ফ্রান্সের চার্চে যৌন নির্যাতন, যা বললেন পোপ ফ্রান্সিস
jugantor
ফ্রান্সের চার্চে যৌন নির্যাতন, যা বললেন পোপ ফ্রান্সিস

  অনলাইন ডেস্ক  

০৬ অক্টোবর ২০২১, ২১:০২:০১  |  অনলাইন সংস্করণ

ফ্রান্সের চার্চগুলোতে ২ লাখ ১৬ হাজার শিশু যৌন নির্যাতনের ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করেছেন খ্রিস্টধর্মের শীর্ষ ব্যক্তিত্ব পোপ ফ্রান্সিস। তিনি এই ঘটনায় ভুক্তভোগীদের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন।

বুধবার ভ্যাটিকান সিটিতে এক সভা শেষে পোপ ফ্রান্সিস নির্যাতিত শিশুরা ট্রমার মুখোমুখি হয়েছে উল্লেখ করে বলেন, এটা আমার জন্য, আমাদের জন্য লজ্জার। ভবিষ্যতে এই ঘটনার পুনরাবৃত্তি হওয়া উচিত হবে না। তিনি সকল যাজকদের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের আহ্বান জানান।

পোপ ফ্রান্সিসএই ঘটনাকে কঠিন পরীক্ষা বলে উল্লেখ করেন। চার্চগুলো যেন সবার জন্য নিরাপদ থাকে ফরাসি ক্যাথলিকদের প্রতিতিনিসেটা নিশ্চিতের আহ্বান জানান।

এর আগেমঙ্গলবার একটি নিরপেক্ষ কমিশন ফরাসি ক্যাথলিক যাজকদের দ্বারা যৌন নির্যাতনের অনুসন্ধান প্রতিবেদন প্রকাশ করে। প্রতিবেদনে বলা হয়, ১৯৫০ সাল থেকে ২০২০ সাল পর্যন্ত ক্যাথলিক যাজকদের দ্বারা ২ লাখ ১৬ হাজার শিশুযৌন নির্যাতনের শিকার হয়েছে।

এএফপির প্রতিবেদনে বলা হয়, সারা বিশ্বে আলোড়ন তোলা প্রতিবেদনটি তৈরিতে আড়াই বছর সময় লেগেছে। এ সময়ের মধ্যে ১ লাখ ১৫ হাজার পাদরি ও গির্জা কর্মকর্তার ব্যাপারে তদন্ত চালানো হয়। প্রতিবেদনটি তৈরি হয়েছে চার্চ, আদালত এবং পুলিশের দলিলপত্রের আর্কাইভে পাওয়া তথ্য এবং যৌন নির্যাতনের শিকারদের সাক্ষাৎকারের ওপর ভিত্তি করে।

কমিশনের সদস্যদের মধ্যে ছিলেন চিকিৎসক, ইতিহাসবিদ, সমাজবিজ্ঞানী ও ধর্মতত্ত্ববিদ। আড়াই বছরে সাড়ে ছয় হাজারের বেশি সাক্ষীর সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়।

প্রায় ২ হাজার ৫০০ পৃষ্ঠার প্রতিবেদনে দেখা গেছে, ভুক্তভোগীর বেশিরভাগ সমাজের বিভিন্ন শ্রেণীর বালক। প্রতিবেদনে বলা হয়, পারিবারিক পরিবেশ এবং পরিচিতদের দ্বারা বেশি যৌন সহিংসতার ঘটনা ঘটে। শিশুরা এই পরিবেশের বাইরে সবচেয়ে বেশি নিপীড়নের শিকার হয় ক্যাথলিক চার্চে।

ফ্রান্সের চার্চে যৌন নির্যাতন, যা বললেন পোপ ফ্রান্সিস

 অনলাইন ডেস্ক 
০৬ অক্টোবর ২০২১, ০৯:০২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ফ্রান্সের চার্চগুলোতে ২ লাখ ১৬ হাজার শিশু যৌন নির্যাতনের ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করেছেন খ্রিস্টধর্মের শীর্ষ ব্যক্তিত্ব পোপ ফ্রান্সিস। তিনি এই ঘটনায় ভুক্তভোগীদের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন।

বুধবার ভ্যাটিকান সিটিতে এক সভা শেষে পোপ ফ্রান্সিস নির্যাতিত শিশুরা ট্রমার মুখোমুখি হয়েছে উল্লেখ করে বলেন, এটা আমার জন্য, আমাদের জন্য লজ্জার। ভবিষ্যতে এই ঘটনার পুনরাবৃত্তি হওয়া উচিত হবে না। তিনি সকল যাজকদের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের আহ্বান জানান।

পোপ ফ্রান্সিস এই ঘটনাকে কঠিন পরীক্ষা বলে উল্লেখ করেন। চার্চগুলো যেন সবার জন্য নিরাপদ থাকে ফরাসি ক্যাথলিকদের প্রতি তিনি সেটা নিশ্চিতের আহ্বান জানান। 

এর আগে মঙ্গলবার একটি নিরপেক্ষ কমিশন ফরাসি ক্যাথলিক যাজকদের দ্বারা যৌন নির্যাতনের অনুসন্ধান প্রতিবেদন প্রকাশ করে। প্রতিবেদনে বলা হয়, ১৯৫০ সাল থেকে ২০২০ সাল পর্যন্ত ক্যাথলিক যাজকদের দ্বারা ২ লাখ ১৬ হাজার শিশু যৌন নির্যাতনের শিকার হয়েছে।

এএফপির প্রতিবেদনে বলা হয়, সারা বিশ্বে আলোড়ন তোলা প্রতিবেদনটি তৈরিতে আড়াই বছর সময় লেগেছে। এ সময়ের মধ্যে ১ লাখ ১৫ হাজার পাদরি ও গির্জা কর্মকর্তার ব্যাপারে তদন্ত চালানো হয়। প্রতিবেদনটি তৈরি হয়েছে চার্চ, আদালত এবং পুলিশের দলিলপত্রের আর্কাইভে পাওয়া তথ্য এবং যৌন নির্যাতনের শিকারদের সাক্ষাৎকারের ওপর ভিত্তি করে।

কমিশনের সদস্যদের মধ্যে ছিলেন চিকিৎসক, ইতিহাসবিদ, সমাজবিজ্ঞানী ও ধর্মতত্ত্ববিদ। আড়াই বছরে সাড়ে ছয় হাজারের বেশি সাক্ষীর সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়।

প্রায় ২ হাজার ৫০০ পৃষ্ঠার প্রতিবেদনে দেখা গেছে, ভুক্তভোগীর বেশিরভাগ সমাজের বিভিন্ন শ্রেণীর বালক। প্রতিবেদনে বলা হয়, পারিবারিক পরিবেশ এবং পরিচিতদের দ্বারা বেশি যৌন সহিংসতার ঘটনা ঘটে। শিশুরা এই পরিবেশের বাইরে সবচেয়ে বেশি নিপীড়নের শিকার হয় ক্যাথলিক চার্চে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন