দারিদ্র্যের কারণে সাবেক আফগান পুলিশের আত্মহত্যা
jugantor
দারিদ্র্যের কারণে সাবেক আফগান পুলিশের আত্মহত্যা

  যুগান্তর ডেস্ক  

২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৯:২৭:০৯  |  অনলাইন সংস্করণ

আফগান পুলিশ

আফগানিস্তানের দারিদ্র্যতা আর বেকারত্বের সমস্যা তীব্র আকার ধারণ করেছে। দারিদ্র্যতা ও বেকারত্বের কারণে দেশটির সাবেক এক পুলিশ কর্মকর্তা আত্মহত্যা করেছেন বলে শুক্রবার স্থানীয় এক গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে জানা গেছে।

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আফগানিস্তানের কুনার প্রদেশের বাসিন্দা শাকির (৩৮) ওই পুলিশ কর্মকর্তা ১৬ বছর ধরে চাকরি করেছেন। কিন্তু আফগানিস্তানে আশরাফ গনি সরকারের পতনের পর তিনি চাকরি হারান।

শাকিরের পরিবার জানায়, তিনি তিন মাস ধরে বেতন পাচ্ছিলেন না। তাই মা,দুই স্ত্রী এবং সাত সন্তান নিয়ে বিপাকে পড়েছিলেন তিনি। পরিবারের সবার জন্য প্রতিদিনের খাবারও তিনি জোটাতে পারছিলেন না।

শাকিরের প্রথম স্ত্রী সাদিকা জানান, তার স্বামী ১৬ বছর ধরে পুলিশে চাকরি করছেন। শেষের তিন মাস তিনি কোনো বেতন পাননি। দারিদ্রতার কারণে তিনি আত্মহত্যা করেছেন। পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তির মৃত্যুতে ভেঙে পড়েছেন সাদিকা।

শাকিরের দ্বিতীয় স্ত্রী ওয়াজিদা জানান, ছয় বছর আগে তাদের বিয়ে হয়েছে। তাদের একটি মেয়ে আছে। শারিকের মৃত্যুর পর ১০ জনের পরিবারে উপার্জনের মতো আর কেউ নেই বলে জানিয়েছেন ওয়াজিদা।

শাকিরের মা বিবি হামিমা জানান, শারিকের আত্মহত্যার কারণে ১০ জন মানুষের জীবন এখন অনিশ্চয়তার মুখে পড়েছে।

শাকিরের পরিবারের সদস্যরা বলেন, তারা অর্থনৈতিক সংকটের মুখোমুখি হয়েছেন। তারা মানবাধিকার সংগঠনগুলোর কাছে সাহায্যের আহ্বান জানিয়েছেন।

প্রসঙ্গত, দীর্ঘ দুই দশক পর আফগানিস্তানের শাসনক্ষমতায় ফিরছে তালেবান। কিন্তু দ্বিতীয় দফায় ক্ষমতা দখলের পর থেকেই তীব্র অর্থনৈতিক সংকটের মধ্যদিয়ে যাচ্ছে রক্ষণশীল সংগঠনটি। তালেবানের অর্থনীতি অনেকাংশেই বৈদেশিক সাহায্যের ওপর নির্ভরশীল। কিন্তু তালেবান ক্ষমতা দখলের পর ইসলামী আমিরাতকে স্বীকৃতি না দেওয়ায় সেসব সাহায্যের অধিকাংশই বন্ধ রয়েছে।

তালেবান কাবুল দখলের পরই ঋণ আটকে দিয়েছে বিশ্বব্যাংক, আইএমএফের মতো সংস্থাগুলো। অন্যদিকে, ফিয়ান্সিয়াল অ্যাকশন টেকন ফোর্স (এফটিএএফ) ৩৯টি সদস্য দেশকে তালেবানের সম্পদ ব্লক করে দিতে বলেছে। এই পরিস্থিতিতে আফগান অর্থনীতি ভেঙে পড়েছে।দেশটির মোট জনসংখ্যার ৯৭ শতাংশই দারিদ্র সীমার নিচে চলে যেতে পারে বলে আশঙ্কা করছে জাতিসংঘ।তালেবান ক্ষমতা দখলের আগে দেশটির ৭২ শতাংশ জন দারিদ্র্য সীমার নিচে বাস করত।

