১০ আঞ্চলিক শক্তির সমর্থন জিতল তালেবান
jugantor
১০ আঞ্চলিক শক্তির সমর্থন জিতল তালেবান

  অনলাইন ডেস্ক  

২১ অক্টোবর ২০২১, ০৬:৫২:০৫  |  অনলাইন সংস্করণ

তালেবান

মস্কো বৈঠকে তালেবান ১০ আঞ্চলিক শক্তির সমর্থন জয় করেছে।

আল জাজিরার খবরে বলা হয়েছে, বুধবার রাশিয়ার আমন্ত্রণে ভারত, পাকিস্তান, ইরান, চীনসহ ১০টি আঞ্চলিক শক্তি তালেবানের সঙ্গে বৈঠকে মিলিত হয়। এই বৈঠকে আফগানিস্তানে মানবিক সাহায্যার্থে জাতিসংঘকে ‘দাতা সম্মেলন’ আয়োজন করতে তালেবানকে সমর্থন দেওয়ার কথা জানিয়েছে।

বৈঠকে অন্যান্য যে দেশগুলো ছিল তারা হলো- সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নভুক্ত, কাজাখস্তান, কিরগিজস্তান, তাজিকিস্তান, তুর্কিমিনিস্তান ও উজবেকিস্তান।

চীন, ইরানসহ এই দেশগুলো যৌথভাবে জাতিসংঘকে আফগানিস্তানে মানবিক সহায়তার্থে অবিলম্বে দাতা সম্মেলন আয়োজন করার আহ্বান জানাতে সম্মতি প্রকাশ করেছে।

মস্কোতে তালেবানের সঙ্গে বৈঠকে অংশ নেওয়া দেশগুলো বলছে, যারা বিগত ২০ বছর ধরে আফগানিস্তানে ছিল অর্থাৎ যুক্তরাষ্ট্র ও তার মিত্রদেশগুলোকে আফগানিস্তানের বোঝা বহন করা উচিত।

মস্কো বৈঠকে রাশিয়া যুক্তরাষ্ট্রকে আমন্ত্রণ জানিয়েছিল। কিন্তু কারিগরি ত্রুটির কথা জানিয়ে ওয়াশিংটন বৈঠকে অংশ নেয়নি। তবে ভবিষ্যতে যুক্তরাষ্ট্র এ ধরণের বৈঠকে অংশ নেবে বলে জানিয়েছে।

আফগানিস্তানে অস্থিরতা আঞ্চলিক অস্থিতিশীলতা ডেকে আনতে পারে আশঙ্কা করে রাশিয়া ধারাবাহিকভাবে তালেবান সরকারের সঙ্গে যুক্ত থাকার কথা বলছে। তবে গত সপ্তাহে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন জানান, তারা আনুষ্ঠানিকভাবে তালেবানকে এক্ষুণি স্বীকৃতি দিচ্ছেন না।

গত ১৫ আগস্ট আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখল করে তালেবান। এর দুই সপ্তাহ পর তারা অন্তর্বর্তীকালীন সরকার গঠন করে। কিন্তু কোনো দেশ এখন পর্যন্ত তাদের স্বীকৃতি দেয়নি। স্বীকৃতি পেতে তালেবান প্রতিনিধিদল ইতোমধ্যে যুক্তরাষ্ট্র, তুরস্ক ও ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠক করেছে।

১০ আঞ্চলিক শক্তির সমর্থন জিতল তালেবান

 অনলাইন ডেস্ক 
২১ অক্টোবর ২০২১, ০৬:৫২ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
তালেবান
মস্কোতে রুশ প্রতিনিধির সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করে তালেবান

মস্কো বৈঠকে তালেবান ১০ আঞ্চলিক শক্তির সমর্থন জয় করেছে।

আল জাজিরার খবরে বলা হয়েছে, বুধবার রাশিয়ার আমন্ত্রণে ভারত, পাকিস্তান, ইরান, চীনসহ ১০টি আঞ্চলিক শক্তি তালেবানের সঙ্গে বৈঠকে মিলিত হয়। এই বৈঠকে আফগানিস্তানে মানবিক সাহায্যার্থে জাতিসংঘকে ‘দাতা সম্মেলন’ আয়োজন করতে তালেবানকে সমর্থন দেওয়ার কথা জানিয়েছে।

বৈঠকে অন্যান্য যে দেশগুলো ছিল তারা হলো- সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নভুক্ত, কাজাখস্তান, কিরগিজস্তান, তাজিকিস্তান, তুর্কিমিনিস্তান ও উজবেকিস্তান। 

চীন, ইরানসহ এই দেশগুলো যৌথভাবে জাতিসংঘকে আফগানিস্তানে মানবিক সহায়তার্থে অবিলম্বে দাতা সম্মেলন আয়োজন করার আহ্বান জানাতে সম্মতি প্রকাশ করেছে। 

মস্কোতে তালেবানের সঙ্গে বৈঠকে অংশ নেওয়া দেশগুলো বলছে, যারা বিগত ২০ বছর ধরে আফগানিস্তানে ছিল অর্থাৎ যুক্তরাষ্ট্র  ও তার মিত্রদেশগুলোকে আফগানিস্তানের বোঝা বহন করা উচিত।

মস্কো বৈঠকে রাশিয়া যুক্তরাষ্ট্রকে আমন্ত্রণ জানিয়েছিল। কিন্তু কারিগরি ত্রুটির কথা জানিয়ে ওয়াশিংটন বৈঠকে অংশ নেয়নি। তবে ভবিষ্যতে যুক্তরাষ্ট্র এ ধরণের বৈঠকে অংশ নেবে বলে জানিয়েছে। 

আফগানিস্তানে অস্থিরতা আঞ্চলিক অস্থিতিশীলতা ডেকে আনতে পারে আশঙ্কা করে রাশিয়া ধারাবাহিকভাবে তালেবান সরকারের সঙ্গে যুক্ত থাকার কথা বলছে। তবে গত সপ্তাহে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন জানান, তারা আনুষ্ঠানিকভাবে তালেবানকে এক্ষুণি স্বীকৃতি দিচ্ছেন না। 

গত ১৫ আগস্ট আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখল করে তালেবান। এর দুই সপ্তাহ পর তারা অন্তর্বর্তীকালীন সরকার গঠন করে। কিন্তু কোনো দেশ এখন পর্যন্ত তাদের স্বীকৃতি দেয়নি। স্বীকৃতি পেতে তালেবান প্রতিনিধিদল ইতোমধ্যে যুক্তরাষ্ট্র, তুরস্ক ও ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠক করেছে। 
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : আফগানিস্তানে তালেবানের পুনরুত্থান