আফগানিস্তানে ১৫০ সংবাদপত্র বন্ধ
jugantor
আফগানিস্তানে ১৫০ সংবাদপত্র বন্ধ

  অনলাইন ডেস্ক  

২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২১:৪২:৫১  |  অনলাইন সংস্করণ

আশরাফ গনি সরকারের পতনের পর থেকেই আফগানিস্তানে বন্ধ রয়েছে সংবাদপত্র ও ম্যাগাজিনের মুদ্রণ

তালেবান শাসনের অধীনে আর্থিক সংকট ও পর্যাপ্ত তথ্যের অভাবে আফগানিস্তানের বহু সংবাদপত্রের মুদ্রণ বন্ধ হয়ে গেছে। আফগানিস্তানের ন্যাশনাল জার্নালিস্ট ইউনিয়ন বুধবার এ তথ্য জানিয়েছে।

আফগানিস্তানের ন্যাশনাল জার্নালিস্ট ইউনিয়নের বরাত দিয়েএখবর জানিয়েছে দেশটির জনপ্রিয় সংবাদমাধ্যমটোলো নিউজ।

খবরে বলা হয়, আশরাফ গনিসরকারের পতনের পর থেকেই আফগানিস্তানে বন্ধ রয়েছে সংবাদপত্র ও ম্যাগাজিনের মুদ্রণ। তবে অনেক সংবাদপত্র শুধু অনলাইনে কার্যক্রম চালাচ্ছে।

এ ব্যাপারে ন্যাশনাল জার্নালিস্ট ইউনিয়নের প্রধান নির্বাহী আহমেদ শোয়াইব বলেন, ‘দেশে প্রিন্ট মিডিয়ার কার্যক্রম বন্ধ হয়ে গেছে। পরিস্থিতি এ রকম থাকলে আমরা সামাজিক সংকটের মুখোমুখি হব।’

আরমান মিলি নামের পত্রিকাটি আফগানিস্তানের অন্যতম খ্যতনামা পত্রিকা, যেটি এখন বন্ধ রয়েছে। পত্রিকাটির অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা সাইয়েদ শোয়াইব পারশা বলেন, আমাদের ২২জন কর্মী ছিল। কিন্তু সবাই এখানের চাকরি হারিয়েছে। আমরা স্বাভাবিক পরিস্থিতির জন্য অপেক্ষা করছি। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে আমরা আবারও এটি চালু করতে পারব।

আফগানিস্তানে ১৫০ সংবাদপত্র বন্ধ

 অনলাইন ডেস্ক 
২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:৪২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
আশরাফ গনি সরকারের পতনের পর থেকেই আফগানিস্তানে বন্ধ রয়েছে সংবাদপত্র ও ম্যাগাজিনের মুদ্রণ
আশরাফ গনি সরকারের পতনের পর থেকেই আফগানিস্তানে বন্ধ রয়েছে সংবাদপত্র ও ম্যাগাজিনের মুদ্রণ। ছবি: টোলো নিউজ

তালেবান শাসনের অধীনে আর্থিক সংকট ও পর্যাপ্ত তথ্যের অভাবে আফগানিস্তানের বহু সংবাদপত্রের মুদ্রণ বন্ধ হয়ে গেছে। আফগানিস্তানের ন্যাশনাল জার্নালিস্ট ইউনিয়ন বুধবার এ তথ্য জানিয়েছে।

আফগানিস্তানের ন্যাশনাল জার্নালিস্ট ইউনিয়নের বরাত দিয়ে এ খবর জানিয়েছে দেশটির জনপ্রিয় সংবাদমাধ্যম টোলো নিউজ। 

খবরে বলা হয়, আশরাফ গনি সরকারের পতনের পর থেকেই আফগানিস্তানে বন্ধ রয়েছে সংবাদপত্র ও ম্যাগাজিনের মুদ্রণ। তবে অনেক সংবাদপত্র শুধু অনলাইনে কার্যক্রম চালাচ্ছে।

এ ব্যাপারে ন্যাশনাল জার্নালিস্ট ইউনিয়নের প্রধান নির্বাহী আহমেদ শোয়াইব বলেন, ‘দেশে প্রিন্ট মিডিয়ার কার্যক্রম বন্ধ হয়ে গেছে। পরিস্থিতি এ রকম থাকলে আমরা সামাজিক সংকটের মুখোমুখি হব।’

আরমান মিলি নামের পত্রিকাটি আফগানিস্তানের অন্যতম খ্যতনামা পত্রিকা, যেটি এখন বন্ধ রয়েছে। পত্রিকাটির অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা সাইয়েদ শোয়াইব পারশা বলেন, আমাদের ২২জন কর্মী ছিল। কিন্তু সবাই এখানের চাকরি হারিয়েছে। আমরা স্বাভাবিক পরিস্থিতির জন্য অপেক্ষা করছি। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে আমরা আবারও এটি চালু করতে পারব।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : আফগানিস্তানে তালেবানের পুনরুত্থান