দারিদ্র্যের কারণে সাবেক আফগান পুলিশের আত্মহত্যা

 যুগান্তর ডেস্ক 
২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭:২৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
আফগান পুলিশ
ছবি : প্রতীকী

আফগানিস্তানের দারিদ্র্যতা আর বেকারত্বের সমস্যা তীব্র আকার ধারণ করেছে। দারিদ্র্যতা ও বেকারত্বের কারণে দেশটির সাবেক এক পুলিশ কর্মকর্তা আত্মহত্যা করেছেন বলে শুক্রবার স্থানীয় এক গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে জানা গেছে।

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে,  আফগানিস্তানের কুনার প্রদেশের বাসিন্দা শাকির (৩৮) ওই পুলিশ কর্মকর্তা ১৬ বছর ধরে চাকরি করেছেন। কিন্তু আফগানিস্তানে আশরাফ গনি সরকারের পতনের পর তিনি চাকরি হারান।

শাকিরের পরিবার জানায়, তিনি তিন মাস ধরে বেতন পাচ্ছিলেন না। তাই মা,দুই স্ত্রী এবং সাত সন্তান নিয়ে বিপাকে পড়েছিলেন তিনি। পরিবারের সবার জন্য প্রতিদিনের খাবারও তিনি জোটাতে পারছিলেন না। 

শাকিরের প্রথম স্ত্রী সাদিকা জানান, তার স্বামী ১৬ বছর ধরে পুলিশে চাকরি করছেন। শেষের তিন মাস তিনি কোনো বেতন পাননি। দারিদ্রতার কারণে তিনি আত্মহত্যা করেছেন। পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তির মৃত্যুতে ভেঙে পড়েছেন সাদিকা।

শাকিরের দ্বিতীয় স্ত্রী ওয়াজিদা জানান, ছয় বছর আগে তাদের বিয়ে হয়েছে। তাদের একটি মেয়ে আছে। শারিকের মৃত্যুর পর ১০ জনের পরিবারে উপার্জনের মতো আর কেউ নেই বলে জানিয়েছেন ওয়াজিদা।

শাকিরের মা বিবি হামিমা জানান, শারিকের আত্মহত্যার কারণে ১০ জন মানুষের জীবন এখন অনিশ্চয়তার মুখে পড়েছে।

শাকিরের পরিবারের সদস্যরা বলেন, তারা অর্থনৈতিক সংকটের মুখোমুখি হয়েছেন।  তারা মানবাধিকার সংগঠনগুলোর কাছে সাহায্যের আহ্বান জানিয়েছেন।

প্রসঙ্গত, দীর্ঘ দুই দশক পর আফগানিস্তানের শাসনক্ষমতায় ফিরছে তালেবান। কিন্তু দ্বিতীয় দফায় ক্ষমতা দখলের পর থেকেই তীব্র অর্থনৈতিক সংকটের মধ্যদিয়ে যাচ্ছে রক্ষণশীল সংগঠনটি। তালেবানের অর্থনীতি অনেকাংশেই বৈদেশিক সাহায্যের ওপর নির্ভরশীল। কিন্তু তালেবান ক্ষমতা দখলের পর ইসলামী আমিরাতকে স্বীকৃতি না দেওয়ায় সেসব সাহায্যের অধিকাংশই বন্ধ রয়েছে। 

তালেবান কাবুল দখলের পরই ঋণ আটকে দিয়েছে বিশ্বব্যাংক, আইএমএফের মতো সংস্থাগুলো। অন্যদিকে, ফিয়ান্সিয়াল অ্যাকশন টেকন ফোর্স (এফটিএএফ) ৩৯টি সদস্য দেশকে তালেবানের সম্পদ ব্লক করে দিতে বলেছে। এই পরিস্থিতিতে আফগান অর্থনীতি ভেঙে পড়েছে।দেশটির মোট জনসংখ্যার ৯৭ শতাংশই দারিদ্র সীমার নিচে চলে যেতে পারে বলে আশঙ্কা করছে জাতিসংঘ।তালেবান ক্ষমতা দখলের আগে দেশটির ৭২ শতাংশ জন দারিদ্র্য সীমার নিচে বাস করত।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন