বিদেশে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ প্রকল্পে আর অর্থায়ন করবে না চীন
jugantor
বিদেশে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ প্রকল্পে আর অর্থায়ন করবে না চীন

  অনলাইন ডেস্ক  

২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:১৬:৪৮  |  অনলাইন সংস্করণ

চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং বলেছেন, বিদেশে নতুন কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণে চীন আর অর্থায়ন করবে না।

জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে মঙ্গলবারচীনের প্রেসিডেন্ট এ কথা বলেন। খবর আলজাজিরার।

ইন্দোনেশিয়া, বাংলাদেশসহ বিশ্বের উন্নয়নশীল দেশগুলোতে কয়লাভিত্তিক প্রকল্প বাস্তবায়নে সহায়তা করে আসছে চীন। কার্বন নিঃসরণ কমাতে কয়লাভিত্তিক প্রকল্পে অর্থায়ন বন্ধে দেশটি কূটনৈতিক চাপে রয়েছে।

চীনের আগে চলতি বছর দক্ষিণ কোরিয়া ও জাপানও এরকম ঘোষণা দিয়েছিল।

পূর্বে ধারণ করা এক ভিডিওবার্তায় শি জিনপিং জাতিসংঘের অধিবেশনে বলেন, চীন উন্নয়নশীল দেশগুলোকে সবুজ ও কম কার্বন নিঃসরণ করে এমন শক্তি উৎপাদনে সহায়তা করবে এবং বিদেশে কয়লাভিত্তিক নতুন কোনো বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ করবে না।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন দরিদ্র দেশগুলোকে ক্লিন এনার্জি উৎপাদন ও জলবায়ু পরির্তনের প্রভাব মোকাবিলার জন্য ১১.৪ বিলিয়ন ডলার সহায়তার ঘোষণা দেওয়ার পর শি জিনপিংয়ের প্রতিশ্রুতির খবর এলো।

শি জিনপিংয়ের ঘোষণাকে দ্রুত স্বাগত জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের জলবায়ুবিষয়ক দূত জন কেরি।

জলবায়ু আন্দোলনের কর্মীরাও চীনের প্রেসিডেন্টের এ পদক্ষেপের প্রশংসা করেছেন।

৩৫০.ওআরজি নামের একটি পরিবেশবাদী সংগঠন শি জিনপিংয়ের ঘোষণাকে ‘বড় ঘটনা’ হিসেবে উল্লেখ করেছে।

জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্থনিও গুতেরেস শি জিনপিংয়ের পদক্ষেপ ও উন্নয়নশীল দেশগুলোকে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবিলায় জো বাইডেনের অর্থায়নের প্রতিশ্রুতির বিষয়কে স্বাগত জানিয়েছেন।

বিদেশে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ প্রকল্পে আর অর্থায়ন করবে না চীন

 অনলাইন ডেস্ক 
২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:১৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং বলেছেন, বিদেশে নতুন কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণে চীন আর অর্থায়ন করবে না।

জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে মঙ্গলবার চীনের প্রেসিডেন্ট এ কথা বলেন। খবর আলজাজিরার।

ইন্দোনেশিয়া, বাংলাদেশসহ বিশ্বের উন্নয়নশীল দেশগুলোতে কয়লাভিত্তিক প্রকল্প বাস্তবায়নে সহায়তা করে আসছে চীন। কার্বন নিঃসরণ কমাতে কয়লাভিত্তিক প্রকল্পে অর্থায়ন বন্ধে দেশটি কূটনৈতিক চাপে রয়েছে।

চীনের আগে চলতি বছর দক্ষিণ কোরিয়া ও জাপানও এরকম ঘোষণা দিয়েছিল।

পূর্বে ধারণ করা এক ভিডিওবার্তায় শি জিনপিং জাতিসংঘের অধিবেশনে বলেন, চীন উন্নয়নশীল দেশগুলোকে সবুজ ও কম কার্বন নিঃসরণ করে এমন শক্তি উৎপাদনে সহায়তা করবে এবং বিদেশে কয়লাভিত্তিক নতুন কোনো বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ করবে না।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন দরিদ্র দেশগুলোকে ক্লিন এনার্জি উৎপাদন ও জলবায়ু পরির্তনের প্রভাব মোকাবিলার জন্য ১১.৪ বিলিয়ন ডলার সহায়তার ঘোষণা দেওয়ার পর শি জিনপিংয়ের প্রতিশ্রুতির খবর এলো।

শি জিনপিংয়ের ঘোষণাকে দ্রুত স্বাগত জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের জলবায়ুবিষয়ক দূত জন কেরি।

জলবায়ু আন্দোলনের কর্মীরাও চীনের প্রেসিডেন্টের এ পদক্ষেপের প্রশংসা করেছেন।

৩৫০.ওআরজি নামের একটি পরিবেশবাদী সংগঠন শি জিনপিংয়ের ঘোষণাকে ‘বড় ঘটনা’ হিসেবে উল্লেখ করেছে। 

জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্থনিও গুতেরেস শি জিনপিংয়ের পদক্ষেপ ও উন্নয়নশীল দেশগুলোকে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবিলায় জো বাইডেনের অর্থায়নের প্রতিশ্রুতির বিষয়কে স্বাগত জানিয়েছেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন