'ভয়ে দম বন্ধ হওয়ার উপক্রম হলে নামাজ পড়ি'
jugantor
'ভয়ে দম বন্ধ হওয়ার উপক্রম হলে নামাজ পড়ি'

  অনলাইন ডেস্ক  

১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৫:১৬:৩৯  |  অনলাইন সংস্করণ

তালেবানদের ভয়ে চরম আতঙ্কের মধ্যে মৃত্যুঝুঁকি নিয়ে আফগানিস্তানে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন মার্কিন নাগরিকরা।

গত ১৫ আগস্ট আফগানিস্তানের নিয়ন্ত্রণ তালেবানের হাতে আসার পর আটকেপড়া মার্কিন নাগরিক এবং গ্রিনকার্ডধারী আফগান বংশোদ্ভূত মার্কিন নাগরিকরা চরম আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছেন। খবর আরব নিউজের।

তিন শিশু নিয়ে গ্রিনকার্ডধারী এমন একটি আফগান পরিবার গত দুই সপ্তাহে সাতবার বাসস্থান পরিবর্তন করেছেন।

কিছু দিন পর পর তারা একেক আত্মীয় বাড়ি গিয়ে আত্মগোপন করছেন। কারণ তালেবানরা তাদের বাড়িতে গিয়ে প্রতিনিয়ত তল্লাশি চালাচ্ছে।

তারা রাতে একসঙ্গে ঘুমাতে যান না, পাছে- তালেবান তাদের ধরে ফেলে। এ ভয়ে তারা পালা করে ঘুমান। অর্ধেক সদস্য রাতে ঘুমান আর বাকিরা দিনে।

পরিবারের সদস্যদের চিন্তায় নির্ঘুম রাত কাটানো এক গৃহবধূ জানান, ভয়ে যখন দম বন্ধ হওয়ার জোগাড় হয়, তখন তিনি নামাজ পড়েন, আল্লাহর কাছে এই পরিস্থিতি থেকে পরিত্রাণ পেতে প্রার্থনা করেন।

গ্রিনকর্ডিধারী পরিবারটির এত আতঙ্কের কারণ, গৃহকর্তা গত কয়েক বছর ধরে মার্কিন বাহিনীর প্রতিষ্ঠানে কাজ করেছেন।

তার ভাই ক্যালিফোর্নিয়ায় আগেই সেটেলড হয়েছেন। সেখান থেকে বারবার তাদের সঙ্গে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করছেন এবং তাদের এখান থেকে উদ্ধার করে যুক্তরাষ্ট্রে নিয়ে যাওয়ার জন্য মার্কিন প্রশাসনকে অনুরোধ করে যাচ্ছেন।

কিন্তু তালেবানে কঠোর নজরদারির কারণে তারা আফগান ছাড়তে পারছেন না। কারণ ধরা পড়লেই প্রাণ যাবে সবার।

এ অবস্থায় কঠোর গোপনীয়তায় গত শুক্রবার ১০০ মার্কিনিকে মাজার-ই-শরিফ থেকে বিশেষ বিমানে করে যুক্তরাষ্ট্রে আনা হয়েছে। এদের মধ্যে ৬৪ মার্কিন নাগরিক এবং ৩১ জন গ্রিনকার্ডধারী আফগান।

গ্রিনকার্ডধারী এক আফগান বংশোদ্ভূত মার্কিন নাগরিক বলেন, দিনের বেলায়ও আমাদের রাতের অন্ধকার গ্রাস করে। ঘরের দরজা-জানালা বন্ধ করে স্ত্রী-সন্তান নিয়ে কবরের নিস্তব্ধতায় আমরা দিন কাটাই। দরজায় টোকা পড়লেই মরে হয়- এই বুঝি আজঈল বেশধারী তালেবান আমাদের ধরে নিয়ে হত্যা করতে আসলো!

এভাবে কয়েক হাজার মার্কিন নাগরিক আফগানিস্তানে চরম উৎকণ্ঠায় দিন কাটাচ্ছেন।

'ভয়ে দম বন্ধ হওয়ার উপক্রম হলে নামাজ পড়ি'

 অনলাইন ডেস্ক 
১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৩:১৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

তালেবানদের ভয়ে চরম আতঙ্কের মধ্যে মৃত্যুঝুঁকি নিয়ে আফগানিস্তানে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন মার্কিন নাগরিকরা।

গত ১৫ আগস্ট আফগানিস্তানের নিয়ন্ত্রণ তালেবানের হাতে আসার পর আটকেপড়া মার্কিন নাগরিক এবং গ্রিনকার্ডধারী আফগান বংশোদ্ভূত মার্কিন নাগরিকরা চরম আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছেন। খবর আরব নিউজের।

তিন শিশু নিয়ে গ্রিনকার্ডধারী এমন একটি আফগান পরিবার গত দুই সপ্তাহে সাতবার বাসস্থান পরিবর্তন করেছেন।

কিছু দিন পর পর তারা একেক আত্মীয় বাড়ি গিয়ে আত্মগোপন করছেন। কারণ  তালেবানরা তাদের বাড়িতে গিয়ে প্রতিনিয়ত তল্লাশি চালাচ্ছে।

তারা রাতে একসঙ্গে ঘুমাতে যান না, পাছে- তালেবান তাদের ধরে ফেলে। এ ভয়ে তারা পালা করে ঘুমান। অর্ধেক সদস্য রাতে ঘুমান আর বাকিরা দিনে।

পরিবারের সদস্যদের চিন্তায় নির্ঘুম রাত কাটানো এক গৃহবধূ জানান, ভয়ে যখন দম বন্ধ হওয়ার জোগাড় হয়, তখন তিনি নামাজ পড়েন, আল্লাহর কাছে এই পরিস্থিতি থেকে পরিত্রাণ পেতে প্রার্থনা করেন।

গ্রিনকর্ডিধারী পরিবারটির এত আতঙ্কের কারণ, গৃহকর্তা গত কয়েক বছর ধরে মার্কিন বাহিনীর প্রতিষ্ঠানে কাজ করেছেন।

তার ভাই ক্যালিফোর্নিয়ায় আগেই সেটেলড হয়েছেন। সেখান থেকে বারবার তাদের সঙ্গে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করছেন এবং তাদের এখান থেকে উদ্ধার করে যুক্তরাষ্ট্রে নিয়ে যাওয়ার জন্য মার্কিন প্রশাসনকে অনুরোধ করে যাচ্ছেন।

কিন্তু তালেবানে কঠোর নজরদারির কারণে তারা আফগান ছাড়তে পারছেন না।  কারণ ধরা পড়লেই প্রাণ যাবে সবার।

এ অবস্থায় কঠোর গোপনীয়তায় গত শুক্রবার ১০০ মার্কিনিকে মাজার-ই-শরিফ থেকে বিশেষ বিমানে করে যুক্তরাষ্ট্রে আনা হয়েছে। এদের মধ্যে ৬৪ মার্কিন নাগরিক এবং ৩১ জন গ্রিনকার্ডধারী আফগান।     

গ্রিনকার্ডধারী এক আফগান বংশোদ্ভূত মার্কিন নাগরিক বলেন, দিনের বেলায়ও আমাদের রাতের অন্ধকার গ্রাস করে। ঘরের দরজা-জানালা বন্ধ করে স্ত্রী-সন্তান নিয়ে কবরের নিস্তব্ধতায় আমরা দিন কাটাই। দরজায় টোকা পড়লেই মরে হয়- এই বুঝি আজঈল বেশধারী তালেবান আমাদের ধরে নিয়ে হত্যা করতে আসলো!

এভাবে কয়েক হাজার মার্কিন নাগরিক আফগানিস্তানে চরম উৎকণ্ঠায় দিন কাটাচ্ছেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : আফগানিস্তানে তালেবানের পুনরুত্থান

আরও খবর