তালেবানের প্রশংসায় রাশিয়া
jugantor
তালেবানের প্রশংসায় রাশিয়া

  অনলাইন ডেস্ক  

২০ অক্টোবর ২০২১, ২৩:৫৫:২৮  |  অনলাইন সংস্করণ

তালেবান

আফগানিস্তান নিয়ে বৈঠকের প্রথম দিন তালেবান সরকারের প্রচেষ্টার প্রশংসা করেছে রাশিয়া। আফগানিস্তান ইস্যুতে ভারত, চীন ও পাকিস্তানসহ দশটি দেশ নিয়ে আয়োজিত বৈঠকে নিজেদের এই অবস্থান তুলে ধরেমস্কো।

১৫ আগস্ট আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখলের পর তালেবানের এটিই প্রথম হাই-প্রোফাইল আন্তর্জাতিক বৈঠক।

বুধবার রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সেরগেই ল্যাভরভ বলেন, আফগানিস্তানে এখন নতুন প্রশাসন ক্ষমতায়। সামরিক ও রাজনৈতিক পরিস্থিতির স্থিতিশীলতা আনতে আমরা তাদের প্রচেষ্টা লক্ষ্য করছি। এই বৈঠকে যুক্তরাষ্ট্র অংশ না নেওয়ায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

বৈঠকে তালেবান প্রতিনিধির নেতৃত্ব দিচ্ছেন উপ-প্রধানমন্ত্রী আবদুল সালাম হানাফি। এর আগে তিনি ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে বৈঠকেও তালেবান দলের নেতা ছিলেন।

১৫ আগস্ট তালেবান আফগানিস্তান দখল করে। দুই সপ্তাহ পর অন্তর্বর্তী সরকার গঠন করে তারা। যদিও এখন পর্যন্ত তালেবান সরকারকে স্বীকৃতি দেয়নি কোনো দেশ।

গত সপ্তাহে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট পুতিন বলেছিলেন, তালেবানকে স্বীকৃতি দিতে তার দেশ তাড়াহুড়ো করবে না। তবে রাশিয়া তালেবানের সঙ্গে সম্পর্ক রাখতে আাগ্রহী বলেও মন্তব্য করেছিলেন তিনি।

তালেবান নেতৃত্বাধীন ইসলামিক আমিরাত সরকার প্রত্যাশা করছে, মস্কোতে বৈঠকের মাধ্যমে তাদের আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি লাভের পথ খুলবে।

তালেবানের একজন সিনিয়র প্রতিনিধি বলেন, এই বৈঠক আন্তর্জাতিক স্বীকৃতির ভিত্তি তৈরি করবে। এছাড়া বৈঠকে আন্তর্জাতিক দেশগুলোর সঙ্গে রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক সম্পর্কের উন্নয়ন ঘটবে।

আব্দুল সাত্তার নামে একজন রাজনৈতিক বিশ্লেষক বলেন, আফগানিস্তানের পরিবর্তিত তালেবান সরকারকে স্বীকৃতি দেওয়া হবে কী না, মস্কো বৈঠকের মাধ্যমে সেটা নিরূপণ করা হবে। তার ভাষায় এই সম্মেলন খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এই বিশ্লেষক বলেন, বৈঠকে তালেবান সরকারের প্রতিনিধি অংশ নিচ্ছে। আফগানিস্তানের মানুষ প্রত্যাশা করছে, এই সম্মেলনে তাদের স্বার্থ-সংশ্লিষ্ট বিষয়গুলোর একটি রফদফা হবে।

জাউয়িদ সাংডেল নামে এক আন্তর্জাতিক বিশ্লেষক বলেন, এই বৈঠকের মাধ্যমেরাশিয়া, চীনসহ প্রত্যেকে তালেবানের সঙ্গে যুক্ত হওয়ার প্রচষ্টা চালাবে।

তালেবানের প্রশংসায় রাশিয়া

 অনলাইন ডেস্ক 
২০ অক্টোবর ২০২১, ১১:৫৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
তালেবান
তালেবান প্রত্যাশা করছে এই বৈঠকের মাধ্যমে ইসলামিক আমিরাত অব আফগানিস্তানের স্বীকৃতির দ্বার উন্মোচিত হবে

আফগানিস্তান নিয়ে বৈঠকের প্রথম দিন তালেবান সরকারের প্রচেষ্টার প্রশংসা করেছে রাশিয়া। আফগানিস্তান ইস্যুতে ভারত, চীন ও পাকিস্তানসহ দশটি দেশ নিয়ে আয়োজিত বৈঠকে নিজেদের এই অবস্থান তুলে ধরে মস্কো।

১৫ আগস্ট আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখলের পর তালেবানের এটিই প্রথম হাই-প্রোফাইল আন্তর্জাতিক বৈঠক। 

বুধবার রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সেরগেই ল্যাভরভ বলেন, আফগানিস্তানে এখন নতুন প্রশাসন ক্ষমতায়। সামরিক ও রাজনৈতিক পরিস্থিতির স্থিতিশীলতা আনতে আমরা তাদের প্রচেষ্টা লক্ষ্য করছি। এই বৈঠকে যুক্তরাষ্ট্র অংশ না নেওয়ায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

বৈঠকে তালেবান প্রতিনিধির নেতৃত্ব দিচ্ছেন উপ-প্রধানমন্ত্রী আবদুল সালাম হানাফি। এর আগে তিনি ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে বৈঠকেও তালেবান দলের নেতা ছিলেন।

১৫ আগস্ট তালেবান আফগানিস্তান দখল করে। দুই সপ্তাহ পর অন্তর্বর্তী সরকার গঠন করে তারা। যদিও এখন পর্যন্ত তালেবান সরকারকে স্বীকৃতি দেয়নি কোনো দেশ।

গত সপ্তাহে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট পুতিন বলেছিলেন, তালেবানকে স্বীকৃতি দিতে তার দেশ তাড়াহুড়ো করবে না। তবে রাশিয়া তালেবানের সঙ্গে সম্পর্ক রাখতে আাগ্রহী বলেও মন্তব্য করেছিলেন তিনি।

তালেবান নেতৃত্বাধীন ইসলামিক আমিরাত সরকার প্রত্যাশা করছে, মস্কোতে বৈঠকের মাধ্যমে তাদের আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি লাভের পথ খুলবে।

তালেবানের একজন সিনিয়র প্রতিনিধি বলেন, এই বৈঠক আন্তর্জাতিক স্বীকৃতির ভিত্তি তৈরি করবে। এছাড়া বৈঠকে আন্তর্জাতিক দেশগুলোর সঙ্গে রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক সম্পর্কের উন্নয়ন ঘটবে।

আব্দুল সাত্তার নামে একজন রাজনৈতিক বিশ্লেষক বলেন, আফগানিস্তানের পরিবর্তিত তালেবান সরকারকে স্বীকৃতি দেওয়া হবে কী না, মস্কো বৈঠকের মাধ্যমে সেটা নিরূপণ করা হবে। তার ভাষায় এই সম্মেলন খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এই বিশ্লেষক বলেন, বৈঠকে তালেবান সরকারের প্রতিনিধি অংশ নিচ্ছে। আফগানিস্তানের মানুষ প্রত্যাশা করছে, এই সম্মেলনে তাদের স্বার্থ-সংশ্লিষ্ট বিষয়গুলোর একটি রফদফা হবে।

জাউয়িদ সাংডেল নামে এক আন্তর্জাতিক বিশ্লেষক বলেন, এই বৈঠকের মাধ্যমে রাশিয়া, চীনসহ প্রত্যেকে তালেবানের সঙ্গে যুক্ত হওয়ার প্রচষ্টা চালাবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন