কোন দেশের হাতে কতটি পারমাণবিক সাবমেরিন
jugantor
কোন দেশের হাতে কতটি পারমাণবিক সাবমেরিন

  অনলাইন ডেস্ক  

২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৮:০৪:৪১  |  অনলাইন সংস্করণ

অস্ট্রেলিয়া, যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে একটি চুক্তি নিয়ে ব্যাপক ক্ষুব্ধ হয়েছে ফ্রান্স। এ চুক্তির কারণে ফ্রান্সের সঙ্গে অস্ট্রেলিয়ার তীব্র মতপার্থক্য দেখা দিয়েছে। বাতিল হয়ে গেছে দেশ দুটির মধ্যে সম্পাদিত মাল্টিবিলিয়ন ডলারের চুক্তি। চুক্তির আওতায় অস্ট্রেলিয়ার জন্য ১২টি পরমাণু শক্তিচালিত সাবমেরিন তৈরির কথা ছিল ফ্রান্সের।

ব্যাপক ক্ষুব্ধ ফ্রান্স যুক্তরাষ্ট্র এবং অস্ট্রেলিয়া থেকে নিজের রাষ্ট্রদূতদের ডেকেছে আলোচনার জন্য। দেশটি নতুন এ চুক্তি মোটেও ভালোভাবে নেয়নি। কারণ এতে আর্থিকভাবে বড় ধরনের ক্ষতির মুখে পড়বে ইউরোপের দেশটি।

যে পারমাণবিক সাবমেরিন নিয়ে এত আলোচনা তা বিশ্বের মাত্র ছয়টি দেশের হাতে রয়েছে। দেখে নিন কোন দেশের হাতে কতটি পারমাণবিক সাবমেরিন রয়েছে—

ইন্টারন্যাশনাল ইনস্টিটিউট ফর স্ট্র্যাটেজিক স্টাডিজের তথ্য অনুযায়ী,সবচেয়ে বেশি পারমাণবিক শক্তিচালিত সাবমেরিনের মালিক যুক্তরাষ্ট্র। দেশটির হাতে রয়েছে ৬৮টি পারমাণবিক শক্তিচালিত সাবমেরিন।

এরপরের স্থানে রয়েছে রাশিয়া। দেশটির হাতে রয়েছে ২৯টি।

তৃতীয় স্থানে রয়েছে চীন। দেশটি ১২টি পারমাণবিক শক্তিচালিত সাবমেরিনের মালিক।

১১টি পারমাণবিক শক্তিচালিত সাবমেরিন নিয়ে চতুর্থ অবস্থানে রয়েছে যুক্তরাজ্য। পঞ্চম স্থানে থাকা ফ্রান্সের হাতে রয়েছে আটটি পারমাণবিক শক্তিচালিত সাবমেরিন আর ভারতের হাতে রয়েছে ১টি পারমাণবিক শক্তিচালিত সাবমেরিন।

‘এইউকেইউএস’ চুক্তির অর্থ হলো—সপ্তম দেশ হিসেবে পরমাণু শক্তিচালিত সাবমেরিনের মালিক হতে যাচ্ছে অস্ট্রেলিয়া।

সূত্র: বিবিসি

কোন দেশের হাতে কতটি পারমাণবিক সাবমেরিন

 অনলাইন ডেস্ক 
২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৬:০৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

অস্ট্রেলিয়া, যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে একটি চুক্তি নিয়ে ব্যাপক ক্ষুব্ধ হয়েছে ফ্রান্স। এ চুক্তির কারণে ফ্রান্সের সঙ্গে অস্ট্রেলিয়ার তীব্র মতপার্থক্য দেখা দিয়েছে। বাতিল হয়ে গেছে দেশ দুটির মধ্যে সম্পাদিত মাল্টিবিলিয়ন ডলারের চুক্তি। চুক্তির আওতায় অস্ট্রেলিয়ার জন্য ১২টি পরমাণু শক্তিচালিত সাবমেরিন তৈরির কথা ছিল ফ্রান্সের।

ব্যাপক ক্ষুব্ধ ফ্রান্স যুক্তরাষ্ট্র এবং অস্ট্রেলিয়া থেকে নিজের রাষ্ট্রদূতদের ডেকেছে আলোচনার জন্য। দেশটি নতুন এ চুক্তি মোটেও ভালোভাবে নেয়নি। কারণ এতে আর্থিকভাবে বড় ধরনের ক্ষতির মুখে পড়বে ইউরোপের দেশটি।

যে পারমাণবিক সাবমেরিন নিয়ে এত আলোচনা তা বিশ্বের মাত্র ছয়টি দেশের হাতে রয়েছে। দেখে নিন কোন দেশের হাতে কতটি পারমাণবিক সাবমেরিন রয়েছে—

ইন্টারন্যাশনাল ইনস্টিটিউট ফর স্ট্র্যাটেজিক স্টাডিজের তথ্য অনুযায়ী, সবচেয়ে বেশি পারমাণবিক শক্তিচালিত সাবমেরিনের মালিক যুক্তরাষ্ট্র। দেশটির হাতে রয়েছে ৬৮টি পারমাণবিক শক্তিচালিত সাবমেরিন।

এরপরের স্থানে রয়েছে রাশিয়া। দেশটির হাতে রয়েছে ২৯টি।

তৃতীয় স্থানে রয়েছে চীন। দেশটি ১২টি পারমাণবিক শক্তিচালিত সাবমেরিনের মালিক।

১১টি পারমাণবিক শক্তিচালিত সাবমেরিন নিয়ে চতুর্থ অবস্থানে রয়েছে যুক্তরাজ্য। পঞ্চম স্থানে থাকা ফ্রান্সের হাতে রয়েছে আটটি পারমাণবিক শক্তিচালিত সাবমেরিন আর ভারতের হাতে রয়েছে ১টি পারমাণবিক শক্তিচালিত সাবমেরিন।

‘এইউকেইউএস’ চুক্তির অর্থ হলো—সপ্তম দেশ হিসেবে পরমাণু শক্তিচালিত সাবমেরিনের মালিক হতে যাচ্ছে অস্ট্রেলিয়া।

সূত্র: বিবিসি

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন