ছাদ থেকে গুলি করা হয়েছে লেবাননের বিক্ষোভকারীদের মাথায়
jugantor
ছাদ থেকে গুলি করা হয়েছে লেবাননের বিক্ষোভকারীদের মাথায়

  অনলাইন ডেস্ক  

১৪ অক্টোবর ২০২১, ২১:৩২:০১  |  অনলাইন সংস্করণ

লেবানন

লেবাননের ইরান সমর্থিত গোষ্ঠী হিজবুল্লাহ ও আমাল মুভমেন্ট বলেছে, অস্ত্রধারীরা ছাদ থেকে বিক্ষোভকারীদের মাথা লক্ষ্য করে গুলি চালিয়েছে।

বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে লেবাননের এই দুই গোষ্ঠী বলেছে- দেশকে সংঘাতের দিকে ঠেলে দিতে এ হামলা চালানো হয়েছে। তারা হামলাকারীকে ধরতে দ্রুত সেনাবাহিনীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন। এছাড়া হিজবুল্লাহ তাদের সমর্থকদের শান্ত থাকারও আহ্বান জানিয়েছে।

এর আগে লেবাননের রাজধানী বৈরুতে এক বিক্ষোভ মিছিলে অজ্ঞাতনামা বন্দুকধারীর হামলায় ৬ জন নিহত ও ৩০ জন আহত হয়। গত বছর বৈরুতে ভয়াবহ বিস্ফোরণের ঘটনায় চলমান তদন্ত কার্যক্রমে নেতৃত্বদানকারী বিচারকের অপসারণের দাবিতে হিজবুল্লাহ ও এর প্রধান মিত্র আমাল মুভমেন্ট এ বিক্ষোভের আয়োজন করে।

সিএনএনের খবরে বলা হয়, ইরান সমর্থিত সংগঠন হিজবুল্লাহ ও আমাল মুভমেন্টের শত শত সমর্থক বৃহস্পতিবার বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে বৈরুতের প্যালেস অব জাস্টিসের দিকে যাচ্ছিলেন। এ সময় একজন মুখোশধারী ব্যক্তি অস্ত্র নিয়ে সড়ক বিভাজকের পেছন থেকে গুলি শুরু করেন।

এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত ছয়জন নিহত হওয়ার খবর নিশ্চিত করেছে লেবানন রেডক্রস।

গত বছরের আগস্টে বৈরুত বন্দরে ভয়াবহ বিস্ফোরণে দুই শতাধিক মানুষের প্রাণহানি ঘটে। এ ঘটনার তদন্ত করছেন লেবাননের জনপ্রিয় বিচারক তারেক বিতার। কিন্তু হিজবুল্লাহ তার বিরোধিতা করে আসছে।

তারেক বিতার বৈরুত ক্রিমিনাল কোর্টের প্রধান বিচারক। তিনি বৈরুত বন্দরে বিস্ফোরণের ঘটনায় বিচার বিভাগীয় তদন্তের দায়িত্বপ্রাপ্ত দ্বিতীয় কর্মকর্তা। এর আগে সাবেক দুই মন্ত্রীর বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেওয়ায় প্রথম তদন্ত কর্মকর্তাকে অপসারণ করা হয়।

তারেক বিতার দায়িত্ব নেওয়ার পর তাকেও অপসারণে কয়েক দফা পিটিশন দাখিল করা হয়। তবে সেগুলো খারিজ হয়ে যায়। হিজবুল্লাহ প্রধান হাসান নাসরুল্লাহ ওই ঘটনার চলমান বিচার কার্যক্রমের সমালোচনা করে এটি রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বলে দাবি করছেন।

ছাদ থেকে গুলি করা হয়েছে লেবাননের বিক্ষোভকারীদের মাথায়

 অনলাইন ডেস্ক 
১৪ অক্টোবর ২০২১, ০৯:৩২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
লেবানন
বৈরুতে এক বিক্ষোভ মিছিলে অজ্ঞাতনামা বন্দুকধারীর হামলায় ৬ জন নিহত হয়

লেবাননের ইরান সমর্থিত গোষ্ঠী হিজবুল্লাহ ও আমাল মুভমেন্ট বলেছে, অস্ত্রধারীরা ছাদ থেকে বিক্ষোভকারীদের মাথা লক্ষ্য করে গুলি চালিয়েছে।

বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে লেবাননের এই দুই গোষ্ঠী বলেছে- দেশকে সংঘাতের দিকে ঠেলে দিতে এ হামলা চালানো হয়েছে। তারা হামলাকারীকে ধরতে দ্রুত সেনাবাহিনীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন। এছাড়া হিজবুল্লাহ তাদের সমর্থকদের শান্ত থাকারও আহ্বান জানিয়েছে।

এর আগে লেবাননের রাজধানী বৈরুতে এক বিক্ষোভ মিছিলে অজ্ঞাতনামা বন্দুকধারীর হামলায় ৬ জন নিহত ও ৩০ জন আহত হয়। গত বছর বৈরুতে ভয়াবহ বিস্ফোরণের ঘটনায় চলমান তদন্ত কার্যক্রমে নেতৃত্বদানকারী বিচারকের অপসারণের দাবিতে হিজবুল্লাহ ও এর প্রধান মিত্র আমাল মুভমেন্ট এ বিক্ষোভের আয়োজন করে।

সিএনএনের খবরে বলা হয়, ইরান সমর্থিত সংগঠন হিজবুল্লাহ ও আমাল মুভমেন্টের শত শত সমর্থক বৃহস্পতিবার বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে বৈরুতের প্যালেস অব জাস্টিসের দিকে যাচ্ছিলেন। এ সময় একজন মুখোশধারী ব্যক্তি অস্ত্র নিয়ে সড়ক বিভাজকের পেছন থেকে গুলি শুরু করেন।

এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত ছয়জন নিহত হওয়ার খবর নিশ্চিত করেছে লেবানন রেডক্রস।

গত বছরের আগস্টে বৈরুত বন্দরে ভয়াবহ বিস্ফোরণে দুই শতাধিক মানুষের প্রাণহানি ঘটে। এ ঘটনার তদন্ত করছেন লেবাননের জনপ্রিয় বিচারক তারেক বিতার। কিন্তু হিজবুল্লাহ তার বিরোধিতা করে আসছে।

তারেক বিতার বৈরুত ক্রিমিনাল কোর্টের প্রধান বিচারক। তিনি বৈরুত বন্দরে বিস্ফোরণের ঘটনায় বিচার বিভাগীয় তদন্তের দায়িত্বপ্রাপ্ত দ্বিতীয় কর্মকর্তা। এর আগে সাবেক দুই মন্ত্রীর বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেওয়ায় প্রথম তদন্ত কর্মকর্তাকে অপসারণ করা হয়।

তারেক বিতার দায়িত্ব নেওয়ার পর তাকেও অপসারণে কয়েক দফা পিটিশন দাখিল করা হয়। তবে সেগুলো খারিজ হয়ে যায়। হিজবুল্লাহ প্রধান হাসান নাসরুল্লাহ ওই ঘটনার চলমান বিচার কার্যক্রমের সমালোচনা করে এটি রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বলে দাবি করছেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন