিশনের কমান্ডারের দায়িত্ব পালন করেন ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান শিফটফোর পেমেন্টস ইনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জ্যারেড আইজ্যাকম্যান (৩)। সফরে তার সঙ্গ দেন সিয়ান প্রক্টর (৫১), হ্যালি আর্সেনক্স (২৯) ও ক্রিস সেমব্রক্সি (৪২)। আইজ্যাকম্যানের এই তিন সঙ্গীকে বিশেষ প্রতিযোগিতার মাধ্যমে নির্বাচন করা হয়।

ভ্রমণ শেষে শনিবার আটলান্টিক মহাসাগরের বুকে নামার পর উচ্ছ্বসিত আইজ্যাকম্যান এক রেডিও বার্তায় বলেন, এটি একটি অসাধারণ যাত্রা ছিল।

মহাকাশযাত্রায় চার পর্যটকের আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনের (আইএসএস) কাছাকাছি যাওয়ার কোনো পরিকল্পনা ছিল না। তবে তারা ভূপৃষ্ঠ থেকে ৫৭৫ কিলোমিটার উচ্চতায় ওঠেন। পুরো অভিযানে কোনো সমস্যার মুখে পড়েননি তারা।

তবে মহাকাশ ভ্রমণের জন্য তাদের বিপুল অর্থ গুনতে হয়েছে। তিন দিনের পর্যটনের ব্যবস্থা করে দিয়ে ইলন মাস্কের পকেটে ঢুকেছে ২০ কোটি মার্কিন ডলার। এর পুরোটা দিয়েছেন জ্যারেড আইজ্যাকম্যান।

সাধারণ পর্যটক হিসেবে মহাকাশ ঘুরে এলেন তারা (ভিডিও)

 অনলাইন ডেস্ক 
১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:৫৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
সন্ধ্যা সাতটার পর যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যের উপকূলে অবতরণ করেন তারা।
শনিবার সন্ধ্যা সাতটার পর যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যের উপকূলে অবতরণ করেন তারা। রয়টার্স

সাধারণ পর্যটক হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের চার নাগরিক মহাকাশ ঘুরে এসেছেন। বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, দল বেঁধে মহাকাশ ভ্রমণের ঘটনা এই প্রথম। 

খবরে বলা হয়, স্পেস এক্সের একটি রকেট বুধবার ওই চার পর্যটককে নিয়ে ফ্লোরিডার কেপ ক্যানাভেরালের কেনেডি স্পেস সেন্টার থেকে পৃথিবী ছেড়ে যায়। তাদের সঙ্গে কোনো পেশাদার নভোচারী ছিলেন না। টানা তিন দিন পৃথিবীর কক্ষপথে পরিভ্রমণের পর স্থানীয় সময় শনিবার সন্ধ্যা সাতটার পর যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যের উপকূলে অবতরণ করেন তারা।

তাদেরকে পৃথিবীর বাইরে ভ্রমণের সুযোগ করে দিয়েছে মার্কিন ধনকুবের ইলন মাস্কের প্রতিষ্ঠান স্পেস এক্স। মিশনটির নাম দেওয়া হয় ‘ইনসপাইরেশন ফোর’। স্পেস এক্স এ নিয়ে তৃতীয়বার সফল মহাকাশযাত্রা করল।

এই মিশনের কমান্ডারের দায়িত্ব পালন করেন ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান শিফটফোর পেমেন্টস ইনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জ্যারেড আইজ্যাকম্যান (৩)। সফরে তার সঙ্গ দেন সিয়ান প্রক্টর (৫১), হ্যালি আর্সেনক্স (২৯) ও ক্রিস সেমব্রক্সি (৪২)। আইজ্যাকম্যানের এই তিন সঙ্গীকে বিশেষ প্রতিযোগিতার মাধ্যমে নির্বাচন করা হয়।

ভ্রমণ শেষে শনিবার আটলান্টিক মহাসাগরের বুকে নামার পর উচ্ছ্বসিত আইজ্যাকম্যান এক রেডিও বার্তায় বলেন, এটি একটি অসাধারণ যাত্রা ছিল।

মহাকাশযাত্রায় চার পর্যটকের আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনের (আইএসএস) কাছাকাছি যাওয়ার কোনো পরিকল্পনা ছিল না। তবে তারা ভূপৃষ্ঠ থেকে ৫৭৫ কিলোমিটার উচ্চতায় ওঠেন। পুরো অভিযানে কোনো সমস্যার মুখে পড়েননি তারা। 

তবে মহাকাশ ভ্রমণের জন্য তাদের বিপুল অর্থ গুনতে হয়েছে। তিন দিনের পর্যটনের ব্যবস্থা করে দিয়ে ইলন মাস্কের পকেটে ঢুকেছে ২০ কোটি মার্কিন ডলার। এর পুরোটা দিয়েছেন জ্যারেড আইজ্যাকম্যান। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন