বুশ মার্কেটের নাম এখন মুজাহিদিন বাজার
jugantor
বুশ মার্কেটের নাম এখন মুজাহিদিন বাজার

  যুগান্তর ডেস্ক  

১৬ অক্টোবর ২০২১, ১২:২৮:৪৫  |  অনলাইন সংস্করণ

বুশ মার্কেটের নাম এখন মুজাহিদিন বাজার

আফগানিস্তান থেকে যুক্তরাষ্ট্র ও পশ্চিমাদের চলে যাওয়ার পর দেশের বিভিন্ন স্থাপনার নাম বদলে ফেলছে তালেবান সরকার। সবশেষ রাজধানী কাবুলের শহরতলির ‘বুশ মার্কেট’র নাম পালটে রাখা হয়েছে মুজাহিদিন বাজার।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যম বলছে, ক্রেতাদের বিশেষ করে তালেবানদের আকৃষ্ট করতে বাজারের নামে পালটেছেন দোকানদাররা। কিছু ছবিতে দেখা যাচ্ছে বাজারটির বিভিন্ন দোকানের সাইনবোর্ডে বদলে গেছে নাম।

বাজারের পরিচালক কমিটির প্রধান মোহাম্মদ কাসিম বারহাক বলেন, আমাদের বলা হয়েছে, এই বাজারটি কাবুল মিউনিসিপালিটির অধীনে আরিয়া রোচ বাজার নামে নিবন্ধন করা। এই নামে বাজারটির একটি লাইসেন্সও আছে। কিন্তু তারা (তালেবান) এর নাম বদলে মুজাহিদিন বাজার করেছে।

এর আগে একাধিক স্থাপনা ও স্থানের নাম বদলে ফেলে তালেবান। হামিদ কারজাই ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্ট হয় কাবুল ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্ট, বোরহানউদ্দিন রাব্বানি ইউনিভার্সিটি এখন কাবুল এডুকেশনাল ইউনিভার্সিটি ও মাসুদ স্কয়ার হয়েছে পাবলিক হেলথ স্কয়ার। খবর তোলো নিউজ।

২০০১ সালে টুইন টাওয়ার হামলার পর ‘সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ’র ধোঁয়া তুলে আফগানিস্তানে সামরিক আগ্রাসনের নির্দেশ দেন তৎকালীন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জর্জ ডব্লিউ বুশ।

এরপর দখল পাকাপোক্ত হলে ২০০৭ সালে কাবুলের উপকণ্ঠে গুরুত্বপূর্ণ আধুনিক বাজারটির জর্জ বুশের নামানুসারে বুশ বাজার নামকরণ করা হয়। বর্তমানে এখানে পাঁচশর মতো দোকান রয়েছে।

এই বাজারে মার্কিন সেনাদের জন্য সামরিক পোশাক, জুতা, ইলেকট্রনিকস, খাবার ও পানীয় বিক্রির জন্য পরিচিত ছিল। এসব পণ্যের বেশির ভাগই ছিল বিদেশি ও উন্নত মানের। মূলত এলিট আফগানরাই এসব কিনত।

কাবুলের বাসিন্দারা জানিয়েছেন, বুশ মার্কেটে আগে উন্নত মানের অনেক জিনিস পাওয়া যেত। এখন আর তেমন পাওয়া যায় না।

মার্কিনিরা ও পশ্চিমারা চলে যাওয়ার পর এখন অন্যান্য বিভিন্ন পণ্যই বেশি বিক্রি হচ্ছে বলে জানিয়েছেন দোকানদাররা। আগের মতো আর বেচাকেনা নেই বলেও জানান তারা।

সাইদ জাভিদ নামে এক দোকানদার বলেন, ‘এখন আর আগের মতো ক্রেতা নেই। আমাদের ব্যবসাও মন্দা।’

বুশ মার্কেটের নাম এখন মুজাহিদিন বাজার

 যুগান্তর ডেস্ক 
১৬ অক্টোবর ২০২১, ১২:২৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
বুশ মার্কেটের নাম এখন মুজাহিদিন বাজার
ছবি: সংগৃহীত

আফগানিস্তান থেকে যুক্তরাষ্ট্র ও পশ্চিমাদের চলে যাওয়ার পর দেশের বিভিন্ন স্থাপনার নাম বদলে ফেলছে তালেবান সরকার। সবশেষ রাজধানী কাবুলের শহরতলির ‘বুশ মার্কেট’র নাম পালটে রাখা হয়েছে মুজাহিদিন বাজার। 

স্থানীয় সংবাদমাধ্যম বলছে, ক্রেতাদের বিশেষ করে তালেবানদের আকৃষ্ট করতে বাজারের নামে পালটেছেন দোকানদাররা। কিছু ছবিতে দেখা যাচ্ছে বাজারটির বিভিন্ন দোকানের সাইনবোর্ডে বদলে গেছে নাম।

বাজারের পরিচালক কমিটির প্রধান মোহাম্মদ কাসিম বারহাক বলেন, আমাদের বলা হয়েছে, এই বাজারটি কাবুল মিউনিসিপালিটির অধীনে আরিয়া রোচ বাজার নামে নিবন্ধন করা। এই নামে বাজারটির একটি লাইসেন্সও আছে। কিন্তু তারা (তালেবান) এর নাম বদলে মুজাহিদিন বাজার করেছে।

এর আগে একাধিক স্থাপনা ও স্থানের নাম বদলে ফেলে তালেবান। হামিদ কারজাই ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্ট হয় কাবুল ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্ট, বোরহানউদ্দিন রাব্বানি ইউনিভার্সিটি এখন কাবুল এডুকেশনাল ইউনিভার্সিটি ও মাসুদ স্কয়ার হয়েছে পাবলিক হেলথ স্কয়ার। খবর তোলো নিউজ।

২০০১ সালে টুইন টাওয়ার হামলার পর ‘সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ’র ধোঁয়া তুলে আফগানিস্তানে সামরিক আগ্রাসনের নির্দেশ দেন তৎকালীন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জর্জ ডব্লিউ বুশ। 

এরপর দখল পাকাপোক্ত হলে ২০০৭ সালে কাবুলের উপকণ্ঠে গুরুত্বপূর্ণ আধুনিক বাজারটির জর্জ বুশের নামানুসারে বুশ বাজার নামকরণ করা হয়। বর্তমানে এখানে পাঁচশর মতো দোকান রয়েছে।

এই বাজারে মার্কিন সেনাদের জন্য সামরিক পোশাক, জুতা, ইলেকট্রনিকস, খাবার ও পানীয় বিক্রির জন্য পরিচিত ছিল। এসব পণ্যের বেশির ভাগই ছিল বিদেশি ও উন্নত মানের। মূলত এলিট আফগানরাই এসব কিনত।
 

কাবুলের বাসিন্দারা জানিয়েছেন, বুশ মার্কেটে আগে উন্নত মানের অনেক জিনিস পাওয়া যেত। এখন আর তেমন পাওয়া যায় না।

মার্কিনিরা ও পশ্চিমারা চলে যাওয়ার পর এখন অন্যান্য বিভিন্ন পণ্যই বেশি বিক্রি হচ্ছে বলে জানিয়েছেন দোকানদাররা। আগের মতো আর বেচাকেনা নেই বলেও জানান তারা। 

সাইদ জাভিদ নামে এক দোকানদার বলেন, ‘এখন আর আগের মতো ক্রেতা নেই। আমাদের ব্যবসাও মন্দা।’

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : আফগানিস্তানে তালেবানের পুনরুত্থান