এবার জঙ্গিবিমান বিক্রি করবে পাকিস্তান!
jugantor
এবার জঙ্গিবিমান বিক্রি করবে পাকিস্তান!

  অনলাইন ডেস্ক  

২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:৪৪:২০  |  অনলাইন সংস্করণ

পাকিস্তান এখন আর যুদ্ধবিমান ক্রয় করছে না; বরং বিক্রির দিকে ঝুঁকছে। ইসলামাবাদ থেকে ১২টি জেএফ-১৭ থান্ডার জঙ্গিবিমান কেনার পরিকল্পনা করেছে আর্জেন্টিনা।

পাকিস্তানের কাছ থেকে এসব জঙ্গিবিমান কেনার জন্য আর্জেন্টিনা ২০২২ সালের খসড়া বাজেটে ৬৪ কোটি ৪০ লাখ ডলার অর্থ বরাদ্দ দিয়েছে। খবর দ্য ডনের।

জেএফ-১৭ থান্ডার বিমান হচ্ছে— চীন ও পাকিস্তানের যৌথ প্রচেষ্টায় তৈরি এক ইঞ্জিনের মাল্টি রোল যুদ্ধবিমান।

এরই মধ্যে এ বাজেট দেশটির জাতীয় সংসদে উপস্থাপন করা হয়েছে। তবে চুক্তিটি চূড়ান্ত হয়নি, কারণ এখন পর্যন্ত আর্জেন্টিনা এটি সই করেনি। অবশ্য দেশটি পাকিস্তান থেকে জঙ্গিবিমান কিনতে চায়— সেটি পরিষ্কার।

গত কয়েক বছর ধরে আর্জেন্টিনা বেশ কয়েকটি দেশের কাছ থেকে জঙ্গিবিমান কেনার চেষ্টা করে আসছে, কিন্তু অর্থের ঘাটতি অথবা ব্রিটেনের আপত্তির কারণে তা হয়নি।

সর্বশেষ গত বছর দক্ষিণ কোরিয়ার কাছ থেকে জঙ্গিবিমান কেনার প্রচেষ্টা আটকে দিয়েছিল ব্রিটেন। আর্জেন্টিনার প্রতিরক্ষামন্ত্রী ব্রিটিশ এ পদক্ষেপকে ‘সাম্রাজ্যবাদী অহংকার’ বলে মন্তব্য করেছিলেন।

পাকিস্তানের তৈরি এ যুদ্ধবিমান ইন্টারসেপশন, গ্রাউন্ড অ্যাটাক, জাহাজে হামলা ও নজরদারির কাজে ব্যবহার করা যায়। বিমানটির ৪২ শতাংশ চীনে তৈরি আর বাকিটা পাকিস্তানে। তবে চূড়ান্তভাবে অ্যাসেম্বলির কাজ পাকিস্তানেই হয়।

এবার জঙ্গিবিমান বিক্রি করবে পাকিস্তান!

 অনলাইন ডেস্ক 
২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:৪৪ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

পাকিস্তান এখন আর যুদ্ধবিমান ক্রয় করছে না; বরং বিক্রির দিকে ঝুঁকছে।  ইসলামাবাদ থেকে ১২টি জেএফ-১৭ থান্ডার জঙ্গিবিমান কেনার পরিকল্পনা করেছে আর্জেন্টিনা।

পাকিস্তানের কাছ থেকে এসব জঙ্গিবিমান কেনার জন্য আর্জেন্টিনা ২০২২ সালের খসড়া বাজেটে ৬৪ কোটি ৪০ লাখ ডলার অর্থ বরাদ্দ দিয়েছে। খবর দ্য ডনের।

জেএফ-১৭ থান্ডার বিমান হচ্ছে— চীন ও পাকিস্তানের যৌথ প্রচেষ্টায় তৈরি এক ইঞ্জিনের মাল্টি রোল যুদ্ধবিমান।

এরই মধ্যে এ বাজেট দেশটির জাতীয় সংসদে উপস্থাপন করা হয়েছে। তবে চুক্তিটি চূড়ান্ত হয়নি, কারণ এখন পর্যন্ত আর্জেন্টিনা এটি সই করেনি। অবশ্য দেশটি পাকিস্তান থেকে জঙ্গিবিমান কিনতে চায়— সেটি পরিষ্কার।

গত কয়েক বছর ধরে আর্জেন্টিনা বেশ কয়েকটি দেশের কাছ থেকে জঙ্গিবিমান কেনার চেষ্টা করে আসছে, কিন্তু অর্থের ঘাটতি অথবা ব্রিটেনের আপত্তির কারণে তা হয়নি।

সর্বশেষ গত বছর দক্ষিণ কোরিয়ার কাছ থেকে জঙ্গিবিমান কেনার প্রচেষ্টা আটকে দিয়েছিল ব্রিটেন। আর্জেন্টিনার প্রতিরক্ষামন্ত্রী ব্রিটিশ এ পদক্ষেপকে ‘সাম্রাজ্যবাদী অহংকার’ বলে মন্তব্য করেছিলেন।

পাকিস্তানের তৈরি এ যুদ্ধবিমান ইন্টারসেপশন, গ্রাউন্ড অ্যাটাক, জাহাজে হামলা ও নজরদারির কাজে ব্যবহার করা যায়। বিমানটির ৪২ শতাংশ চীনে তৈরি আর বাকিটা পাকিস্তানে। তবে চূড়ান্তভাবে অ্যাসেম্বলির কাজ পাকিস্তানেই হয়।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন