ভারতে অনন্য নজির গড়লেন ২ নারী
jugantor
ভারতে অনন্য নজির গড়লেন ২ নারী

  অনলাইন ডেস্ক  

২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩:২৩:৩৮  |  অনলাইন সংস্করণ

ভারতের রাজধানী দিল্লিতে দুই নারী সম্প্রীতির এক অনন্য নজির গড়েছেন।

নয় মাস আগেও সুষ্মা উনিয়াল ও সুলতানা আলী কেউ কাউকে চিনতেন না। কিন্তু তারা এখন উত্তরখণ্ডের রাজধানী দেরাদুনে।

সেখানে হাসপাতালে গিয়ে একে অপরের স্বামীকে নিজেদের কিডনি দান করবেন। খবর আরব নিউজের।

ধর্ম এখানে মোটেও বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারেনি। বরং অটুট হয়েছে দুই সম্প্রদায়ের মধ্যে সম্প্রীতির বন্ধন।

২০১৯ সাল থেকেই বিকাশ উনিয়াল (৫১) এবং আশরাফ আলী (৫২) জটিল কিডনি রোগে ভুগছিলেন।

কিন্তু তাদের স্ত্রীর সঙ্গে কারও কিডনিই ম্যাচ হচ্ছিল না। উপায় না দেখে, স্বামী বাঁচাতে দ্রুত কিডনি দান করার অনুরোধ জানিয়ে বিজ্ঞাপন দিয়েছিলেন বিকাশ ও আশরাফের স্ত্রী।

হঠাৎ করে চলতি মাসের জানুয়ারিতে সুস্মা একটি ফোন পান আশরাফের চিকিৎসক শাহবাজ আহমেদের কাছ থেকে।

তিনি জানান, নিজেদের স্ত্রীর সঙ্গে কিডনি ম্যাচ না করলেও অন্যের স্বামীর সঙ্গে তাদের কিডনি ম্যাচ করেছে।

এ ক্ষেত্রে চিকিৎসক দুজনকে জিজ্ঞেস করেন, দুই পরিবার দুই ধর্মের। একটি হিন্দু, অপরটি মুসলিম— এ নিয়ে তাদের মধ্যে কোনো বিভেদ আছে কিনা?

কিন্তু দুই পরিবারই বলেছে— ধর্ম নিয়ে তাদের মধ্যে কোনো বিরোধ নেই, তারা চান কিডনি দান করে তাদের স্বামীদের বাঁচিয়ে রাখতে। এ ক্ষেত্রে মানবতাই তাদের কাছে বড় ধর্ম।

ভারতে অনন্য নজির গড়লেন ২ নারী

 অনলাইন ডেস্ক 
২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:২৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ভারতের রাজধানী দিল্লিতে দুই নারী সম্প্রীতির এক অনন্য নজির গড়েছেন।

নয় মাস আগেও সুষ্মা উনিয়াল ও সুলতানা আলী কেউ কাউকে চিনতেন না। কিন্তু তারা এখন উত্তরখণ্ডের রাজধানী দেরাদুনে।

সেখানে হাসপাতালে গিয়ে একে অপরের স্বামীকে নিজেদের কিডনি দান করবেন। খবর আরব নিউজের।

ধর্ম এখানে মোটেও বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারেনি। বরং অটুট হয়েছে দুই সম্প্রদায়ের মধ্যে সম্প্রীতির বন্ধন।

২০১৯ সাল থেকেই বিকাশ উনিয়াল (৫১) এবং আশরাফ আলী (৫২) জটিল কিডনি রোগে ভুগছিলেন।

কিন্তু তাদের স্ত্রীর সঙ্গে কারও কিডনিই ম্যাচ হচ্ছিল না। উপায় না দেখে, স্বামী বাঁচাতে দ্রুত কিডনি দান করার অনুরোধ জানিয়ে বিজ্ঞাপন দিয়েছিলেন বিকাশ ও আশরাফের স্ত্রী।

হঠাৎ করে চলতি মাসের জানুয়ারিতে সুস্মা একটি ফোন পান আশরাফের চিকিৎসক শাহবাজ আহমেদের কাছ থেকে।

তিনি জানান, নিজেদের স্ত্রীর সঙ্গে কিডনি ম্যাচ না করলেও অন্যের স্বামীর সঙ্গে তাদের কিডনি ম্যাচ করেছে।

এ ক্ষেত্রে চিকিৎসক দুজনকে জিজ্ঞেস করেন, দুই পরিবার দুই ধর্মের। একটি হিন্দু, অপরটি মুসলিম— এ নিয়ে তাদের মধ্যে কোনো বিভেদ আছে কিনা?

কিন্তু দুই পরিবারই বলেছে— ধর্ম নিয়ে তাদের মধ্যে কোনো বিরোধ নেই, তারা চান কিডনি দান করে তাদের স্বামীদের বাঁচিয়ে রাখতে। এ ক্ষেত্রে মানবতাই তাদের কাছে বড় ধর্ম।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন