আইএস নেতা আবু ওমর খোরাসানিকে হত্যার দাবি তালেবানের
jugantor
আইএস নেতা আবু ওমর খোরাসানিকে হত্যার দাবি তালেবানের

  অনলাইন ডেস্ক  

২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:৫৬:৫৯  |  অনলাইন সংস্করণ

আফগানিস্তানে উগ্র জঙ্গিগোষ্ঠী দায়েশের (আইএস) রিংলিডার আবু ওমর খোরাসানিকে হত্যা করা হয়েছে বলে দাবি করেছে তালেবান।

তালেবানের বরাত দিয়ে আরবি নিউজ চ্যানেল আল-মায়াদিন এ খবর জানিয়েছে। তালেবান কর্মকর্তারা শনিবার সন্ধ্যায় কাবুলে বলেন, জঙ্গিগোষ্ঠী দায়েশের রিংলিডার আবু ওমর খোরাসানি আফগানিস্তানে নিহত হয়েছেন।

তবে খোরাসানি কবে, কোথায় ও কীভাবে নিহত হয়েছেন, সে সম্পর্কে কিছু জানায়নি তালেবান।

কথিত ইসলামি খেলাফত প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে গত দশকের মাঝামাঝি সময় থেকে সিরিয়া ও ইরাকসহ বিভিন্ন দেশে যুদ্ধাপরাধ চালিয়ে আসছে চরম উগ্র সন্ত্রাসী গোষ্ঠী দায়েশ।

এবার তালেবানও আফগানিস্তানে ইসলামি শাসনব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা করতে চায় বলে ঘোষণা করলেও তালেবানের বিরুদ্ধে সম্প্রতি রক্তক্ষয়ী হামলা শুরু করে দায়েশ।

গত ১৫ আগস্ট কাবুলের নিয়ন্ত্রণ গ্রহণ করে তালেবান। তার পর থেকে রাজধানী কাবুল ও নানগারহারে দায়েশের সন্ত্রাসী হামলা বেড়ে গেছে। বিশেষ করে নানগারহার প্রদেশে গত কয়েক দিনে বেশ কিছু সন্ত্রাসী হামলা চালিয়েছে আইএস।

এসব হামলায় অন্তত ২০ তালেবান সদস্যসহ অসংখ্য বেসামরিক নাগরিক হতাহত হয়েছেন। তালেবান দাবি করেছে, আফগানিস্তানের জন্য দায়েশ এখন মারাত্মক কোনো হুমকি নয়; বরং এই গোষ্ঠীকে শিগগিরই নির্মূল করা হবে।

আইএস নেতা আবু ওমর খোরাসানিকে হত্যার দাবি তালেবানের

 অনলাইন ডেস্ক 
২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:৫৬ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

আফগানিস্তানে উগ্র জঙ্গিগোষ্ঠী দায়েশের (আইএস) রিংলিডার আবু ওমর খোরাসানিকে হত্যা করা হয়েছে বলে দাবি করেছে তালেবান।

তালেবানের বরাত দিয়ে আরবি নিউজ চ্যানেল আল-মায়াদিন এ খবর জানিয়েছে। তালেবান কর্মকর্তারা শনিবার সন্ধ্যায় কাবুলে বলেন, জঙ্গিগোষ্ঠী দায়েশের রিংলিডার আবু ওমর খোরাসানি আফগানিস্তানে নিহত হয়েছেন।

তবে খোরাসানি কবে, কোথায় ও কীভাবে নিহত হয়েছেন, সে সম্পর্কে কিছু জানায়নি তালেবান।

কথিত ইসলামি খেলাফত প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে গত দশকের মাঝামাঝি সময় থেকে সিরিয়া ও ইরাকসহ বিভিন্ন দেশে যুদ্ধাপরাধ চালিয়ে আসছে চরম উগ্র সন্ত্রাসী গোষ্ঠী দায়েশ।

এবার তালেবানও আফগানিস্তানে ইসলামি শাসনব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা করতে চায় বলে ঘোষণা করলেও তালেবানের বিরুদ্ধে সম্প্রতি রক্তক্ষয়ী হামলা শুরু করে দায়েশ।

গত ১৫ আগস্ট কাবুলের নিয়ন্ত্রণ গ্রহণ করে তালেবান। তার পর থেকে রাজধানী কাবুল ও নানগারহারে দায়েশের সন্ত্রাসী হামলা বেড়ে গেছে। বিশেষ করে নানগারহার প্রদেশে গত কয়েক দিনে বেশ কিছু সন্ত্রাসী হামলা চালিয়েছে আইএস।

এসব হামলায় অন্তত ২০ তালেবান সদস্যসহ অসংখ্য বেসামরিক নাগরিক হতাহত হয়েছেন। তালেবান দাবি করেছে, আফগানিস্তানের জন্য দায়েশ এখন মারাত্মক কোনো হুমকি নয়; বরং এই গোষ্ঠীকে শিগগিরই নির্মূল করা হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : আফগানিস্তানে তালেবানের পুনরুত্থান