হোয়াটসঅ্যাপে স্ত্রীকে তিন তালাক, অতঃপর…
jugantor
হোয়াটসঅ্যাপে স্ত্রীকে তিন তালাক, অতঃপর…

  যুগান্তর ডেস্ক  

১৪ অক্টোবর ২০২১, ১৭:০৫:২৬  |  অনলাইন সংস্করণ

হোয়াটস অ্যাপ

স্ত্রীর সঙ্গে বনিবনা হচ্ছিল না তার। তাই ডিভোর্সের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন এই যুবক। কিন্তু এই হোয়াটসঅ্যাপে পাঠানো ডিভোর্সের বার্তা যে তাকে বিপাকে ফেলে দেবে তা ঘুণাক্ষরেও ভাবেননি তিনি।

গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ভারতের পুনের বাসিন্দা ওই যুবকের বিরুদ্ধে হোয়াটস অ্যাপে তিন তালাক দেওয়ার অভিযোগে স্ত্রী মামলা করেছেন বলে পুলিশ জানিয়েছে।

এমনকি ২৮ বছর বয়সী ওই তরুণী তার শাশুড়ির বিরুদ্ধেও মামলা করেছেন বলে পুলিশ জানায়।

এ ব্যাপারে স্থানীয় পুলিশ কর্মকর্তা জানান, ওই তরুণীকে তার স্বামী ও শাশুড়ি যৌতুকের দাবিতে শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন করতেন। মেয়েটির পরিবারের কাছ থেকে তারা ফ্ল্যাট কেনার জন্য নগদ অর্থসহ বিভিন্ন জিনিস যৌতুক হিসেবে দাবি করে আসছিলেন। যৌতুক দিতে না পারায় চলতি বছরের শুরুতে ওই তরুণী ও তার শিশু কন্যাকে বাবার বাড়িতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। সেখানেই হোয়াটস অ্যাপে স্বামী ওই তরুণীকে তিন তালাক দেন বলে পুলিশ জানিয়েছে।

ভারতীয় দণ্ডবিধির ২০১৯ সালে পাস হওয়া আইন অনুযায়ী দ্বিপাক্ষিক আলোচনা ছাড়া তাৎক্ষণিকভাবে তিন তালাক নিষিদ্ধ করা হয়েছে। তাই হোয়াটস অ্যাপে তিন তালাক পেয়ে সঙ্গে সঙ্গে পুলিশের কাছে গিয়ে মামলা করেন ওই তরুণী।

পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করে দেখছে বলেও ওই পুলিশ কর্মকর্তা জানিয়েছেন।

হোয়াটসঅ্যাপে স্ত্রীকে তিন তালাক, অতঃপর…

 যুগান্তর ডেস্ক 
১৪ অক্টোবর ২০২১, ০৫:০৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
হোয়াটস অ্যাপ
ছবি : প্রতীকী

স্ত্রীর সঙ্গে বনিবনা হচ্ছিল না তার। তাই ডিভোর্সের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন এই যুবক। কিন্তু এই হোয়াটসঅ্যাপে পাঠানো ডিভোর্সের বার্তা যে তাকে বিপাকে ফেলে দেবে তা ঘুণাক্ষরেও ভাবেননি তিনি।

গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ভারতের পুনের বাসিন্দা ওই যুবকের বিরুদ্ধে হোয়াটস অ্যাপে তিন তালাক দেওয়ার অভিযোগে স্ত্রী মামলা করেছেন বলে পুলিশ জানিয়েছে।

এমনকি ২৮ বছর বয়সী ওই তরুণী তার শাশুড়ির বিরুদ্ধেও মামলা করেছেন বলে পুলিশ জানায়।

এ ব্যাপারে স্থানীয় পুলিশ কর্মকর্তা জানান, ওই তরুণীকে তার স্বামী ও শাশুড়ি যৌতুকের দাবিতে শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন করতেন। মেয়েটির পরিবারের কাছ থেকে তারা ফ্ল্যাট কেনার জন্য নগদ অর্থসহ বিভিন্ন জিনিস যৌতুক হিসেবে দাবি করে আসছিলেন। যৌতুক দিতে না পারায় চলতি বছরের শুরুতে ওই তরুণী ও তার শিশু কন্যাকে বাবার বাড়িতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। সেখানেই হোয়াটস অ্যাপে স্বামী ওই তরুণীকে তিন তালাক দেন বলে পুলিশ জানিয়েছে।

ভারতীয় দণ্ডবিধির ২০১৯ সালে পাস হওয়া আইন অনুযায়ী দ্বিপাক্ষিক আলোচনা ছাড়া তাৎক্ষণিকভাবে তিন তালাক নিষিদ্ধ করা হয়েছে। তাই হোয়াটস অ্যাপে তিন তালাক পেয়ে সঙ্গে সঙ্গে পুলিশের কাছে গিয়ে মামলা করেন ওই তরুণী। 

পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করে দেখছে বলেও ওই পুলিশ কর্মকর্তা জানিয়েছেন।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন