কেরালায় ভারি বর্ষণ, ভূমিধসে নিহত ১৫
jugantor
কেরালায় ভারি বর্ষণ, ভূমিধসে নিহত ১৫

  যুগান্তর ডেস্ক  

১৭ অক্টোবর ২০২১, ১৬:৪৫:৫৭  |  অনলাইন সংস্করণ

ভারতের দক্ষিণাঞ্চলীয় প্রদেশ কেরালার কোট্টায়াম ও ইদুক্কি জেলায় প্রবল বৃষ্টিপাতের কারণে সৃষ্ট ভূমিধসে কমপক্ষে ১৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় নিখোঁজ রয়েছেন আরও ১২ জন। ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভি রোববার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

কেরালার অধিকাংশ এলাকায় শনিবার সারারাত টানা বৃষ্টি হয়েছে। তবে রোববার সকালে বৃষ্টিপাতের মাত্রা কিছুটা কমে এসেছে বলে এনডিটিভি জানিয়েছে। যদিও শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত বন্যার তীব্রতা বাড়ার কোনো ঘটনা ঘটেনি।

সেনাবাহিনী, নৌবাহিনী ও বিমানবাহিনীর সদস্যরা রাজ্য সরকারের অনুরোধে দুর্যোগ মোকাবেলায় কেরালার বেসামরিক প্রশাসনকে সহযোগিতা করছে। প্লাবিত অঞ্চলে তাদের ১১টি দল পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে ন্যাশনাল ডিজাস্টার রেসপন্স ফোর্স।

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কেরালার পাথানামথিত্তা জেলার সাবারিমালা মন্দিরে রোববার ও সোমবার ভক্তদের না যাওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এছাড়া আক্রান্ত এলাকাগুলোতে উদ্ধার অভিযান চলছে।

কেরালার দক্ষিণ ও মধ্যবর্তী জেলাগুলো বৃষ্টির কারণে তলিয়ে গেছে। কোট্টায়াম ও ইদুক্কি জেলায় ভূমিধসের ঘটনা ঘটেছে। ছয়টি জেলার রেড অ্যালার্ট এবং ছয়টি জেলায় অরেঞ্জ অ্যালার্ট জারি করা হয়েছে।

এর মধ্যেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বৃষ্টিপাতের ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। কোট্টায়াম জেলার একটি ভিডিওতে দেখা গিয়েছে, প্রবল বৃষ্টিতে রাস্তা যেন নদীতে রূপ নিয়েছে। আর জলমগ্ন রাস্তায় একটি বাস প্রায় অর্ধেকের বেশি তলিয়ে গেছে । যাত্রীরা বের হয়ে আসার চেষ্টা করছেন।

আরেকটি ভিডিওতে জলমগ্ন রাস্তা দিয়ে কয়েকজনকে একটি ব্যক্তিগত গাড়ি ঠেলে নিয়ে যেতে দেখা গেছে।

কেরালার মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ান উদ্ধার তৎপরতা বাড়ানোর বিষয়ে উচ্চপর্যায়ের বৈঠক করেছেন। তবে প্রতিকূল আবহাওয়ার কারণে উদ্ধার তৎপর ব্যাহত হচ্ছে বলে এনডিটিভি জানিয়েছে।

কেরালায় ভারি বর্ষণ, ভূমিধসে নিহত ১৫

 যুগান্তর ডেস্ক 
১৭ অক্টোবর ২০২১, ০৪:৪৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ভারতের দক্ষিণাঞ্চলীয় প্রদেশ কেরালার কোট্টায়াম ও ইদুক্কি জেলায় প্রবল বৃষ্টিপাতের কারণে সৃষ্ট ভূমিধসে কমপক্ষে ১৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় নিখোঁজ রয়েছেন আরও ১২ জন। ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভি রোববার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

কেরালার অধিকাংশ এলাকায় শনিবার সারারাত টানা বৃষ্টি হয়েছে। তবে রোববার সকালে বৃষ্টিপাতের মাত্রা কিছুটা কমে এসেছে বলে এনডিটিভি জানিয়েছে। যদিও শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত বন্যার তীব্রতা বাড়ার কোনো ঘটনা ঘটেনি। 

সেনাবাহিনী, নৌবাহিনী ও বিমানবাহিনীর সদস্যরা রাজ্য সরকারের অনুরোধে দুর্যোগ মোকাবেলায় কেরালার বেসামরিক প্রশাসনকে সহযোগিতা করছে। প্লাবিত অঞ্চলে তাদের ১১টি দল পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে ন্যাশনাল ডিজাস্টার রেসপন্স ফোর্স।

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কেরালার পাথানামথিত্তা জেলার সাবারিমালা মন্দিরে রোববার ও সোমবার ভক্তদের না যাওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এছাড়া আক্রান্ত এলাকাগুলোতে উদ্ধার অভিযান চলছে।

কেরালার দক্ষিণ ও মধ্যবর্তী জেলাগুলো বৃষ্টির কারণে তলিয়ে গেছে। কোট্টায়াম ও ইদুক্কি জেলায় ভূমিধসের ঘটনা ঘটেছে। ছয়টি জেলার রেড অ্যালার্ট এবং ছয়টি জেলায় অরেঞ্জ অ্যালার্ট জারি করা হয়েছে। 

এর মধ্যেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বৃষ্টিপাতের  ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। কোট্টায়াম জেলার একটি ভিডিওতে দেখা গিয়েছে, প্রবল বৃষ্টিতে রাস্তা যেন নদীতে রূপ নিয়েছে। আর জলমগ্ন রাস্তায় একটি বাস প্রায় অর্ধেকের বেশি তলিয়ে গেছে । যাত্রীরা বের হয়ে আসার চেষ্টা করছেন।

আরেকটি ভিডিওতে জলমগ্ন রাস্তা দিয়ে কয়েকজনকে একটি ব্যক্তিগত গাড়ি ঠেলে নিয়ে যেতে দেখা গেছে। 

কেরালার মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ান উদ্ধার তৎপরতা বাড়ানোর বিষয়ে উচ্চপর্যায়ের বৈঠক করেছেন। তবে প্রতিকূল আবহাওয়ার কারণে উদ্ধার তৎপর ব্যাহত হচ্ছে বলে এনডিটিভি জানিয়েছে।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন