ভারতের সাবমেরিন নিয়ে যা বলল পাকিস্তান
jugantor
ভারতের সাবমেরিন নিয়ে যা বলল পাকিস্তান

  অনলাইন ডেস্ক  

১৯ অক্টোবর ২০২১, ১৯:৫২:৫২  |  অনলাইন সংস্করণ

ভারতের একটি সাবমেরিন পাকিস্তানের জলসীমায় প্রবেশের চেষ্টা করেছে বলে দাবি করেছে পাকিস্তান। একই সঙ্গে ওই সাবমেরিনের অনুপ্রবেশ ঠেকিয়ে দিয়েছে বলেও দাবি করেছে পাকিস্তান। মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে পাকিস্তানের নৌ বাহিনী এই অভিযোগ তুলেছে।

পাকিস্তানের আইএসপিআর এক বিবৃতিতে জানায়, ভারতের সাবমেরিন পাকিস্তানের জলসীমায় অনুপ্রবেশের চেষ্টা করে। তবে পাকিস্তানের নৌবাহিনী অল্পসময়ের মধ্যে সাবমেরিনটিকে শনাক্ত করে থামিয়ে দিলে সেটি ফিরে যেতে বাধ্য হয়।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, পাকিস্তানের জলসীমায় টহল দেওয়া সামরিক উড়োজাহাজ প্রথম ওই ভারতীয় সাবমেরিনটি শনাক্ত করে।

এতে আরও বলা হয়, পাকিস্তান সেনাবাহিনী নিজ দেশের সমুদ্রসীমা কড়া নজরদারি জারি রেখেছে। পাক সেনাবাহিনী বর্তমান পরিস্থিতিতে দেশের সমুদ্রসীমার নিরাপত্তাকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিচ্ছে।

কাতারভিত্তিক গণমাধ্যম আল জাজিরা পাকিস্তান সেনাবাহিনীর এই অভিযোগের বিষয়ে মন্তব্য জানতে চেয়ে ভারতের সেনাবাহিনীর মুখপাত্রদের সঙ্গে যোগাযোগ করেছিল। তবে কোনো মুখপাত্র মন্তব্য করতে রাজি হননি।

ভারতের সাবমেরিন নিয়ে যা বলল পাকিস্তান

 অনলাইন ডেস্ক 
১৯ অক্টোবর ২০২১, ০৭:৫২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ভারতের একটি সাবমেরিন পাকিস্তানের জলসীমায় প্রবেশের চেষ্টা করেছে বলে দাবি করেছে পাকিস্তান। একই সঙ্গে ওই সাবমেরিনের অনুপ্রবেশ ঠেকিয়ে দিয়েছে বলেও দাবি করেছে পাকিস্তান। মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে পাকিস্তানের নৌ বাহিনী এই অভিযোগ তুলেছে।

পাকিস্তানের আইএসপিআর এক বিবৃতিতে জানায়, ভারতের সাবমেরিন পাকিস্তানের জলসীমায় অনুপ্রবেশের চেষ্টা করে। তবে পাকিস্তানের নৌবাহিনী  অল্পসময়ের মধ্যে সাবমেরিনটিকে শনাক্ত করে থামিয়ে দিলে সেটি ফিরে যেতে বাধ্য হয়। 

বিবৃতিতে আরও বলা হয়,  পাকিস্তানের জলসীমায় টহল দেওয়া সামরিক উড়োজাহাজ প্রথম ওই ভারতীয় সাবমেরিনটি শনাক্ত করে। 

এতে আরও  বলা হয়,  পাকিস্তান সেনাবাহিনী নিজ দেশের সমুদ্রসীমা কড়া নজরদারি জারি রেখেছে। পাক সেনাবাহিনী বর্তমান পরিস্থিতিতে দেশের সমুদ্রসীমার নিরাপত্তাকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিচ্ছে।

কাতারভিত্তিক গণমাধ্যম আল জাজিরা পাকিস্তান সেনাবাহিনীর এই অভিযোগের বিষয়ে মন্তব্য জানতে চেয়ে ভারতের সেনাবাহিনীর মুখপাত্রদের  সঙ্গে যোগাযোগ করেছিল। তবে কোনো মুখপাত্র মন্তব্য করতে রাজি হননি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন