যে কারণে সাড়ে ৫ হাজার বন্দিকে মুক্তি দিচ্ছে মিয়ানমারের জান্তা সরকার
jugantor
যে কারণে সাড়ে ৫ হাজার বন্দিকে মুক্তি দিচ্ছে মিয়ানমারের জান্তা সরকার

  অনলাইন ডেস্ক  

১৮ অক্টোবর ২০২১, ১৫:৩৯:৩২  |  অনলাইন সংস্করণ

যে কারণে ৫ হাজার বন্দিকে মুক্তি দিচ্ছে মিয়ানমারের জান্তা সরকার

দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশগুলোর আঞ্চলিক জোট আসিয়ানের ৩৮ ও ৩৯তম শীর্ষ সম্মেলনে মিয়ানমারের সেনাশাসক সিনিয়র জেনারেল মিন অং হ্লাইং দেশটির প্রতিনিধিত্ব করতে পারবেন না। তার পরিবর্তে একজন আমলা জোটের শীর্ষ বৈঠকে দেশের প্রতিনিধিত্ব করবেন। সংস্থাটির এ ঘোষণার পর প্রায় পাঁচ হাজারেরও বেশি বন্দি মুক্তি দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন দেশটির জান্তাপ্রধান।

সোমবার মিয়ানমারের সেনাশাসক এ ঘোষণা দেন। খবর এনডিটিভির।

খবরে বলা হয়, ফেব্রুয়ারিতে সেনাবাহিনী যখন ক্ষমতা দখল করে নেয়, তার প্রতিবাদে দেশজুড়ে প্রতিবাদ-বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হয়। এসব বিক্ষোভ থেকে গ্রেফতার করে হাজার হাজার মানুষকে পাঠানো হয় জেলে। জেলে থাকা এমন পাঁচ হাজারের বেশি বন্দিকে মুক্তি দেওয়া হবে।

মিন অং হ্লাইং বলেন, সব মিলিয়ে পাঁচ হাজার ৬৩৬ জনকে মুক্তি দেওয়া হবে। তাডিংইয়ুত উৎসব উপলক্ষ্যে তাদের মুক্তি দেওয়া হচ্ছে।

২৬-২৮ অক্টোবর আসিয়ানের শীর্ষ সম্মেলন ভার্চুয়ালি অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। মিয়ানমারের বর্তমান পরিস্থিতির কারণে সে সম্মেলন থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে সেনাশাসক সিনিয়র জেনারেল মিন অং হ্লাইংকে।

স্থানীয় পর্যবেক্ষণ গ্রুপের মতে, দেশটিতে ফেব্রুয়ারিতে হওয়া সেনা অভ্যুত্থানের পর থেকে বিশৃঙ্খলা লেগে আছে। সেনা অভ্যুত্থানের পর থেকে এ পর্যন্ত এক হাজার একশর বেশি আন্দোলনকারী নিহত হয়েছে দেশটির নিরাপত্তা বাহিনীর হাতে। গ্রেফতার করা হয়েছে আট হাজারেরও বেশি আন্দোলনকারীকে।

তবে কারা মুক্তি পাচ্ছেন সে বিষয়ে কোনো তথ্য দেওয়া হয়নি।

জুলাইয়ের পর থেকে প্রায় দুই হাজারেরও বেশি বন্দিকে মুক্তি দিয়েছে মিয়ানমার। তাদের মধ্যে সামরিক সরকারের সমালোচক হিসেবে পরিচিত সাংবাদিকও ছিলেন।

যে কারণে সাড়ে ৫ হাজার বন্দিকে মুক্তি দিচ্ছে মিয়ানমারের জান্তা সরকার

 অনলাইন ডেস্ক 
১৮ অক্টোবর ২০২১, ০৩:৩৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
যে কারণে ৫ হাজার বন্দিকে মুক্তি দিচ্ছে মিয়ানমারের জান্তা সরকার
মিন অং হ্লাইং

দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশগুলোর আঞ্চলিক জোট আসিয়ানের ৩৮ ও ৩৯তম শীর্ষ সম্মেলনে মিয়ানমারের সেনাশাসক সিনিয়র জেনারেল মিন অং হ্লাইং দেশটির প্রতিনিধিত্ব করতে পারবেন না। তার পরিবর্তে একজন আমলা জোটের শীর্ষ বৈঠকে দেশের প্রতিনিধিত্ব করবেন। সংস্থাটির এ ঘোষণার পর প্রায় পাঁচ হাজারেরও বেশি বন্দি মুক্তি দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন দেশটির জান্তাপ্রধান।

সোমবার মিয়ানমারের সেনাশাসক এ ঘোষণা দেন। খবর এনডিটিভির।

খবরে বলা হয়, ফেব্রুয়ারিতে সেনাবাহিনী যখন ক্ষমতা দখল করে নেয়, তার প্রতিবাদে দেশজুড়ে প্রতিবাদ-বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হয়। এসব বিক্ষোভ থেকে গ্রেফতার করে হাজার হাজার মানুষকে পাঠানো হয় জেলে। জেলে থাকা এমন পাঁচ হাজারের বেশি বন্দিকে মুক্তি দেওয়া হবে।

মিন অং হ্লাইং বলেন, সব মিলিয়ে পাঁচ হাজার ৬৩৬ জনকে মুক্তি দেওয়া হবে। তাডিংইয়ুত উৎসব উপলক্ষ্যে তাদের মুক্তি দেওয়া হচ্ছে।

২৬-২৮ অক্টোবর আসিয়ানের শীর্ষ সম্মেলন ভার্চুয়ালি অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।  মিয়ানমারের বর্তমান পরিস্থিতির কারণে সে সম্মেলন থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে সেনাশাসক সিনিয়র জেনারেল মিন অং হ্লাইংকে।

স্থানীয় পর্যবেক্ষণ গ্রুপের মতে,  দেশটিতে ফেব্রুয়ারিতে হওয়া সেনা অভ্যুত্থানের পর থেকে বিশৃঙ্খলা লেগে আছে। সেনা অভ্যুত্থানের পর থেকে এ পর্যন্ত এক হাজার একশর বেশি আন্দোলনকারী নিহত হয়েছে দেশটির নিরাপত্তা বাহিনীর হাতে।  গ্রেফতার করা হয়েছে আট হাজারেরও বেশি আন্দোলনকারীকে।

তবে কারা মুক্তি পাচ্ছেন সে বিষয়ে কোনো তথ্য দেওয়া হয়নি।

জুলাইয়ের পর থেকে প্রায় দুই হাজারেরও বেশি বন্দিকে মুক্তি দিয়েছে মিয়ানমার। তাদের মধ্যে সামরিক সরকারের সমালোচক হিসেবে পরিচিত সাংবাদিকও ছিলেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন